নীড় পাতা » ফিচার » অরণ্যসুন্দরী (পাতা 4)

অরণ্যসুন্দরী

নিরাপদ ভ্রমণের ঠিকানা বৈচিত্রের বান্দরবান

প্রকৃতি যেনো হাত উজাড় করেই নিজেকে মেলে ধরেছে বান্দরবান। শুধু শীত এবং বর্ষা নয়, সারাবছরই বৈচিত্রময় রূপের রাণী বান্দরবানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের খ্যাতি ছড়িয়েছে ইতিমধ্যে দেশের বাইরেও। বিদেশী পর্যটকরাও এখানকার সৌন্দর্য্য উপভোগে ঘুরে বেড়াচ্ছেন পাহাড়ী জনপদে। কি নেই এখানে ? প্রাকৃতিক লেক, ঝর্ণা, বাদুর গুহা, আলীর সুরঙ্গপথ, ঝুলন্ত সেতু, স্বর্ণ মন্দির, পর্বত চূড়া এবং ভিন্ন ভাষার এগারোটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর বৈচিত্রময় সংস্কৃতি …

বিস্তারিত পড়ুন

মেঘরাজ্যে হারিয়ে যাওয়ার নীলাচল

বান্দরবান শহরের সবচেয়ে সুন্দর পর্যটন কেন্দ্র সম্ভবত নীলাচল। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৬শ’ ফুট উঁচু এই জায়গায় বর্ষা, শরৎ কি হেমন্ত- তিন ঋতুতে ছোঁয়া যায় মেঘ। এছাড়া এখানে দাঁড়িয়ে দূর থেকে দেখা যায় বান্দরবান শহর আর পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সাঙ্গু নদী। বান্দরবান জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গড়ে তোলা মনোরম এই পর্যটন কেন্দ্রে সাম্প্রতিক সময়ে নতুন যোগ করা হয়েছে একটি রিসোর্ট। এখন …

বিস্তারিত পড়ুন

বান্দরবানে পর্যটকের ঢল

প্রকৃতির নির্মল ছোয়ায় পাহাড়ী জেলা বান্দরবানে ছুটে বেড়াচ্ছেন পর্যটকরা। ঈদের ছুটিতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বান্দরবানের পর্যটন স্পটগুলোতে ঢল নেমেছে দেশী-বিদেশী পর্যটকের। জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায়ও হোটেল-মোটেল, রেস্ট হাউস এবং গেস্টহাউসগুলোতে কোনো সীট খালি নেই। এক সীটে ডাবলিং করেও থাকছে পর্যটকরা। কোথাও সীট না পেয়ে দূর্গমাঞ্চলে পাহাড়ীদের মাচাংঘরগুলোকে থাকার বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে বেছে নিচ্ছে বেড়াতে আসা পর্যটকরা। প্রতিদিনই হাজার হাজার পর্যটকেরা …

বিস্তারিত পড়ুন

পর্যটকের পদচারনায় মুখর পার্বত্য শহর রাঙামাটি

ঈদের ছুটির অবসরে পাহাড় আর হ্রদের শহর রাঙামাটিতে জমেছে উৎসবের আমেজ। হাজারো পর্যটকের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে পাহাড়ী শহর রাঙামাটি। ঈদের ছুটির সাথে সরকারি বন্ধ যোগ হওয়ায় দীর্ঘ ছুটির আমেজ নিয়ে এই পাহাড়ী শহরে বেড়াতে এসেছেন কয়েক হাজার ভ্রমনপিয়াসী মানুষ। শহরের আবাসিক হোটেলগুলোতে বুকিং রয়েছে আগামী ৫ তারিখ পর্যন্ত। অভিজাত আবাসিকস্থল পর্যটন মোটেল,হোটেল সুফিয়া,হোটেল গ্রীণ ক্যসেল,নীডস হিলভিউ এ পর্যাপ্ত পরিমাণ …

বিস্তারিত পড়ুন

হ্রদ পাহাড়ের শহর রাঙামাটি

ঈদের ছুটিতে নিশ্চয়ই বেড়াতে যাবেন কোথাও ? সাগর না পাহাড় ? নাকি অরণ্যভূমি সুন্দরবন ? যদি পাহাড়কে বেছে নেন,তাহলে নিশ্চিন্তে নির্ভাবনায় চলে আসুন রাঙামাটি। হ্রড় পাহাড়ের শহর আপনাকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে। কেন আসবেন রাঙামাটি ? ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের কোথাও এমন কোন শহর কি আছে, যেখানে ৩৫৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের বিশাল হ্রদ ঘিরে রেখেছে সবুজাভ কোন শহরকে ? সুবিশাল সবুজ বিষন্ন পাহাড় …

বিস্তারিত পড়ুন

চলে আসুন এই ছুটিতে অরণ্যসুন্দরী রাঙামাটি

ঈদে নাগরিক জীবন যন্ত্রণার ক্লান্তি দূর করতে পাহাড়ের কোলে বেড়াতে আসতে পারেন। স্নাত হতে পারেন ঝর্ণার বিশুদ্ধ ধারায়। যা আপনাকে এতোদিনের ক্লান্তি, যন্ত্রণা দূর করে স্বস্তি দেবে দুটি দিনের জন্য। ঝরণাধারায় নিজেকে সপে দিয়ে মনের মলিনতা, জীর্ণতা বেদনা ভুলে ঈদের পরের দিনগুলোর জন্য নিজেকে পুনরায় প্রস্তুত করতে পারেন। হ্রদ ও পাহাড়ের বিশালতা দেখে আপনার মনও বিশালতায় ভরে উঠবে। তাই এবারের …

বিস্তারিত পড়ুন

ঝর্ণা-সুরঙ্গের হাতছানিতে ডাকছে মুগ্ধতার খাগড়াছড়ি

পাহাড় আছে, আছে সবুজের সমারোহ । চাইলে উপভোগ করতে পারেন ঝরণার শীতল অনুভূতিও। মনে রং লাগানোর সব উপকরণ যেন বিধাতা দিয়ে দিয়েছেন এখানে। যদি ক্লান্তিময় শরীরে ¯œীগ্ধতার পরশ লাগাতে চান তাহলে ঘুরে আসতে পারেন পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি থেকে। আকাঁ বাকাঁ রাস্তা। ছোট বড় হাজারো পাহাড়। সবুজ বনানী সত্যিই আপনাকে মুগ্ধ করবে। সন্ধ্যার পর ঘর থেকে বের হলেই গায়েঁ লাগছে হিমেল …

বিস্তারিত পড়ুন

বান্দরবানের আকাশে হেলান দিয়ে পাহাড় ঘুমায় ঐ…

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি পার্বত্য জেলা বান্দরবান। এখানে রয়েছে ১১টি পাহাড়ী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ও বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষের বসবাস। ১৯৮১ সালের ১৮ই এপ্রিল বান্দরবান ও লামা দুটি মহকুমার সমন্বয়ে বান্দরবানকে একটি স্বতন্ত্র জেলা ঘোষণা করা হয়। বান্দরবান নাম করণের পিছনে রয়েছে একটি কাহিনীও। প্রবীনদের মুখে শোনা যায় অতীতে বর্তমান জেলা সদরে অসংখ্য বানরে ভরপুর ছিল। বানর গুলো শহরে …

বিস্তারিত পড়ুন

‘কার্পাসমহল’র পথ চলা শুরু হচ্ছে

একসময় পার্বত্য চট্টগ্রামের নাম ছিলো কার্পাসমহল। কালের পরিক্রমায় সে নাম হারিয়েছে ইতিহাসের অতল গহ্বরে,সেই কার্পাস মহল থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম আর পার্বত্য চট্টগ্রাম ভেঙ্গেই আলাদা তিন জেলা রাঙামাটি,খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবান। কিন্তু মানুষের স্মৃতিতে সেই পুরনো জনপদের আখ্যানকে আরো একবার নাড়িয়ে দিতেই যেনো যাত্রা শুরু হচ্ছে নতুন ‘কার্পাসমহল’র। না, এই কার্পাসমহল কোন জনপদ নয়, নয় কোন প্রকাশনাও। এটি রাঙামাটি পর্যটন’র যাত্রা শুরু …

বিস্তারিত পড়ুন

রাইন্যা টুগুন ইকো রিসোর্ট : প্রকৃতির নির্মলতায় প্রাণের শুদ্ধতা

রাইন্যা টুগুন ইকো রিসোর্ট একটি বেসরকারী উদ্যোগে স্থাপিত প্রথম রিসোর্ট যা সামাজিক ব্যবসায় ধারনার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত। এই রিসোর্ট থেকে প্রাপ্ত আয় এর একটি নিদিষ্ট অংশ উন্নয়ন সংস্থা সাস’র তহবিলে যুক্ত হবে এবং তা সমাজ উন্নয়নে ব্যয় হবে। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশ সমৃদ্ধ এলাকায় গড়ে উঠা এ রিসোর্টটি গড়ে তোলার পিছনে অন্য যে ধারণা/বিশ্বাস গতিদায়কের ভূমিকা পালন করেছে সেটি হল …

বিস্তারিত পড়ুন