নীড় পাতা » ফিচার » খোলা জানালা (পাতা 10)

খোলা জানালা

রাঙামাটিতে মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে বিরোধীতা কেন ?

অবশেষে পাহাড়ের মানুষ বহুল প্রতীক্ষিত একটি ঘোষনার বাস্তবায়নের আলো দেখতে পেয়েছে। সম্প্রতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে রাঙ্গামাটি মেডিকেলে কলেজে এই শিক্ষাবর্ষ থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করার ঘোষণা ও সংশ্লিষ্ট বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ২০০০ সালে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার রাঙামাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলেও, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) বিরোধীতার মুখে তা এতদিনেও আলোর মুখ …

বিস্তারিত পড়ুন

পাহাড়ে সেগুন বিপ্লব বনাম পানি, এবং ভবিষ্যৎ জনজীবন

মানুষ বাঁচার জন্য দরকার অর্থ উপার্জনের কোন উপায় বা কর্মপন্থা। ঠিক তেমনি পাহাড়বাসি বেঁচে থাকার তাগিদে যুগ যুগ ধরে প্রজন্ম হতে প্রজন্মব্যাপী গতানুগতিক একই কর্মপন্থায় জীবিকা নির্বাহ করে আসলেও অর্থনৈতিক বিপ্লবে আমূল কোন পরিবর্তন আসেনি। দীর্ঘ জীবন চলছে দীন-দরিদ্রাবস্থায়। সেখানে ছিলনা যোগাযোগ বা যাতায়াত ব্যবস্থা। ফলে ছিল না বিদ্যুৎ এমনকি কোন ব্যবসা বাণিজ্যও। ঠিক সে মুহুর্তে বাংলাদেশ বন বিভাগের দক্ষিণ …

বিস্তারিত পড়ুন

আসুন পাহাড়ে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে জনমত তৈরি করি

বাংলাদেশের অধিকাংশ পুরনো জেলায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ স্থাপিত হলেও তিন পার্বত্য জেলায় এখনো তা হয়ে উঠেনি। ১৯৯৭ সালে পার্বত্যচুক্তি সম্পাদনের পর তৎকালীন সরকারের পক্ষ থেকে ‘রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান বিনির্মাণে বেশ কিছুদূর অগ্রগতি হয়েছিলো। বিশ্ববিদ্যালয়টির জন্য ভূমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবীণতম অধ্যাপক সিকান্দার খানকে নিয়োগ করা হয়েছিলো প্রকল্প পরিচালক। কিন্তু …

বিস্তারিত পড়ুন

জাতীয় বাজেটে পার্বত্যাঞ্চলের মানুষের প্রবেশাধিকার এবং জনপ্রতিনিধি-নাগরিক সমাজ ও এনজিওর ভূমিকা

প্রতি বছরের জুন মাস এলেই আমাদের দেশে অর্থনৈতিক নিয়ম অনুযায়ী বাজেট প্রনয়ণের প্রক্রিয়া শুরু হয়। সমতলের মানুষ, নানাভাবে-নানা মাধ্যমে বাজেটের বিষয়ে ছিটেফোঁটা ধারণা লাভ করতে পারেন। পাহাড়ের মানুষ বরাবরই বঞ্চিত থাকেন সে সুযোগ থেকে। এই ‘ডিজিটাল’ বাংলাদেশের আমলেও সে পরিস্থিতির খুব একটা পরিবর্তন ঘটেছে বলে আমাদের মনে হয়না। অথবা তথ্য অধিকার আইনের মতো জবরদস্ত একটি ভালো আইন হবার পরও পার্বত্যবাসী …

বিস্তারিত পড়ুন

রাজনৈতিক বিতর্কে যেনো মিইয়ে না যায় পাহাড়ের প্রত্যাশিত শিক্ষা উন্নয়ন

বছরের পর বছর, যুগের পর যুগ; রাজনৈতিক বিতর্ক আর সংঘাতের এক লীলাভূমি হয়ে আছে যেনো, পার্বত্য চট্টগ্রাম। এখানকার ভূ-রাজনৈতিক ও জন-নিরাপত্তা, প্রাকৃতিক ও খনিজ সম্পদ, ক্ষমতা কাঠামোর কর্তৃত্ব, পর্যটন এবং সরকারী- বেসরকারী (এনজিও) উন্নয়ন নিয়ে বির্তকের শেষ নেই। জবাবদিহিতার ঘাটতি আর বিচারহীনতার সংস্কৃতির সুযোগে এই জনপর কিছু রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিরা রীতিমতো ‘ফ্রাংকেনষ্টাইন’-এ পরিণত হয়েছেন। তার ওপর অবৈধ অস্ত্র, টেন্ডারবাজি …

বিস্তারিত পড়ুন

মূল্যবান (!) সেগুনের কাছে মূল্যহীন প্রকৃতি ও পরিবেশ !

সেগুন গাছ পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষের কাছে অতি মূল্যবান। এই গাছ বিক্রি করে পাহাড়ি জোত মালিকরা কেউ কেউ লাখপতি হয়েছেন আবার এই গাছের ব্যবসা করে পাহাড়ি ও বাঙালি উভয় সম্প্রদায়ের অনেকে কোটিপতি হয়েছেন। এই গাছের বিক্রি ও ব্যবসায়ে মোটা অংকের টাকা আয় হওয়ায় অধিকাংশ পাহাড়ি এখন সেগুন চাষের দিকে ঝুঁকেছে আগের যেকোন সময় থেকেই এখন বেশি মাত্রায়। প্রায় প্রতিটি পাহাড়ির বাড়ির …

বিস্তারিত পড়ুন

আমার অস্তিত্ব আমিই ধ্বংস করছি !

রাঙামাটি থেকে বাসে যাচ্ছি বাঘাইছড়ি। কুতুকছড়ি পাড় হতে পারলাম না, দুপাশেই পাহাড় যেন মাথা উচু করে দাড়াঁতে লাগলো। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যেঘেরা পার্বত্যাঞ্চল খুবই সুন্দর। জানালার পাশে আমি। দৃশ্য দেখছি আর ক্যামেরাবন্দী করছি। সময়ের সাথে গাড়িও যাচ্ছে সামনের দিকে। কখনো ধানের জমি, কখনো পাহাড়। সামনে যাচ্ছি… নতুন নতুন রঙের পাহাড় মানে ? রাঙামাটিতে এসব বিভিন্ন রঙের পাহাড় আসবে কোথা থেকে। ভাবছেন এসব …

বিস্তারিত পড়ুন

শৈলেন দে : মিলিয়ে গেছে যে নক্ষত্র

চন্দ্রালোকের স্নিগ্ধতা যখন কোনো মানুষ কে মুগ্ধ করে; তখন তার এ কথা ভাববার অবকাশ থাকেনা যে, চাঁদের নিজস্ব কোনো আলো নেই। জোৎস্নার স্নিগ্ধ আলোয় অবগাহন করে মানুষ দুঃখ ভুলে যায়; ক্ষণিকের জন্য হলেও ইট-পাথরের সমাজ কাঠামো, জীবনের চাপ আর স্বার্থপরতার অনেক কিছু ভুলে গিয়ে নির্মলানন্দে ভাবুক হয়ে উঠে। গত কয়েকদিনের তাপদাহে অতিষ্ট যন্ত্রমানুষদের মধ্যে যারা সন্ধ্যার আঁধারে বা রাতের কোনো …

বিস্তারিত পড়ুন

অথচ থেমে গেছে শৈলেন’র পথচলা

শৈলেন দে। দুটি শব্দ-একটি নাম। পাহাড়ে সংবাদ পত্র জগতে এই নামের পরিচয় একেবারে কম নয়। আমার প্রিয় বন্ধু-তারুণ্য-যৌবনের উচ্ছল আনন্দের স্মৃতিগাথা স্বজন। দুজনে কতদিন কাটিয়েছি নির্ঘূম রাত, বয়ে গেছে সময়। আলোর সন্ধানে ছিলাম। শান্তি-স্বস্তির সৈনিক ছিল শৈলন। আমি চৌধুরী আতাউর রহমান রানা-বন্ধু শৈলেন দে- তাওফিক হোসেন কবীর। উদ্যমী তারুন্য শক্তি। আজ আমি রানা আছি, তাওফিক আছে জীবন্ত সরব। কিন্তু শৈলেন …

বিস্তারিত পড়ুন

ওপারেও সদানন্দ থাকুন শৈলেন দা

পার্বত্য চট্টগ্রামের সংবাদ মাধ্যমে আমার নিযুক্তি পাবার দিন থেকেই শৈলেন দা’র লেখার সাথে আমার পরিচয়পর্ব। মুখোমুখি দেখা হয়েছে আরো ক’দিন পর। ‘বাংলার বাণী’ পত্রিকায় আন্তর্জাতিক বিষয়ে নিয়মিত কলাম লেখা, দৈনিক ইত্তেফাক, সংবাদ, বাংলার বাণীসহ সংবাদ সাময়িকীগুলোতে গল্প-ছড়া, প্রবন্ধ লেখায় সম্পৃক্ত থাকলেও পার্বত্য চট্টগ্রাম পরিস্থিতিকে কাছ থেকে জানার প্রত্যাশায় পদ খালি না থাকায় ‘দৈনিক গিরিদর্পণ’-এ নিযুক্তি নিই সংশোধনী বিভাগের একজন কনিষ্ঠ …

বিস্তারিত পড়ুন