নীড় পাতা » ব্রেকিং » মাঝেরবস্তিবাসির রঙিন শোভাযাত্রা

মাঝেরবস্তিবাসির রঙিন শোভাযাত্রা

mazerbasti-rallyবাংলা নববর্ষ উপলক্ষে মাঝেরবস্তিবাসীর উদ্যোগে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও রাঙামাটি শহরে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, পান্তাভাত উৎসব, ব্যান্ড শো’র অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে পৌরসভা প্রাঙ্গণে শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য স্মৃতি বিকাশ ত্রিপুরা। এতে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য অমিত চাকমা রাজু, চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক মনসুর আলীসহ অন্যান্য রাজনীতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ।

শুক্রবার সকালে শোভাযাত্রা রাঙামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে মাঝেরবস্তির শাহ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রাটিতে শহরের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সমাগম ঘটে। শোভাযাত্রা শেষে সংক্ষিপ্ত সভায় উপস্থিত অতিথিরা বক্তব্যে সকলকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। শোভাযাত্রাতে যেমন খুশি তেমন সাজো প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। যেমন খুশি তেমন সাজো অনুষ্ঠানটিতে সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন বিষয় বিশেষভাবে প্রাধান্য পায়। তা ছাড়া কিছু প্রতিযোগী এদেশের খেঁটে খাওয়া মানুষের সংগ্রামবহুল জীবিকার্জনের বিষয়টিও নিপুণভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন। অংশগ্রহণকারীরা সকলেই বাংলার ঐতিহ্যবাহী পোশাক-আশাকে সজ্জিত হয়ে বিভিন্ন রকমের ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড, ব্যানার ও মুখোশ পরে পদযাত্রার মাধ্যমে শাহ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসে জড়ো হয়। সভার শেষে যেমন খুশি তেমন সাজো অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এরপর বাঙালির বাঙালিআনার পরিচয় পান্তা-ইলিশ বিতরণ করা হয়। এরপর সন্ধ্যার পর থেকে রাঙামাটির তারুণ্যের ঢল নামে মাঝেরবস্তির ঐতিহ্যবাহী সেই ব্যান্ড শো। ব্যান্ড শো’তে চট্টগ্রামের  ব্যান্ড দল ‘আরিফ এন্ড অধ্যায়’ সঙ্গীত পরিবেশন করে। বিপুল সংখ্যক মানুষ আসেন এই ব্যান্ড শো দেখতে।

শোভাযাত্রা ও ব্যান্ড শো আয়োজক কমিটির নেতৃবৃন্দ সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, মাঝেরবস্তির তরুণ-যুবকদের উদ্যোগে ১৪০১ বঙ্গাব্দ হতে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠানটি সকলের সহযোগিতা ও ভালোবাসায় আজ ২৩ বছরে পদার্পণ করলো। র‌্যালি ও ব্যান্ড শো উদযাপন উপলক্ষে সার্বিকভাবে সহায়তাকারী বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানান।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্য বিভাগকে সুরক্ষা সামগ্রী দিলো রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট

নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রাঙামাটির ১২টি সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রসমূহে স্বাস্থ্য …

Leave a Reply