নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » বীরের মুখে বীরত্বের গল্প

বীরের মুখে বীরত্বের গল্প

ronobikromনতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধর ইতিহাস পৌঁছে দিতে এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে নিজেকে একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনালেন রণাঙ্গণের বীর মুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা। তিনি বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধকে জানতে হবে, অন্যকে জানাতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে লালন করে নিজের জীবন গড়তে হবে।

মহান স্বাধীনতার মাসকে সামনে রেখে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মাসব্যাপী ‘বীরের কন্ঠে বীরত্বগাঁথা’ কমৃসুচীর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙ্গা মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রনাঙ্গণের বীর মুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা এসব কথা বলেন।

বিদ্যালয়ের কযেক‘শ শিক্ষার্থীর সামনে তিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের ঘটনা তুলে ধুরে বলেন, যেকোন যুদ্ধকেই ঘৃণা করতে হবে, আমিও যুদ্ধকে ঘৃণা করি। আমাদের ওপর যুদ্ধ চাপিয়ে দিয়েছিল পাকিস্তানিরা। আর তাই সেদিন স্বাধীনতার সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল এদেশের মুক্তিকামী মানুষ।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান‘র সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: মনছুর আলী, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো: শামছুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আবুল কাশেম, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো: আলাউদ্দিন লিটন, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিযন পরিষদ চেযারম্যঅন হিরনজয় ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো: নুরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা শিক্ষার্থীদেরকে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ ও মুক্তিযুদ্ধকালীন অভিজ্ঞতার বর্ণনা দেন। তিনি খাগড়াছড়ির বিভিন্ন উপজেলায় সংগঠিত মুক্তিযুদ্ধের বর্ণনা তুলে ধরেন ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের সামনে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা তাদের অভিব্যাক্তিতে বলে, আমরা শুধু বইয়ে, চলচিত্রে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জেনেছি। আজকে আমাদের দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ, অভিজ্ঞতার গল্প শুনে নতুন কিছু জানলাম। নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করলাম। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নিজেকে গড়ে তোলার নতুন পথ খুঁজে পেলাম।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্য বিভাগকে সুরক্ষা সামগ্রী দিলো রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট

নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রাঙামাটির ১২টি সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রসমূহে স্বাস্থ্য …

Leave a Reply