নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » ৭৫ হাজার পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ

সাজেক ও খাগড়াছড়িতে

৭৫ হাজার পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ

এ সময়ের জনপ্রিয় পর্যটন স্পট সাজেক। দিন দিন এখানে বাড়ছে পর্যটকদের উপস্থিতি। সাথে বাড়ছে ময়লার স্তূপ। পর্যটকদের ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বোতল, পলেথিনসহ নানা উচ্ছিষ্ট বর্জ্যে সৌন্দর্য্য ম্লান হচ্ছে সাজেকের। সেখানে নেই কোনো নির্দিষ্ট ডাস্টবিন। যার কারণে যত্রতভাবে ফেলা হয় ময়লা। এটি সচেতনতার অভাব হিসেবে দেখছেন স্থানীয়রা।

এবার সাজেক থেকে পর্যটকদের ব্যবহৃত প্রায় ৫০ হাজার পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ করেছে বিডি ক্লিন-খাগড়াছড়ি। সংগঠনটির সদস্যরা টানা ১০ দিন সাজেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অংশ হিসেবে পরিত্যক্ত বোতলগুলো সংগ্রহ করেন। শুধু তাই নয় খাগড়াছড়ির পর্যটনী স্পট আলুটিলাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্পটে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভিযান চালিয়ে সংগ্রহ করেছে আরও ২৫ হাজার পরিত্যক্ত বোতল।

সারাদেশের মত খাগড়াছড়িতেও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করছে বিডি ক্লিন-খাগড়াছড়ির সদস্যরা। তারই অংশ হিসেবে সাজেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ইভেন্ট করে। সদস্যরা জানান, সাজেক যাওয়ার পথে রাস্তার দু’দিকে গাড়ি থেকে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছে প্লাস্টিকের বোতল। এ আকৃতির সাজেক পাহাড়ের দুদিকে সবুজ গাছপালার উপরে, আশপাশে পরিত্যক্ত বোতল, পলেথিনে ভরে গেছে। প্রায় কটেজের নিচে বোতল, পলেথিনে ফেলা হয়েছে।

অপরদিকে খাগড়াছড়ির আলুটিলাসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ফেলা হচ্ছে এসব বর্জ্য। যা পরিবেশের জন্য হুমকি। মূলত অব্যবস্থাপনা ও সচেতনতার অভাবের কারণে এমনটা হচ্ছে বলে জানান তারা।

বিডি ক্লিন- খাগড়াছড়ির সমন্নয়ক মো. শাহাদাৎ হোসেন কায়েশ বলেন, আমরা সাজেক ও খাগড়াছড়িতে বেশ কয়েকটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ইভেন্ট করে প্রায় ৭৫ হাজার পরিত্যক্ত বোতল সংগ্রহ করেছি। সবচেয়ে বেশি সংগ্রহ করেছি সাজেক থেকে। সাজেক যাওয়ার পথেও পর্যটকরা যেখানে সেখানে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বোতল, পলেথিন ফেলেছেন। সাজেকে প্রত্যেকটি কটেজ, পাহাড়ের দু’দিকে ময়লা আবর্জনা ফেলা হয়েছে। এরমধ্যে অধিকাংশ অপচনযোগ্য। এতে করে পর্যটন স্পটটি নিজের সৌন্দর্য্য হারাচ্ছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

এদিকে এসব পরিত্যক্ত বোতল দিয়ে সোপিস তৈরি করে প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে সংগঠনটি। মঙ্গলবার সকালে খাগড়াছড়ি কদমতলী এলাকায় শুরু হয়েছে দুদিন ব্যাপি এই প্রদর্শনী। মূলত স্থানীয়দের সচেতন করতে এমন ভীন্নধর্মী উদ্যোগ নিয়েছে সংগঠনটি। প্রদর্শনীতে দেখা যায় নানান রঙের পরিত্যক্ত বোতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে বাংলাদেশের মানচিত্র। যা উপস্থিত সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। বোতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে কলমদানি, ফুলের টপ, ডাস্টবিনসহ আরো নানা রকম সোপিস। এছাড়াও প্রদর্শনীতে বোতলকে রিসাইক্লিং করে কিভাবে তেল, গ্যাস উৎপাদন করা যায় সেটির প্রতীকি প্রদর্শনী দেখানো হয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

গাছকাটা মামলায় কাপ্তাই যুবলীগ সভাপতির ৩ বছরের কারাদণ্ড

বন বিভাগের দায়ের করা মামলায় রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাসির উদ্দিনকে কারাগারে …

Leave a Reply