নীড় পাতা » ব্রেকিং » ৩০০ শিক্ষার্থীর কাঁধে শুভেচ্ছার স্কুলব্যাগ

৩০০ শিক্ষার্থীর কাঁধে শুভেচ্ছার স্কুলব্যাগ

schholbag‘সত্যিকারের মানুষ হতে হলে,দেশের ইতিহাস জানতে হবে,দেশকে ভালোবাসতে হবে,মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হওয়া বীরশ্রেষ্ঠ ও মুক্তিযোদ্ধাদের জীবনের গল্প জানতে হবে এবং অবশ্যই স্বদেশী পণ্য ব্যবহার করতে হবে। তবেই একজন ভালো মানুষ ও ভালো নাগরিক হওয়া সম্ভব হবে।’

বুধবার রাঙামাটি শহরের দক্ষিন বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩০০ শিক্ষার্থীকে জেলা প্রশাসনের নিজস্ব অর্থায়নে স্কুল ব্যাগ বিতরণকালে এসব কথা বলেছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন।

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মোস্তফা জামান,সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামাল হোসেন,নেজারত ডেপুটি কালেক্টর(এনডিসি) নাজমুল ইসলাম রাজু,সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার ত্রিরতন চাকমা,স্কুলের প্রধান শিক্ষক মিকা চাকমা। স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথিরা ছাড়াও আরো বক্তব্য রাখেন স্কুল পরিচালনা কমিটির সহসভাপতি ও দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম সম্পাদক ফজলে এলাহী। এছাড়াও ৪ নং ওয়ার্ডে নব নির্বাচিত কাউন্সিলর মিজানুর রহমান বাবু,ক্রিকেট কোট আব্দুল করিম লালুসহ স্কুল পরিচালনা কমিটির ছাবের আহম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।schoolbag-02

জেলা প্রশাসক বলেন, তোমাদের হাতে স্কুল ব্যাগ তুলে দিতে পেরে আমি ব্যক্তিগতভাবে যেমন খুশি,তেমনি জেলা প্রশাসক হিসেবেও গর্ববোধ করছি। আমি এর আগে দুর্গম এলাকার স্কুলে ইজ্ঞিন বোট ও নৌকা প্রদান করেছি,অন্যান্য স্কুলেও স্কুলব্যাগ দিয়েছি। এটা আমাদের নিয়মিত কাজের পাশাপাশি এক ধরণের সামাজিক দায়িত্ব। আমাদের মতো করে সমাজের সব বিত্তবান লোকও যদি এগিয়ে আসে তবে দেশ এগিয়ে যাবে,শিক্ষার্থীরা ছোট্ট এই উপহার পেয়েও মুগ্ধ হবে,উৎসাহিত হবে।

রাঙামাটিতে শহীদ হওয়া বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ এবং শহীদ আব্দুল আলীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে,তাদের কর্মময় জীবনের স্মৃতিচারণ করে জেলা প্রশাসক বলেন,রাঙামাটিতে এমন গুরুত্বপূর্ণ এই দুইজন মানুষ দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন,এটা আমাদের সবার জানা উচিত,এই ইতিহাস সম্পর্কে অবশ্যই রাঙামাটির প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অবহিত করতে হবে,এদের দেশপ্রেমের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে হবে,তবেই শিক্ষার্থীদের দেশের প্রতি,মুক্তিযুদ্ধের প্রতি,শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা বাড়বে।schoobag-03

তিনি স্কুলের শিক্ষার্থীদের ব্যাগ প্রদান প্রসঙ্গে বলেন,আমরা যে ব্যাগটি শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিচ্ছি,সেটি রাঙামাটিতে স্থানীয়ভাবেই নির্মিত,এই ব্যাগটি প্রদান করে আমরা একদিকে স্কুলের শিক্ষার্থীদের যেমন সহযোগিতা করছি,তেমনি আবার যারা ব্যাগটি প্রস্তুত করছে,তাদেরও পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করছি। এর মাধ্যমে রাঙামাটির হস্তশিল্পও বিকশিত হবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানে স্কুল পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে স্কুলের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ,স্কুলের নাম পরিবর্তন এবং স্কুলের পেছনের জায়গা বেদখল হওয়ার বিষয়ে জেলা প্রশাসকের সহায়তা কামনা করা হলে জেলা প্রশাসক এই সমস্যাগুলো সমাধানে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply