নীড় পাতা » ব্রেকিং » ২২১৬ শিক্ষার্থীকে ২ কোটি টাকা বৃত্তি দিল উন্নয়ন বোর্ড

২২১৬ শিক্ষার্থীকে ২ কোটি টাকা বৃত্তি দিল উন্নয়ন বোর্ড

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়স্থ মাইনী মিলনায়তনে প্রতি বছরের ন্যায় ২০১৯-২০২০ অথর্ বছরেও রাঙামাটি পার্বত্য জেলার নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ করা হয়েছে। শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নূরুল আলম নিজামী (অতিরিক্ত সচিব)। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড সদস্য (পরিকল্পনা) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী (উপসচিব)।

২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে শিক্ষা বৃত্তিরজন্য তিন পার্বত্য জেলার মোট ৭০৬৬জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছে। প্রাপ্ত সকল আবেদন অনলাইনের অটোমেশন পদ্ধতিতে সফটওয়্যারের মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করে তিন পার্বত্য জেলার মোট ২২১৬ জনকে মেধাবি, গরীব ও অনগ্রসর শিক্ষার্থীকে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করা হয়। তম্মধ্যে কলেজ পর্যায়ের মোট ১১০৪ জন এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ১২১২জন। নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে রাঙামাটি পার্বত্য জেলার কলেজ পর্যায়ের ৩৩৬জন এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৪০০জনসহ মোট ৭৩৬জন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার কলেজ পর্যায়ের ৩৫০ জন এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৪২০জনসহ মোট ৭৭০জন এবং বান্দরবান পার্বত্য জেলার কলেজ পর্যায়ের ৩১৮জন ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৩৯২জনসহ মোট ৭১০জন। কলেজ পর্যায়ের প্রত্যেককে এককালীন ৭০০০ টাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের এককালীন ১০০০০ টাকা করে শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ করা হয়।

শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বোর্ডের সদস্য পরিকল্পনা ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ, পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবীর। কলেজ পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষে অনুভূতি ব্যক্ত করেন পরান ধন চাকমা, তাসনিম বিন মাহফুজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষে ম্রাচিং মারমা প্রমুখ।

প্রধান অতিথি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, পার্বত্য অঞ্চল দেশের অন্যান্য এলাকার চেয়েশিক্ষা দীক্ষায়, আর্থ-সামাজিক, যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন দিয়ে পিছিয়ে। এ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ও পার্বত্য জনপদকে মূলধারায় সম্পৃক্তকরণের লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পার্বত্য চট্টগ্রাম সফরকালে এ অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড গঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নের পাশাপাশি পার্বত্য এলাকার শিক্ষা উন্নয়নের ক্ষেত্রেও বিরাট ভূমিকা রেখেছে। তারই ক্ষুদ্র প্রয়াস আজকের শিক্ষা বৃত্তি বিতরণ। তিনি আরো বলেন, উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে শোষণমুক্ত ও বৈষম্যহীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত করতে শিক্ষার্থীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আর পড়াশুনা যেন কারো জীবনের সার্টিফিকেটভিত্তিক শিক্ষা গ্রহণ না হয় সে বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে বলে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে উপদেশমূলক পরামর্শ প্রদান করেন।

ইতোমধ্যে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার নির্বাচিত শিক্ষাথীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমে বান্দরবান পার্বত্য জেলার নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে শীঘ্রই শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ করা হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিবর্ণ পাহাড়ের রঙিন সাংগ্রাই

নভেল করোনাভাইরাসের আগের বছরগুলোতে এই সময় উৎসবে রঙিন থাকতো পাহাড়ি তিন জেলা। এই দিন পাহাড়ে …

Leave a Reply