নীড় পাতা » ব্রেকিং » হাসপাতাল এলাকার সড়কের বেহাল দশা

হাসপাতাল এলাকার সড়কের বেহাল দশা

রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল সড়কেরর বিভিন্ন অংশে খানাখন্দে ভরে গেছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে স্থানীয় বাসিন্দাসহ চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরাও। শহরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক হাসপাতাল এলাকার সড়ক দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য রোগী এ পথ দিয়ে হাসপাতালে যায়। ঠিক তেমনই এলাকাটিতে বসবাসকারী সবাই এ সড়কটি ব্যবহার করে।

বুধবার বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পোস্ট অফিসের পাশ ধরে হাসপাতাল যাওয়ায় সড়কটি করে অল্প কিছুদির যাবার পর উঠার পথেই বেশ কিছু বড়বড় খানাখন্দ দেখা আছে। যে কোনো গাড়ি এ খানাখন্দ দিয়ে সহজভাবে চলাচল করতে পারে না। বিশেষ করে অসুস্থ রোগীদের বেশী সমস্যা হচ্ছে রাস্তায় খানাখন্দ থাকায়। গাড়ির ঝাঁকুনিও সহ্য করতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা বেনু দত্ত বলেন, এ রাস্তাটার বেহাল দশায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় সবাইকে। বিশেষ করে উঠতি সড়কে এমন খানাখন্দ দুর্ভোগ বাড়িয়েছে আরও বহুগুন। মামুন মিন্টু নামের আরেক বলেন, এলাকাবাসীসহ চিকিৎসা নিতে আসা সকলেই খুব ভোগান্তিতে আছেন। দ্রুত সংস্কার করা হউক সড়কটি। সড়কটি রাঙামাটির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

হাসপাতালে রোগী নিয়ে আসা মানস চাকমা বলেন, সড়কের ভাঙা অংশটিতে যখন গাড়ি যায় ঝাঁকুনিতে তা সহ্য করা কঠিন হয়ে পড়ে। আমি গর্ভবতী রোগী নিয়ে হাসপাতাল যেতে ভাঙা অংশে রোগীকে নামিয়ে দিয়ে পরে ভাঙা অংশটি পার হয়ে আবার গাড়িতে করে নিয়ে যাই।

এ বিষয়ে রাঙামাটি পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল হোসেন টিটু বলেন, ‘হাসপাতালের ভাঙা সড়কটি আমাদের নলেজে আছে। আমরা বেশ কয়েকবার সেটি নিয়ে আলোচনাও করেছি। আমাদের পৌরসভায় এই মুহুর্তে কোথায়ও কার্পেটিংয়ের কাজ হচ্ছে না। তাই এটি করতে পারছি না যেহেতু কাজটি ছোট। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে রিজার্ভবাজার সড়কে কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু হবে। তখনই এ সড়কটিও কার্পেটিং করে দিব।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জনপ্রিয় হচ্ছে ‘তৈলাফাং’ ঝর্ণা

করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল খাগড়াছড়ির পর্যটন ও বিনোদনকেন্দ্র। তবে টানা বন্ধের পর এখন খুলেছে …

Leave a Reply