নীড় পাতা » ফিচার » অরণ্যসুন্দরী » হরতালে হরতালে বিবর্ণ পাহাড়ের পর্যটন

হরতালে হরতালে বিবর্ণ পাহাড়ের পর্যটন

Parzatanহ্রদ-পাহাড়-ঝর্ণার অপূর্ব মিশেলে নয়নাভিরাম পর্যটন শহর রাঙামাটি। সারাবছই পর্যটকের উপস্থিতিতে মুখর থাকা এই শহরে শীত মৌসুমেই পর্যটককের আগমন থাকে সবচে বেশি। কিন্তু পরিবার পরিজন নিয়ে বেড়ানোর ইচ্ছা থাকলেও বেড়ানোর সে আনন্দই ম্লান করে দিয়েছে ১৮ দলীয় জোটের একের পর এক টানা হরতাল। হরতালের কারণে শহরের হোটেল মোটেলের সব বুকিং বাতিল হয়ে গেছে। শীতের পর্যটন মৌসুম নিয়ে চরম হতাশায় ভুগছেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীর। রাঙামাটির স্থানীয় ব্যবসায়িরা ব্যবসার ভাল ফল আশা করলেও কিন্তু এবার সেই যাত্রায় বাঁধ সেধেছে ‘অপ্রিয় হরতাল’ আর ‘দুষ্টু রাজনীতি’। রাজনৈতিক অস্থিরতা ও হরতালের কারণে পর্যটকরা বেড়ানো থেকেই বিরত রয়েছেন।
রাঙামাটির আবাসিক হোটেলগুলোর অর্ধেকেরও বেশি রুম অগ্রিম বুকিং হওয়ার পরও ১৮ দলীয় জোটের ডাকা টানা ৮৪ ঘন্টা হরতালের কারনে বুকিং বাতিল হওয়ায় বিপাকে পড়েছে রাঙামাটির পর্যটন শিল্প। ফলে এই শীত মৌসুমে কার্যত পর্যটকশূণ্য থাকছে পার্বত্য রাঙামাটি। এনিয়ে হতাশ স্থানীয় পর্যটন শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্টদের। প্রতিবছর শীত মৌসুমে পর্যটকের ভীড়ে মুখরিত থাকে পার্বত্য জনপদ রাঙামাটি। কিন্তু বর্তমানে রাঙামাটিতে পর্যটক নেই বললেই চলে। যেখানে প্রতিদিন সকাল-বিকেল পর্যটকের পদচারনা থাকে এই শহরে। দেশের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে রাঙামাটি পর্যটনে পর্যটকের দেখা নেই।
অথচ বছরের এসময় পর্যটকের পদভারে মুখর থাকে পুরো শহর। মোটেল মোটেল কোথাও থাকেনা তিল ধারণের ঠাঁই। এবছরও তাই ছিলো আগাম প্রস্তুতি আর বুকিং। কিন্তু হরতালে হরতালে ভেস্তে গেছে পুরো প্রস্তুতি।
রাঙমাটি শহরের বনরূপার আবাসিক হোটেল নীডস হিল ভিউ এর ব্যবস্থাপক মো: শাহ আলম বলেন,খুবই খারাপ অবস্থার মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে। কোন বোর্ডার নেই,বুকিং নাই । যা ছিলো তাও বাতিল হয়ে গেছে।
হাটেল গ্রীন ক্যাসেল এর ম্যানেজার চন্দন দে জানান, পার্বত্যাঞ্চলের রাণী রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের স্বচ্ছ জলের সাথে পাহাড়ের হৃদ্যতা দেখে অনেকে অভিভূত। কিন্তু টানা হরতালে বিপর্যস্ত হতে চলেছে পাহাড়ের রাজস্ব আয়ের অন্যতম মাধ্যম পর্যটন খাত। হরতালের কারনে আমাদের সব বুকিং বাতিল হয়ে গেছে।
কাপ্তাই হ্রদে চলাচলকারি টুরিস্টবোট পরিচালনাকারি রাইহান চৌধুরী রানা জানিয়েছেন,হরতালের কারনে পর্যটক না থাকায় টুরিস্ট বোটগুলো অলসভাবে বসে আছে। হরতালের কারণে পর্যটকরা আসছে না।

পর্যটকদের আকর্ষনের অন্যতম কেন্দ্র কাপ্তাই হ্রদের নৌযান চালকরাও হতাশ পর্যটক না আসায়। পর্যটন ঘাটের বোট ইজারাদার জালাল আহম্মেদ বলেন,দেশের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে পর্যটক আসছে না। পর্যটক না আসলে আমাদের কোনো আয় হয় না।

রাঙামাটি পর্যটন কমপ্লেক্স এর ম্যানেজার আখলাকুর রহমান বলেন,হরতাল ও সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে বছরের এই সময়ে পর্যটকের আগমন নেই। আমাদের পর্যটন কমপ্লেক্সের হরতালের কারনে তারিখের যে বুকিং ছিলো তা সব বাতিল হয়ে গেছে। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটকরা আবারো আসবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
রাঙামাটির পর্যটন ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা,রাজনৈতিক হানাহানি বন্ধ করলেই কেবল বিকশিত হতে পারে দেশের পর্যটন শিল্প। পর্যটন ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরাও রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে হরতাল প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বাঘাইছড়িতে এমএনলারমাপন্থী পিসিপি নেতা খুন

রাঙামাাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএনলারমা) সহযোগী ছাত্রসংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের …

Leave a Reply

%d bloggers like this: