নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » হত্যা না আত্মহত্যা ?

হত্যা না আত্মহত্যা ?

bandarban_sadarবান্দরবানে এক ফেরিওয়ালার মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন থাকার পরও পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, এটি বিষপানে আত্মহত্যার ঘটনা। তবে নিহতের স্ত্রী রুমা বেগমসহ পরিবারের দাবী, পিটিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে বিষ মিশিয়ে মদ পান করানোর পর হত্যা করা হয়েছে তাকে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার সদর উপজেলার বাঘমারা পাহাড়ের খাদ থেকে সেনাবাহিনীর সহায়তায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় শুক্রবার সকালে ফেরিওয়ালা আয়নাল হোসেন (৫২)’কে উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঐদিন দুপুরে বারোটার সময় ফেরিওয়ালা’র মৃত্যু হয়। নিহত ফেরিওয়ালার বাড়ি জেলা সদরের লাঙ্গীপাড়া এলাকায়।
সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ অংসুই প্রু মারমা বিষ পানের কাহিনী নিয়ে ভর্তি হওয়ার রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে বলে রিপোর্ট দিয়েছেন। বান্দরবান সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। মামলা নং-২/২০১৪।
তবে নিহতের স্ত্রী রুমা বেগম জানান, আমার স্বামীর শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে পিটিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে বিষ মিশিয়ে মদ খাওয়ানোর পর পাহাড়ের খাদে ফেলে দেয়া হয়েছে। এটি আত্মহত্যা নয়, আমার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে। স্বামী হত্যার সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন রুমা বেগম।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আমির হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে বিষাক্ত মদ খাওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে বলেই মনে হচ্ছে। তবে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মদের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। লাশের ময়না তদন্ত শেষে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে করোনায় আরও এক নারীর মৃত্যু

রাঙামাটি শহরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ভোররাতে শহরের চম্পকনগর আইসোলেশন …

Leave a Reply