নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত রাস্তার টাকা চেয়ারম্যানের পকেটে !

স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত রাস্তার টাকা চেয়ারম্যানের পকেটে !

diginala-pic-012খাগড়াছড়ির দীঘিনালার তিন নম্বর কবাখালী ইউনিয়নের খালকুল পাড়া গ্রামের স্বেচ্ছাশ্রমে এলাকাবাসী সবাই মিলে রাস্তা নির্মাণ করছেন। আর সেই রাস্তায় কাজের বিনিময়ে খাদ্য(কাবিখা)র প্রকল্প দেখিয়ে ৯ মেট্রিক টন গমের বরাদ্দ নিয়েছেন চেয়ারম্যান। ইতিমধ্যে সাড়ে ৬ মেট্রিক টন গম প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ছাড় করিয়েও নিয়েছেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা(পিআইও)এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করার সত্যতা পেয়েছেন। এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন তাঁরা নিজেদের চলাচলের সুবিধার্থে সবাই মিলে রাস্তাটি নির্মাণ করছেন। প্রকল্পের বরাদ্দ সর্ম্পকে তাঁরা কিছুই জানেন না। তবে স্থানীয় যুবকদের ক্লাবে চেয়ারম্যান বিশ্ব কল্যাণ চাকমা ২০ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছেন।

সরেজমিন পরিদর্শন,এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে ও তথ্যনুসন্ধানে জানা যায়,২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার(কাবিখা)কর্মসূচীর আওতায় প্রথম পর্যায়ে বরাদ্দে তিন নম্বর কবাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্ব কল্যাণ চাকমা ৯ মেট্রিক টন গম বরাদ্দে তারাবুনিয়া ব্রীক সলিং রাস্তা হতে খালকুল পাড়া হয়ে মাইনী নদী পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ ও সংস্কার নামে একটি প্রকল্প নেয়। গত ৭ জানুয়ারি,১৩ জানুয়ারি ও ৩০ জানুয়ারি প্রকল্পের তিন ভাগ বরাদ্দ উত্তোলন করে নিলেও চেয়ারম্যান কোন প্রকল্পের কাজ করেননি।

শনিবার প্রকল্প এলাকা খালকুল পাড়া গ্রামে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বললে তাঁরা জানালেন,এলাকাবাসীর চলাচলের সুবিধার্থে গত একমাস আগে থেকে প্রতি শুক্রবার গ্রামের ৬০ পরিবারের সবাই স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তাটি নির্মাণ করছেন। সরকারি বরাদ্দ সর্ম্পকে তাঁদের জানা নেই। খালকুল পাড়া গ্রামের ঝুনু চাকমা,লাবনী চাকম্,াসুইটি চাকমা,রিকুমনি চাকমা,সুজন চাকমা,শান্তি বিকাশ চাকমা,কৃতি চাকমা,নিগিরা মনি চাকমা ও সপ্তম শ্রেণির ছাত্র এডিশন চাকমা জানান,সরকারি বরাদ্দ সর্ম্পকে আমরা কিছুই জানি না। নিজেদের চলাচলের সুবিধার্থে প্রতি শুক্রবার গ্রামের সবাই মিলে রাস্তা নির্মাণের কাজ করি। রাস্তা নির্মাণের মুল উদ্যোক্তা স্থানীয় যুব সংঘের ছেলেরা। স্থানীয় গ্রাম প্রধান(কার্বারী)গজেন্দ্র কুমার চাকমা,সরকারি বরাদ্দ সর্ম্পকে আমরা কেউ কিছু জানি না। নিজেদের প্রয়োজনে স্বেচ্ছায় রাস্তাটি নির্মাণ করছি। রাস্তা নির্মাণে পারিশ্রমিক আমরা পাইনি। আমরা জানিও না।
খালকুল পাড়া উদন্যা জোদা যুব সমিতির কোষাধ্যক্ষ সুজিতময় চাকমা,সদস্য রুপম চাকমা,রাজেশ চাকমা বলেন,গত একমাস আগে থেকে আমরা যুবকদের উদ্যোগে গ্রামের সবাই রাস্তাটি নির্মাণ করছি। রাস্তাটির নামে সরকারিভাবে ৯ টন গম বরাদ্দের বিষয়ে কিছু জানেন কিনা জানতে চাইলে তাঁরা জানান,সরকারি বরাদ্দ সর্ম্পকে তাঁরা কিছু জানেন না। তবে কবাখালী ইউনিয়ন পরিষদ(ইউপি)চেয়ারম্যান বিশ্ব কল্যাণ চাকমা আমাদের ক্লাবের উন্নয়নের জন্য বিশ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছেন। শুধু এটুকুই জানি।
এ প্রসঙ্গে কবাখালী ইউনিয়ন পরিষদ(ইউপি)চেয়ারম্যান বিশ্ব কল্যাণ চাকমা এলাকার যুব সমাজ রাস্তাটি নির্মাণ করার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,স্থানীয় যুবকদের সাথে কথা বলে তাঁদেরকে টাকা দিয়েছি। ক্লাবে অনুদান হিসেবে মাত্র ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন বলে জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমি প্রতি কিস্তি বরাদ্দ ছাড় করার পর তাঁদেরকে টাকা দিয়েছি। তবে তিনি কত টাকা দিয়েছেন তা জানাতে পারেননি।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা(পিআইও)মোশারফ হোসেন এলাকাবাসী স্বেচ্ছায় রাস্তা নির্মাণের সত্যতা পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন,আমি বরাদ্দে প্রথম কিস্তি ছাড় করার পর সরেজমিন গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি এলাকাবাসী স্বেচ্ছায় রাস্তাটি নির্মাণ করছেন। জানার পরও এরপর দুইটি কিস্তি ছাড় দেয়ার প্রসঙ্গে বলেন,যদি প্রকল্পের কাজ করা না হয় তাহলে আইনগতভাবে চতুর্থ কিস্তি ছাড় দেয়া হবে না। এবং যে তিনটি বরাদ্দ ছাড় দেয়া হয়েছে সেগুলো আইনগতভাবে ডাবল বরাদ্দ সরকারি কোষাগারে ফেরত দিতে হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply