নীড় পাতা » ব্রেকিং » স্কুলে স্কুলে অস্থায়ী শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা শিশু শিক্ষার্থীদের

স্কুলে স্কুলে অস্থায়ী শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা শিশু শিক্ষার্থীদের

কারো হাতে জবা কারো হাতে গাঁদা,কলমী,গোলাপ,ডালিয়া এমনকি কুমড়ো ফুলও, হাতে ফুল নিয়ে খালি পায়ে স্কুল প্রাঙ্গনে জড়ো হয়ে সেখানেই সেই ফুল সমর্পন করছে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধায়,ভালোবাসায়।
এ সময় প্রায় সবার বুকের বাঁ পাশে কালোব্যাচ,পরিপাটি স্কুল পোশাকে সবাই হাজির হওয়ার এমন দৃশ্য লংগদু উপজেলার অধিকাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের । একুশে ফেব্রুয়ারির সকাল বেলা মহান শহীদ দিবসে বায়ান্নের ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে শিশু শিক্ষার্থীদের এমন মিলনমেলা । অধিকাংশ স্কুলে তৈরী করা হয়েছে অস্থায়ী শহীদ মিনার । ফুল,ফেস্টুন হাতে ও বাংলা বর্ণমালা দিয়ে সাজানো বিশাল তোড়া নিয়ে প্রভাতফেরি শেষে অস্থায়ী শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানালো শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ।
একুশে ফেব্রুয়ারী সকালে বেশ কয়েকটি বিদ্যালয় ঘুরে এমন সব আয়োজন দেখা যায়। শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে স্কুল মাঠে দাড়িয়ে শিক্ষকদের বক্তব্য শুনছিলো চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী ফারজানা আক্তার । গাঁথাছড়া আদর্শগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এ শিক্ষার্থীর সাথে কথাবলে জানাযায় ,এবারই প্রথম তাদের স্কুলে এমন আয়োজন করেছে শিক্ষকরা । ভাষা শহীদদের কথা বইতে পড়েছে তবে তাদেরকে শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে যাওয়া হয়নি । আজকে স্কুলের শহীদ মিনারে ফুল দিতে পেরে অনেক ভালো লাগছে তার । শুধু ফারজানাই নয় আরো অনেক শিশু শিক্ষার্থীর এবারই প্রথম শহীদ মিনারে আসা এবং প্রভাতফেরি করা ।
উপজেলার মাইনীমূখ ইউনিয়নের ইসলামাবাদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শামীমা আক্তার বলেন,কারো নির্দেশে নয় শিক্ষকদের নিজেদের উদ্যোগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মান করেছি ।আমাদের মহান ভাষা আন্দোলনের সাথে শিশুদের পরিচয় ঘটাতেই এমন সব আয়োজন ।তবে বিদ্যালয়ে একটি স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা প্রয়োজন । শহীদ মিনার থাকলে সামনে স্বাধিনতা দিবস ও মহান বিজয় দিবসে শিক্ষার্থীরা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে পারবে ।
লংগদু উপজেলার ৯৫ ভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই স্থায়ী শহীদ মিনার নেই । যে কারনে উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানতে পারেনা । শুধুমাত্র পাঠ্য বই পড়েই ভাষা আন্দোলন সর্ম্পকে জানতে পেরেছে শিক্ষার্থীরা । স্থানীয় শিক্ষক,রাজনৈতিক ব্যক্তি ও সমাজের সচেতন মহল সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন, যেন দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয় । যাতে করে আমাদের নতুন প্রজন্ম আমাদের গৌরবময় অর্জন মহান ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতা আন্দোলন এর ইতিহাস জানতে পারবে । দেশপ্রেমের চেতনায় উজ্জেবিত হতে পারবে । তবেই সকল মাতৃভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হবে ।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে দুর্যোগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

রাঙামাটির লংগদুতে উপজেলা পর্যায়ে ‘দুর্যোগবিষয়ক স্থায়ী আদেশাবলী (এসওডি)-২০১৯’ অবহিতকরণ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার লংগদু …

Leave a Reply