নীড় পাতা » ব্রেকিং » সেমিনারে রাঙামাটির অর্থনৈতিক বিপ্লবে নানাবিধ আলোচনা

সেমিনারে রাঙামাটির অর্থনৈতিক বিপ্লবে নানাবিধ আলোচনা

‘সম্পদের অপব্যবহার রোধঃ প্রযুক্তির ব্যবহার’ এই প্রতিপাদ্যে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি) মো. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসন এ সেমিনারের আয়োজন করে। এতে উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা তুজ জোহুরা, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সিএসসি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জুয়েল শিকদায়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা।

রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবিপ্রবি) সিএসসি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জুয়েল শিকদার মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপনকালে বলেন, আগে আমাদের দেশে সনাতন পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হতো, তখন সময় শ্রমের অপচয় হতো। এখন আমাদের প্রযুক্তি ব্যবহারের কারণে আগের সময় আরও বেশি কাজ করা সম্ভব হচ্ছে। একইভাবে চিকিৎসাসহ সকল ক্ষেত্রে আমাদের দেশে প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু হয়েছে। আমাগীতে এ ধারা যাতে আরও বেগবান হয়, সে কারণেই সরকার এমন সেমিনারের আয়োজন করেছে। আমরা সকলে যদি সকল ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার করতে পারি, তাহলে দেশ আরও দ্রুত এগিয়ে যাবে।

প্রধান অতিথি ও জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেন, আমাদের সময়ের অপচয় বোধ করতে প্রযুক্তির ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই সরকারের লক্ষ্য পূরণ হবে। কম শ্রম দিয়ে অধিক উৎপাদন করতে হলে প্রযুক্তির ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই। বর্তমান বিশ্বে দেশকে এগিয়ে নিতে জনশক্তির সাথে প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার ছাড়া কোনো উপায় নেই। তাই আধুনিক বিশ্বের সাথে তালমিলিয়ে এগিয়ে যেতে সরকার যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। নাগরিক হিসেবে নিজেদের উন্নয়নের জন্য সরকারকে সহযোগিতা করতে হবে। নিজেরা এগিয়ে গেলে এমনিতেই দেশ এগিয়ে যাবে।’

সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইটিসি) মো. নুরুল হুদা বলেন, এক সময় বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য দীর্ঘ লাইন ধরে অপেক্ষা করতে হতো। এতে সময়ের অপচয় হতো, আর প্রতিষ্ঠানগুলোতে যেতে অনেক অর্থের অপচয় হত। বর্তমান যুগের শিক্ষার্থীদের কাছে যা এখন রূপকথার গল্পের মত। এটা সম্ভব হয়েছে প্রযুক্তির ব্যবহারের জন্য। এমন সব ক্ষেত্রে প্রযুক্তিতে এগিয়ে যেতে শুরু করেছে দেশ। এখনো আমাদের দেশের অনেকক্ষেত্র বাকি আছে, যেখানে প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু হয়নি। সে সকল ক্ষেত্রেও প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু করতেই সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, রাঙামাটিতে আমরা উৎপাদনের অনেক ক্ষেত্রেই প্রযুক্তির ব্যবহার কাঙ্ক্ষিতভাবে সুনিশ্চিত করতে পারিনি। তাই কাক্সিক্ষত উৎপাদনও আসছেনা। আমরা রাঙামাটির ভূ-গর্ভস্ত পানি উত্তোলন করছি। অথচ আমাদের হাতে বিশাল জলধার কাপ্তাই হ্রদ পড়ে আছে। সে পানি পিউরিফাইন করে ব্যবহার করছিনা। এখানে আধুনিক পানি পরিশোধন কেন্দ্র স্থাপন করে সেই পানি ব্যবহার করতে পারি, তাতে ভূ-গর্ভস্থ পানির উপরে চাপ কমাতে পারি। তাতে এ অঞ্চলের পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষা পাবে। একই ভাবে কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য উৎপাদন ও শিকারে প্রযুক্তির ব্যবহার করতে হবে। তাহলে রাঙামাটির অর্থনৈনিক অবস্থার বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

প্রেমে ‘টানাপোড়নে’ কিশোরীর আত্মহত্যা

রাঙামাটির লংগদুতে এক কিশোরী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত কিশোরী জান্নাতুল (১৫) উপজেলা সদর …

Leave a Reply