নীড় পাতা » বান্দরবান » সূয়ালকে সহিংসতাকারিদের গ্রেফতার দাবি

সূয়ালকে সহিংসতাকারিদের গ্রেফতার দাবি

followupবান্দরবানের সূয়ালক বাজারে ব্যবসবায়ীদের আতঙ্ক এখনো কাটেনি। সোমবার জীপ-মাইক্রো পরিবহণ শ্রমিকেরা মোটর সাইকেল এবং জীপ নিয়ে কয়েকবার ঘোরাফেরা করেছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা ক্ষতিপূরন এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, ধর্মঘটে মোটর সাইকেল চালানো নিয়ে রোববার জীপ মাইক্রো চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেমের নেতৃত্বে ২৫/৩০ জন শ্রমিক সূয়ালক বাজারের ব্যবসায়ী মো: তারেকের তারেক টেলিকম, নজরুলের চায়ের দোকান এবং জাকির হোসেনের পানের দোকান’সহ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ, ঘরবাড়ি-মোটর সাইকেল এবং সিএনজি ভাংচুর করে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। পরিবহন শ্রমিকরা আবারও হামলা করতে পারে।

সোমবার দুপুরেও জীপ-মাইক্রো পরিবহণ শ্রমিকদের মোটর সাইকেল এবং জীপ নিয়ে কয়েকবার ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী মো: তারেক জানান, ড্রাইভার কাসেমের নেতৃত্বে শ্রমিকদের লাগিয়ে দেয়া আগুনে তার দোকানে থাকা বিকাশের প্রায় ৩ লক্ষ নগদ টাকা, ৩০ হাজার টাকার মোবাইল কার্ড, ওয়ালটন মোটর সাইকেল, ফ্রিজ এবং মালামাল পুড়ে গেছে। প্রায় ৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ইউএনও’র কাছেও ক্ষতির বিবরণ দিয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত সিএনজি মালিক হেলাল জানান, আমার মালিকাধীন সিএনজি গাড়ী ছাড়াও ২টি চায়ের এবং পানের দোকান ভেঙ্গে তচনছ করেছে শ্রমিকেরা। সূয়ালক ইউপি সদস্য আবদুল সবুর জানান, ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী’সহ স্থানীয়দের নিয়ে ক্ষতিপূরণ এবং হামলাকারী শ্রমিকদের বিচারের দাবীতে লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে। স্থানীয় বাসিন্দার আবদুল হাকিম, মজিদ, কোহিনুর’সহ অনেকে বলেন, জীপ-মাইক্রো শ্রমিকেরা পরিকল্পিতভাবেই হামলা চালিয়েছে। সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ’কে লাঠি দিয়ে মারধর করেছে। হামলাকারীদের শাস্তি দাবী জানাচ্ছি।

বান্দরবান সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ আহম্মেদ জানান, এখনো পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। তবে হামলাকারিদের চিহ্নিত করে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান কুজেন্দ্রের

কভিড-১৯ মহামারী উত্তরণে পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য …

Leave a Reply