নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » ‘সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়া হলে পাহাড়ে আগুন জ্বলবে’

‘সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়া হলে পাহাড়ে আগুন জ্বলবে’

nagorik-picccসরকার যদি পাহাড়ের বঞ্চিত মানুষের কথা না শুনে কোনো সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়, তবে পাহাড়ে আগুন জ্বলবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পার্বত্য নাগরিক কমিটির সভাপতি গৌতম দেওয়ান। তিনি বলেন, অতীতে আমাদের কোনো মতামত গ্রহণ না করে সরকার কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে হাজার হাজার জুম্ম জনগণকে ভূমিচ্যুত করেছে, এখন আবার আমাদের মতামত না নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়-মেডিকেল কলেজসহ নানা উন্নয়ন পরিকল্পনা নিচ্ছে। তাই পাহাড়ে যেকোনো উন্নয়নের ক্ষেত্রে এই এলাকার অধিবাসীদের মতামত গ্রহণের আহ্বান জানান রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রথম এবং একমাত্র নির্বাচিত সাবেক এই চেয়ারম্যান ।

‘পার্বত্য চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়িত না হওয়া পর্যন্ত চুক্তি পরিপন্থী পার্বত্য জেলা পরিষদ সংশোধনী আইন বাতিল ও রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন স্থগিত’র দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশে পালন করেছে রাঙামাটি নাগরিক পরিষদ ও জেএসএস নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় ‘রাঙামাটি সদর উপজেলাবাসী’ ব্যানারে রাঙামাটি জেলাপ্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এই প্রতিবাদ সমাবেশ পালন করা হয়।

পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সভাপতি গৌতম দেওয়ানের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন এমএন লারমা মেমোরিয়েল ফাউন্ডেশনের আহ্বায়ক বিজয় কেতন চাকমা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি অধ্যাপক মংসানু চৌধুরী, রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিতা চাকমা, বালুখালী ইউপি চেয়ারম্যান বিজয়গিরি চাকমা, ব্লাস্ট’র সমন্বয়ক জুয়েল দেওয়ান।

এতে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অরুণ কান্তি চাকমা, পার্বত্য আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমা, কেন্দ্রীয় আদিবাসী ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক শক্তিপদ ত্রিপুরা।

সমাবেশে বক্তারা পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির অবাস্তবায়িত বিষয়সমূহ দ্রুত ও যথাযথ বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ আইন সংশোধন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড আইন প্রণয়ন বাতিল করতে হবে এবং রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজ স্থাপনের উদ্যোগ স্থগিত রাখার আহ্বান জানান।

সমাবেশের পূর্বে রাঙামাটি শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণ থেকে একটি মিছিল শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে রাঙামাটি জেলাপ্রশাসক কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে যোগ দেয়।

মিছিল শেষে রাঙামাটি জেলাপ্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামালের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে ১৫ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি ও এর পক্ষে ১৭৫জন স্বাক্ষরিত একটি কপি প্রদান করা হয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাচিং প্রু মারমার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা …

Leave a Reply