সাপের কামড়ের চিকিৎসা নেই খাগড়াছড়িতে !

খাগড়াছড়ি জেলায় সাপের কামড়ের চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই! বুধবার জেলার দীঘিনালা উপজেলায় ৯ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রকে বিষাক্ত সাপে ছোবল দিলে চট্টগ্রাম নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। উপজেলায়তো নেই-ই; জেলাসদর হাসপাতলেও প্রতিষেধক কোন ইনজেকশন নেই এমনি দাবী করেছেন দীঘিনালা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা। অপরদিকে খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন জানিয়েছেন, জেলা সদরে ইনজেকশন থাকার কথা; তিনি খোঁজ নিয়ে দেখছেন।
পাহাড়ের দূর্গম এলাকা থেকে কোন রোগীকে উপজেলা হাসপাতালে পৌছাতে কমপক্ষ্যে ঘন্টাখানেক সময় লাগে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর জেলাসদর হাসপাতালে রোগীকে স্থানান্তর করলে আরো এক ঘন্টার বেশি সময় পার। জেলা সদর হাসপাতালেও কোন ব্যবস্থা না থাকলে সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর। তখন থেকে চট্টগ্রাম পৌছতে আরো ৬ ঘন্টার বেশি সময় লাগে। সাপে কামড়ের রোগীকে চট্টগ্রাম পৌছতে যে সময় লাগবে তার অনেক আগেই বিষক্রিয়া আক্রান্ত হয়ে মারা যাবে। এভাবেই বুধবারে মৃত্যু হয়েছে দীঘিনালা উপজেলার অনাথ আশ্রম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র সজীব বড়–য়ার (১৪)। সজীব উপজেলার বিন্দুবৈদ্য পাড়ার মিন্টু বড়–য়ার ছেলে।
সজীবের বাবা মিন্টু বড়–য়া জানান, ভোররাতে সাপে ছোবল দেওয়া পর দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় ছেলেকে। কিন্তু উপজেলা হাসপাতালে ইনজেকশন না থাকায় জেলাসদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। একই অবস্থা জেলা সদর হাসপাতালেও। সেখান থেকে একটি স্যালাইন লাগিয়ে স্থানান্তর করা হয়্ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে খাগড়াছড়ি থেকে মাত্র ২০ কিঃ মিঃ যাওয়ার পর মাটিরাঙ্গা পৌছতেই সজীবের মৃত্যু হয়।
উপজেলা হাসপাতালে সজীবকে দেখেছিলেন উপসহকারী চিকিৎসা কর্মকর্তা রাশেদ। তিনি জানান, কামড়ের চি‎হ্ন দেখেই বুঝা গিয়েছিল বিষাক্ত সাপের কামড়; উপজেলায় চিকিৎসা ব্যবস্থা না থাকায় জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডাঃ রকি দাশ গুপ্ত জানান, বিষাক্ত সাপে কামড়ালে প্রথমে রক্তে পরে হৃদপিন্ডে এবং সর্বশেষ ব্রেনে বিষক্রিয়া ছড়াবে। এ ধরনের রোগীকে পর্যবেক্ষনে রেখে শরীরে বিষ নষ্ট করতে পর্যায়ক্রমে ইনজেকশন ব্যবহার করে চিকিসা দিতে হয়। চিকিৎসা না পেলে এক থেকে ৬ ঘন্টার মধ্যে আক্রান্ত রোগী মারা যেতে পারে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা ডাঃ শামশুল গাফফার জানান, সাপের কামড়ের চিকিৎসা ব্যবস্থা উপজেলাতে নাই এমনকি খাগড়াছড়িসহ অধিকাংশ জেলাতেও নাই।
অপরদিকে খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন নিতিশ নন্দি মজুমদার জানান, জেলাসদর হাসপাতালে সাপের কামড়ের রোগীর চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ইনজেকশন থাকার কথা। বিষয়টি তিনি খোঁজ নিয়ে দেখবেন; এবং ইনজেকশন না থাকলে আনানোর ব্যবস্থা করবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply