নীড় পাতা » বান্দরবান » সাধারণ সম্পাদকেই ‘যুদ্ধ’ বান্দরবানে

ছয় বছর পর সম্মেলন আজ

সাধারণ সম্পাদকেই ‘যুদ্ধ’ বান্দরবানে

আজ সোমবার বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। দীর্ঘ ছয়টি বছর পর আওয়ামীলীগের সম্মেলন নিয়ে নেতা-কর্মীদের মধ্যেও উৎসাহ-উদ্দীপনার কমতি নেই। কে হচ্ছেন আগামী তিন বছর মেয়াদের জন্য সভাপতি এবং সধারণ সম্পাদক? এনিয়েও চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। সিলেকশন কমিটি ঘোষণা হবে নাকি কাউন্সিলের মাধ্যমে ১৫৬ জন ভোটারের গোপন ব্যালটে নির্বাচিত হবে নতুন নেতৃত্ব, এ নিয়েও চলেছে ব্যাপক কানা-ঘোষা।

তবে সভাপতি পদে দ্বিতীয় কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা না দেয়ায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবারও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা। অপরদিকে, সাধারণ সম্পাদক পদে ৬ জন প্রার্থী মনোয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরা হলেন- বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মো. ইসলাম বেবী, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মীপদ দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাহাদুর, অজিত কান্তি দাস, পৌর কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান খোকন, প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক সাদেক হোসেন চৌধুরী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে তিন সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য মংহৃচিং মারমা বলেন, সভাপতি পদে একমাত্র ক্যশৈহ্লা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ এবং জমা দিয়েছেন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে ৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সম্মেলন অনুষ্ঠানে নির্বাচিতদের নাম ঘোষণা করবেন প্রধান অতিথি।

এদিকে স্থানীয় রাজারমাঠে সোমবার সকালে সম্মেলন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ এমপি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে থাকবেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন-সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। প্রধান বক্তা হচ্ছেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি।

অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখবেন, তথ্য মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী ব্যরিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমীন, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়–য়া, দীপংকর তালুকদার এমপি, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক শফিকুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ক্যশৈহ্লা।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য শফিকুর রহমানকে আহ্বায়ক এবং পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসা প্রু মারমা’কে সদস্য সচিব করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’কে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছে। অন্যরা হলেন-সাবেক পৌর কাউন্সিলর মংহৃচিং মারমা এবং আইনজীবী জয়নাল আবেদীন।

এর আগে ২০১২ সালের অক্টোবরে জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা’কে সভাপতি এবং কাজী মুজিবর রহমান’কে সাধারণ সম্পাদক সপদে বহাল রেখে সর্বসম্মতিক্রমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের ঘোষণা দিয়েছিলেন প্রয়াত তৎকালীন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। কিন্তু দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ২০১৪ সালে জেলা আওয়ামীলীগের দীর্ঘ সতের বছরের একটানা সভাপতি প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা’কে সংগঠনের পদ থেকে বহিস্কার করা হয়।

পরবর্তীতে ওই বছরই বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা’কে সভাপতি এবং কাজী মুজিবর রহমান’কে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি পূর্ণ-গঠন করা হয়। বছর না পেরুতেই ২০১৫ সালের ২৩ জুলাই দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মজিবুর রহমান সংগঠনের পদ থেকে বহিস্কার করা হয়। ওই বছরই ২০১৫ সালের ১৯ আগস্ট সিনিয়রিটি বিবোচনায় আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় কমিটির সহ-সভাপতি ইসলাম বেবী’কে। কেন্দ্রীয় ভাবে জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন ঘোষণা করায় চলতি বছরের অক্টোবরে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মীপদ দাসকে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

গাছকাটা মামলায় কাপ্তাই যুবলীগ সভাপতির ৩ বছরের কারাদণ্ড

বন বিভাগের দায়ের করা মামলায় রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাসির উদ্দিনকে কারাগারে …

Leave a Reply