নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » সাংগ্রাই উৎসবের রঙ পাহাড়ে

সাংগ্রাই উৎসবের রঙ পাহাড়ে

Sangrai-98সাংগ্রাই উৎসবে বান্দরবানে জলখেলীতে মেতেছে তরুন-তরুনীরা। মারমা জনগোষ্ঠীর প্রধান সামাজিক উৎসব সাংগ্রাই’কে ঘিরে মারমা প্রধান পাহাড়ী বান্দরবানে সাতদিন ব্যাপী সাংগ্রাই উৎসবের তৃতীয়দিনে মঙ্গলবার পুরাতন রাজবাড়ি মাঠ এবং সদর উপজেলার রেইছা থলিপাড়া মাঠে সাংগ্রাই উৎসবের মূল আকর্ষন-জলখেলী বা মৈত্রী পানি বর্ষণ খেলায় মেতে উঠেছে তরুন-তরুনীরা। ছোট-বড় কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে মারমা তরুন-তরুনীরা পানি খেলায় অংশ নেয়। জলখেলী উৎসবের প্রধান বৈশিষ্ট হচ্ছে-জলখেলী বা পানি খেলায় বিবাহিতরা অংশ নিতে পারেনা। মারমা তরুন-তরুণীরা একে অপরের গায়ে পানি ছিটিয়ে ভাবের আদান প্রদান করে। জলখেলী উৎসবের মাধ্যমে পাহাড়ী মারমা তরুন-তরুণীরা সর্ম্পকের সেতু বন্ধন তৈরি করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। জলখেলী উৎসব দেখতে শতশত পাহাড়ী-বাঙ্গালী নারী-পুরুষ এবং দেশী-বিদেশী পর্যটকরাও ভীড় জমিয়েছে পাহাড়ী জেলা বান্দরবানে। এদিকে জলখেলী উৎসবের সঙ্গে চলেছে পাহাড়ীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। পাহাড়ী তরুন-তরুনীরা নাচে গানে মাতিয়ে তুলেছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।sangrai-pic-96
অপরদিকে সাংগ্রাই উৎসবকে ঘিরে পিঠা তৈরির ধুম পড়েছে পাহাড়ী পল্লীগুলোতে। মঙ্গলবারও শহরের উজানীপাড়া, জাদীপাড়া এবং টাউনহল পাড়ায় সাড়িবদ্ধভাবে বসে তরুন-তরুনী এবং শিশু-কিশোরেরা দুদিনব্যাপী হরেক রকমের পিঠা তৈরি প্রতিযোগীতায় নেমেছে। রাতব্যাপী পিঠা তৈরি করে পাড়া-প্রতিব্শেী এবং ক্যায়াংএ ক্যায়াংএ বিতরণ করে তরুন-তরুনীরা।
বুধবার সদর উপজেলার রেইছা থলিপাতা, পুরাতন রাজবাড়ি মাঠ এবং রোয়াংছড়ি উপজেলা হাইস্কুল মাঠে জলখেলী উৎসবের আয়োজন রয়েছে। চলবে পিঠা তৈরির প্রতিযোগীতা এবং মনোজ্ঞ সাস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। সাংগ্রাই উৎসব চলবে আগামী ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত।Bandarban-Sagrai-utsav-PiC_
আয়োজকরা জানায়, পুরাতন বছরকে বিদায় আর নতুন বছরকে বরণের এই উৎসবকে পাহাড়ীরা প্রধান সামাজিক উৎসব হিসেবে পালন করে আসছে বহুকাল ধরে। সকল পাপাচার ও গ্লানী ধুয়ে মুছে নিতে বর্ষবরণ ও বর্ষবিদায় উৎসবকে পাহাড়ী জনগোষ্ঠীরা মারমা ভাষায় সাংগ্রাই, ত্রিপুরা ভাষায় বৈসকু, তঞ্চঙ্গ্যা ভাষায় বিসু এবং চাকমা ভাষায় বিজু, ম্রো ভাষায় চাংক্রান, চাক ও খেয়াং ভাষায় সাংগ্রান এবং খুমী ভাষায় সাংগ্রায় উৎসব নামে পালন কওে আসছে। এই উৎসবে পাহাড়ী জনগোষ্ঠীরা বছরের শেষের তিনদিন এবং নতুন বছরের প্রথম তিনদিন বৈচিত্রময় নানা অনুষ্ঠানমালায় মেতে থাকে। মারমা প্রধান বান্দরবানে ‘সাংগ্রাই মা ঞি ঞি ঞা ঞা রি কেজাই গাই পা মে লাগে লাগে’- গানের সুরে মাতোয়ারা এখন মারমা তরুন-তরুনীরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

সরকারের পায়ের নীচে মাটি নেই : মনিস্বপন

‘এই সরকারের পায়ের নীচে মাটি নেই। দেশ ভালো নেই, দেশের মানুষ ভালো নেই। গনতন্ত্র নেই, …

Leave a Reply