নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » সর্বোচ্চ ছাত্রসমাবেশে রাঙামাটি সর্বনিম্ন !

সর্বোচ্চ ছাত্রসমাবেশে রাঙামাটি সর্বনিম্ন !

BSL-flagবাংলাদেশ ছাত্রলীগের উদ্যোগে ৩১ আগস্ট ঢাকায় ছাত্র সমাবেশ স্মরণকালের সেরা জমায়েত করার ঘোষণা দিলেও সম্ভবত পার্বত্য জেলা রাঙামাটি থেকে সর্বনিন্ম জমায়েত যাচ্ছে রাজধানী ঢাকায় ! জমায়েত বিষয়ে জেলা নেতৃবৃন্দের ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য পাওয়া গেলেও মোট সংখ্যা পঞ্চাশের কম বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে । শনিবার রাতে ডলফিন পরিবহনের একটি গাড়ি (নং-৯৪৭৪১৫) প্রায় ৩৫ জন নেতাকর্মী নিয়ে রাঙামাটি থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছে। তবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন এ জমায়েতে রাঙামাটি থেকে প্রায় ৮০ নেতাকর্মী অংশ নিচ্ছেন দাবি করলেও জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক ও সিনিয়র সহসভাপতি জানিয়েছেন,সমাবেশে যাচ্ছেন ওই একবাস নেতাকর্মীই। দুরত্বের কারণে নেতাকর্মীরা বেশি যেতে পারেনি বলে  ছাত্রলীগে নেতারা জানালেও, অনেকই বলছেন জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে সমন্বয় এবং সংগঠন সুসংগঠিত না থাকায় নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে না পারাকেও দোষারোপ করছেন।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন জানান, রোববারের সমাবেশে যোগ দিতে রাঙামাটি থেকে শনিবার রাতে একটি বাস ছেড়ে যায়। বাসে প্রায় ৩৬ জন অবস্থান করলেও অনেকেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে আগে ভাগেই ঢাকায় চলে গেছে। তবে দুরত্বের কারণে অনেকেই ঢাকায় যেতে পারেননি বলে তিনি জানান। বিভিন্ন উপজেলা থেকে বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ আগেভাগেই ঢাকায় চলে গেছেন। তিনি বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের তত্ত্বাবধানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ঢাকায় যাচ্ছে।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম সাইদুল বলেন, রাঙামাটি থেকে একটি বাস ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছে। এতে প্রায় ৩৬ নেতাকর্মী অবস্থান করছে। সভাপতি শাহ এমরান রোকনসহ বেশ কয়েকজন নেতা আগেই ঢাকায় অবস্থান করছেন। তিনিও দুরত্বকে কারণ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, দুরত্বের কারণে অনেকে ঢাকায় যেতে চাননি। তবে তিনি নিজে অসুস্থতার জন্য ঢাকায় যেতে পারেননি বলে জানান।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা নওশাদ সারোয়ার বলেন, মূলত ছাত্রলীগ সুসংগঠিত না থাকার কারণে নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে না পারায় রাঙামাটি থেকে জমায়েত ভালো হয়নি। এজন্য নিজের ব্যর্থতাও স্বীকার করে তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের মধ্যে কোনো উৎসাহ সৃষ্টি করতে না পারায় শুধু এক বাস নেতাকর্মী ঢাকায় যাচ্ছে। নেতাকর্মীদের মধ্যে যোগাযোগ আরো বৃদ্ধি করতে পারলে জমায়েত আরো ভালো হতো বলে তিনি দাবি করেন। তিনি নিজেও অসুস্থতার জন্য যেতে পারেননি বলে উল্লেখ করেন।

ছাত্রলীগের একটি সূত্র জানিয়েছে,ডলফিন পরিবহনের একটি গাড়ী ২০ হাজার টাকা করে আসা যাওয়া বাবদ ৪০ হাজার টাকায় ভাড়া করা হয়েছে সমাবেশে যাওয়ায় জন্য। আর এ বাবদ ৬০ হাজার টাকা দিয়েছেন রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা নিখিল কুমার চাকমা। এছাড়া নেতাকর্মীদের ঢাকায় থাকা খাওয়ার খরচের দায়িত্ব নিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন ও সাধারন সম্পাদক সাইফুল আলম সাইদুল।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে রোববার ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ ছাত্র সমাবেশের আয়োজন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বিকেল তিনটা থেকে শুরু হওয়া সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। সংগঠনটির প্রতিটি সাংগঠনিক জেলার নেতাকর্মীদের স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণে এ সমাবেশে রেকর্ড সংখ্যক ছাত্র অংশ নেবে বলে আশা করছেন ছাত্রলীগ নেতারা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply