সম্পাদকীয়

জীবনের এপিঠ—ওপিঠে ভোগ আর উপভোগ পাশাপাশি থাকে। স্রোতের মতোই গড়াগড়ি খায় দারিদ্র আর চেতনা। তাবৎ প্রাণীকুলের ক্ষোভ—বিদ্রোহ আছে বলেই জীবন বহমান। আর মানুষের অনুভূতি আছে বলেই মানুষ ভাষার সৌকর্য্য নির্মাণ করে।
মানুষ হিসেবে পাহাড় অথবা সমতলের কোনো পার্থক্য আজ খুঁজতে চাই না। জীবনের উষ্ণতার জন্যই সভ্যতার শুরু থেকে মানুষ স্বভাবতই আনন্দমুখর। বাংলা ভূখণ্ডের ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সংস্কৃতি; ধর্মে ও ভাষায় বর্ণিল অথবা বৈচিত্র্যময় বলেই উৎসবের রং হয় রঙিন।
আমাদের ভাষা আন্দোলন, আমাদের মুক্তিযুুদ্ধ, আমাদের অসাম্প্রদায়িকতা; পাহাড়ি—বাঙালী সকলের অমলিন ভাস্বর চেতনার শক্তি। সেই চেতনার সিড়ি বেয়ে খুঁজে ফিরছি, পাহাড়—সমতলের যৌক্তিক ঐক্যের বুদ্ধিবৃত্তিক ঠিকানা। সেই ঠিকানার ডাক হরকরা হয়ে যেতে চাই বহুদূর।
কৃতজ্ঞ— লিখিয়েদের কাছে, বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছে, শুভানুধ্যায়ী এবং মুদ্রণ নির্মাতাদের কাছে। সকল সীমাবদ্ধতা উৎরাতে চাই বোদ্ধা পাঠকের হাত ধরে।
নববর্ষে পুষ্পিত শুভেচ্ছা সকলকে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিএনপি’র প্রচারপত্র বিতরণ

রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে জনসচেতনতামূক প্রচারণা ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার …

Leave a Reply