নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » সমাজের আবর্জনা ও সড়কের আবর্জনা,দু’য়ের বিরুদ্ধেই অভিযান…

সমাজের আবর্জনা ও সড়কের আবর্জনা,দু’য়ের বিরুদ্ধেই অভিযান…

dc-PIC-01রাঙামাটি শহরের তবলছড়িতে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে আসা যাওয়ার পথে বখাটেদের উৎপাতের শিকার হচ্ছিলো,স্কুলে যাওয়া আসার পথে প্রায় প্রতিটি সড়কের মোড়েই দলবেঁধে, কিংবা মোটর সাইকেল নিয়ে ছাত্রীদের উত্যক্ত করা বখাটেদের নিয়ে বিপাকে পড়া স্কুল কর্তৃপক্ষও ছিলো নির্বিকার আর অভিভাবকদের যেনো উদ্বেগ আর উৎকন্ঠা ছিলো প্রতিনিয়তের। মেয়েদের স্কুল বা প্রাইভেটে পাঠিয়েও স্বস্তি ছিলোনা তাদের। এনিয়ে বিভিন্ন সময় অনানুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ উঠলেও সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসছিলো না কেউ। পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে নতুন সৃষ্ট এই আবর্জনা (ইভটিজিং) অপসারনে সম্প্রতি রাঙামাটির ফেসবুক ভিত্তিক একটি সংগঠন (https://www.facebook.com/groups/rangamatihilltract/) বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করলে তৎপর হয়ে উঠে জেলা প্রশাসন। মাঠে নামে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। এরই অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সড়কে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালতের টীম। এদিন রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল ইসলামের নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট সন্দেভাজন ৪/৫জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ২ জনের বিরুদ্ধে সুর্নিদিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিকে কানধরে উঠবস করায় এবং ভবিষ্যতে কোন ধরণের ঈভটিজিং না করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে ছেড়ে দেয়।

DC-PIC-02
চলছে শহরের সৌন্দর্য্য রক্ষার কাজ..

ভ্রাম্যমান আদালতের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল ইসলাম বলেন, ছাত্রীদের নিরাপদ স্কুলে যাওয়া-আসা নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশে আমি অভিযান চালিয়েছি,এই অভিযান নিয়মিত চলবে,বখাটেদের কোন ছাড় দেয়া হবেনা। জেলা প্রশাসন শহরকে সুন্দর,বাসযোগ্য ও পরিচ্ছন্ন রাখতে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি। যেকোন অভিযোগ জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেইজ অথবা সরাসরি লিখিত ভাবে জেলা প্রশাসককে জানানোর জন্য তিনি রাঙামাটিবাসির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে রাঙামাটি শহরকে পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর রাখতে জেলা প্রশাসন ও রাঙামাটি পৌরসভার উদ্যোগে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালত বৃহস্পতিবার শহরের ডিসি বাংলো থেকে পৌরসভা পর্যন্ত সড়কের আশেপাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে। এসময় জেল সড়ক ও স্টেডিয়াম এলাকায় বিপদজনক বাঁকে অবস্থিত টিনের স্থাপনাও উচ্ছেদ করে সড়ক চলাচল নিরাপদ করা হয়। পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা এসময় নির্বাচনের সময় ব্যবহৃত পোস্টার,ব্যানার, বিভিন্ন কোম্পানীর অনুনোমোদিত অবৈধ বিলবোর্ড,প্ল্যাকার্ড অপসারন করে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল ইসলামের নেতৃত্বে পরিচালিত মোবাইল কোর্টকে সার্বিক সহযোগিতা করে কোতয়ালী থানা পুলিশ ও রাঙামাটি পৌরসভার পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা।

প্রসঙ্গত,রাঙামাটি শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে সম্প্রতি রাঙামাটি জেলা প্রশাসন ও রাঙামাটি পৌরসভা শহরের যত্রতত্র বেদখল ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,অপরিকল্পিতভাবে স্থাপিত বিলবোর্ড,সাইনবোর্ড,ব্যানার অপসারণ এবং চলাচলের ফুটপাত ও প্রধান সড়ক দখল করে রাখার বিরুদ্ধে নিয়মিতভাবে অভিযান পরিচালনা করছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে করোনায় আরও এক নারীর মৃত্যু

রাঙামাটি শহরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ভোররাতে শহরের চম্পকনগর আইসোলেশন …

Leave a Reply