নীড় পাতা » ফিচার » ক্যাম্পাস ঘুড়ি » সমকাল-বিএফএফ বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন গার্লস স্কুল

সমকাল-বিএফএফ বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন গার্লস স্কুল

samakalllদৈনিক সমকাল-বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের(বিএফএফ) উদ্যোগে শনিবার রাঙামাটিতে জাতীয় স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয় হলরুমে আয়োজিত স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী। সুহৃদ সমাবেশ রাঙামাটির সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি বর্ষিয়ান সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন রুবেল, রাঙামাটি রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা, রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রণতোষ মল্লিক। বক্তব্য রাখেন দৈনিক সমকাল রাঙামাটি অফিসের স্টাফ রিপোর্টার সত্রং চাকমা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক হেফাজাতুল বারী সবুজ।
অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিরা চ্যাম্পিয়ন দল রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থি পূর্ণিমা তালুকদার (দলনেতা), সানজিদা শাহরিন নিহা, জাফরিন আক্তার এবং রানার্স-আপ দল রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থি ইউরিদ ইমতিয়াজ (দলনেতা), তৃষা দেওয়ান, মিতা চাকমার হাতে সনদপত্র ও ক্রেস্ট তুলে দেন। এছাড়া অংশগ্রহনকারী সকল বিতার্কিককেও সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।
বিতর্ক প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়া দলগুলো হল, রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়, লেকার্স পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, ভেদভেদী পৌর উচ্চ বিদ্যালয়, মোনঘর আবাসিক বিদ্যালয়, শহীদ আব্দুল আলী একাডেমী, মোজাদ্দেদ-ই আল ফেসানী একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয়, রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙামাটির মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, প্রতিযোগীতা না থাকলে উন্নতি করা সম্ভব নয়। বিজ্ঞানের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারলেই মানব কল্যাণ সাধিত হবে। বিজ্ঞানের বর্তমান দুনিয়ার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে না পারলে দেশ পিছিয়ে যাবে। বিজ্ঞান ছাড়া জাতীয় উন্নয়ন সম্ভব না। তাই বিজ্ঞান শিক্ষার প্রসার ঘটিয়ে দেশকে উন্নতির চরম শিখরে নিতে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি পিছিয়ে পড়া পার্বত্য জনপদে শিক্ষার্থিদের এগিয়ে নিতে দৈনিক সমকালের এধরণের কার্যক্রম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করে আরো বলেন, আমরা মানুষ, তাই মানবতা, ভালোবাসা ভুলে গেলে চলবে না। বিজ্ঞান চর্চার পাশাপাশি অসাম্প্রদায়িকতা ও মুক্তিযদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হতে হবে সবাইকে।
পার্বত্যাঞ্চলের বর্ষীয়ান সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে বলেন, ৭০ বৎসর বয়সে আজকে আমি আনন্দিত, দিনটি আমার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। কেন না পার্বত্য জনপদের নতুন প্রজন্ম যে যুক্তিবাদী মানুষে পরিণত হচ্ছে তা দৈনিক সমকাল এ আয়োজনের মাধ্যমে দেখিয়ে দিয়েছে।
অংশ গ্রহনকারী বিতার্কিতদের বক্তব্যে বলা হয়, বর্তমানে শিক্ষার্থিদের বিজ্ঞান বিমূখতার নানান অসঙ্গতি আর শিক্ষার অপ্রতুলতার কথা। বিভিন্ন প্রতিযোগীতামূলক নিয়োগ ও ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে বিজ্ঞান বিষয়ে তুলনামূলক নম্বর বন্টনের হার কম থাকায় শিক্ষার্থিদের বিজ্ঞান বিষয়ে পড়তে অনাগ্রহী করে তুলছে। বিজ্ঞান আনন্দ ও উপভোগ্য বিষয় হলেও ল্যাবরেটরী আর ব্যবহারিক শিক্ষার অপ্রতুলতার কারণে শিক্ষার্থিরা বিজ্ঞান বিমূখ হওয়ার
প্রতিযোগীতায় বিতার্কিকদের বক্তব্যে আরও উঠে এসেছে দারিদ্রতাও শিক্ষার্থিদের বিজ্ঞান বিমূখ করছে। এছাড়া মানসিকভাবে শিক্ষার্থিদের তৈরি না করা, পারিবারিক সাপোর্ট না পাওয়া, বিজ্ঞানের বিষয়গুলো সহজেই বোধগম্য না হওয়ার সাথে বিজ্ঞান বিষয়ে শিক্ষকের অপর্যাপ্ততা, উপকরণ ও ব্যবহারিক শিক্ষণের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ না পাওয়াও দায়ী করেছে। তাদের মতে, বিজ্ঞান বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় বাদ দিয়ে নতুন নতুন বিষয় যুক্ত করাও শিক্ষার্থিদের মনে ভীতি তৈরি হচ্ছে। সমৃদ্ধ দেশ গড়তে সুশৃঙখল শিক্ষা ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরী। একটি জাতির মূল শক্তি হলো শিক্ষার্থি। অথচ দেশের মোট শিক্ষার্থিদের একটি বড় অংশই বিজ্ঞান বিমূখ হয়ে পড়ছে। যদিও সৃজনশীল পরীক্ষা পদ্ধতি পুরো শিক্ষা ব্যবস্থাকে বদলে দিয়েছে। ফলে পাঠাভ্যাসে শিক্ষার্থিদের আগ্রহী করে তুলছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি

খাগড়াছড়ির রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণসহ নানা অপকর্মে লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। …

Leave a Reply