নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » সভাপতিকে বাদ দিয়েই রাঙামাটি বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

সভাপতিকে বাদ দিয়েই রাঙামাটি বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

Rangamti-picদলীয় সভাপতি এডভোকেট দীপেন দেওয়ানকে বাদ দিয়েই রাঙামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে রাঙামাটি জেলা বিএনপি। ইতোপূর্বে দুইবার প্রতিরোধের মুখে পড়া দীপেন দেওয়ান তৃতীয়বার অনভিপ্রেত পরিস্থিতি এড়াতেই আসেননি বলে জানিয়েছেন বিএনপির সূত্রগুলো।
বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার আদালত স্থানান্তর এবং সারাদেশে গুম, খুন ও হত্যার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে এই বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে দলটি । বিক্ষোভ মিছিলে দলের প্রায় সকল সিনিয়র নেতা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না সভাপতি দীপেন দেওয়ান। মিছিলে অংশ নেয়া সিনিয়র নেতারা জানিয়েছেন,তাকে মিছিলে আসতে মানা করা হয়েছে।

সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় দলীয় কার্যালয় থেকে একটি মিছিল বের হয়ে জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ে সামনে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।

জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজি জহির আহম্মদ সওদাগরের সভাপতিত্বে ও ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাৎ মোঃ সায়েমের পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক দীপন তালুকদার, যুগ্ম সম্পাদক আলী বাবর, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম পনির, পৌর বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মামুনুর রশিদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এই মিছিলে দেওয়ান দেওয়ান পন্থী ও বিরোধী সকল নেতাই উপস্থিত থাকলেও গরহাজির ছিলেন শুধুই দীপেন দেওয়ান।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকার ৫ জানুয়ারি অবৈধ নির্বাচনের পর ক্ষমতায় টিকে থাকতে একের পর এক অনৈতিক ও অন্যায় কাজ করে চলেছেন। তারা শহীদ জিয়ার পরিবারকে হয়রানি করার লক্ষ্যে মামলার আদালতও পরিবর্তন করেছেন। সরকার র‌্যাবের ওপর নির্ভয় হয়ে দেশ পরিচালনা করছে। বক্তারা ভোটারবিহীন নির্বাচনে গঠিত অবৈধ ধারাবাহিকভাবে জাতীয়তাবাদী আদর্শকে নিঃশেষ করার নীল নকশা ও ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। একইসাথে জিয়ার পরিবারের বিরুদ্ধে যেসব মামলা দায়ের করা হয়েছে তা প্রত্যাহারের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।

রাঙামাটি জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহ আলম দীপেন দেওয়ানের অনুপস্থিত ছিলেন জানিয়ে বলেন,তিনি কেনো উপস্থিত ছিলেন না তা আমি জানিনা।

তবে রাঙামাটি পৌর বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো বলেন, দীপেন দেওয়ান ‘জেএসএস’র এজেন্ট’ এবং বিএনপির জন্য ক্ষতিকর। তাই আমরা তাকে বয়কট করা শুরু করেছি। সে আসলে প্রতিরোধের মুখে পড়বে বলেই আসেনি।

প্রসঙ্গত, গত সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পরাজয়ের পর ক্ষুদ্ধ বিএনপির নেতাকর্মীরা ১ এপ্রিল দলীয় কার্যালয় ভাংচুর করে এবং দীপেন দেওয়ানের ছবিতে আগুন দেয়। এর ১ মাস পর গত ১ মে শ্রমিক দিবসের কর্মসূচীতে যোগ দিতে দীপেন দেওয়ান দলীয় কার্যালয়ে এলে আবারো প্রতিরোধের মুখে পড়েন এবং নেতাকর্মীরা চেয়ার টেবিল ভাংচুর করে শ্রমিকদলের একাংশের কর্মসূচী পন্ড করে দেয়,পরে পুলিশী প্রহরায় দলীয় কার্যালয় ত্যাগ করেন দীপেন দেওয়ান।

এদিকে সোমবার সন্ধ্যায় শহরের কলেজগেইট এলাকায় ৯ নং ওয়ার্ড বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে দীপেন দেওয়ান ও তার কয়েকজন অনুসারি উপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছেন ৯ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি বাচ্চু মিয়া।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

One comment

  1. এরাই রাংগামাটি বি.এন.পি কে নষ্ট করার জনত্‍ যতেষ্ট আওযামীলিগের দরকার নাই ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: