নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » সবিতা চাকমার হত্যার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে বিক্ষোভ

সবিতা চাকমার হত্যার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে বিক্ষোভ

DSCN7394খাগড়াছড়ি জেলার কমলছড়ি ইউনিয়নের চেঙ্গীচর এলাকায় সবিতা চাকমা নামে একজন নারীকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের উদ্যোগে রাঙামাটি শহরে সোমবার এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। মিছিলটি রাঙামাটি শহরের উত্তর কালিন্দীপুরস্থ পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির জেলা কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে বনরূপা পেট্রোল পাম্প এলাকা ঘুরে এসে রাঙ্গামাটি নিউ মার্কেটের প্রাঙ্গণে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি চঞ্চনা চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশ পরিচালনা করেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক রিমিতা চাকমা। সমাবেশে জনসংহতি সমিতির পক্ষ থেকে বক্তব্য প্রদান করেন জনসংহতি সমিতির রাঙামাটি জেলা কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক শরৎ জ্যোতি চাকমা।
সমাবেশে বক্তারা গত ১৫ ফেব্রুয়ারি কলমছড়ি চেঙ্গী চর এলাকায় সবিতা চাকমা নামে এক সন্তানের জননীকে নৃশংসভাবে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পর দুই দিন অতিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও কাউকে গ্রেপ্তার না করায় বক্তারা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এভাবে একের পর এক নৃশংস ঘটনা সংঘটিত হয়ে চললেও দোষী ব্যক্তিদের কাউকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা না করা এবং এভাবে দায়মুক্তির ফলে অপরাধীরা এ ধরনের মানবতা বিরোধী ন্যাক্কারজনক ঘটনা সংঘটনে আরো অধিকতর পরিমাণে উৎসাহিত হচ্ছে বলে বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়িত না হওয়া, পার্বত্য চট্টগ্রামের ভূমি সমস্যা নিষ্পত্তি না হওয়া, সর্বোপরি সেটেলার বাঙালিদের পার্বত্য চট্টগ্রামের বাইরে পুনর্বাসন না করার ফলে জুম্ম নারীদের উপর এ ধরনের লোমহর্ষক ঘটনা সংঘটিত হয়ে চলেছে বলে বক্তারা মত প্রকাশ করেন। এজন্য যে কোন অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতির জন্য প্রশাসন দায়ী থাকবে বলে বক্তারা হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
সমাবেশে বক্তারা সবিতা চাকমার ধর্ষণ ও হত্যার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা; সবিতা চাকমার পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদান করা; পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ এর সংশোধন পূর্বক অচিরেই পার্বত্য চট্টগ্রামের ভূমি সমস্যার সমাধান, পার্বত্য চট্টগ্রামের বাইরে সেটেলার বাঙালিদের সম্মানজনক পুনর্বাসন প্রদান করা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি দ্রুত বাস্তবায়ন করার দাবি জানান। দোষী ব্যক্তিদের অচিরেই গ্রেপ্তার করা না হলে জুম্ম জনগণ বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারন করেন।
প্রসঙ্গত, ঘটনার দিন সকালে কমলছড়ি মুখ পাড়ার বাসিন্দা এক সন্তানের জননী সবিতা চাকমা (৩০) স্বামী দেব রতন চাকমা চেঙ্গী নদীর চরে গরুর জন্য ঘাস কাটতে যায়। সেখানে পার্শ্ববর্তী ক্ষেতে কর্মরত অনেকে তাকে দুপুর পর্যন্ত ঘাস কাটতে দেখেছে। দুপুরের আহারের জন্য অন্যরা স্ব স্ব বাড়ীতে চলে আসলে সবিতা চাকমা ঘাস কাটতে থাকে। এরপর সবিতা চাকমা সারাদিন বাড়ীতে ফিরে না আসায় তার স্বামী দেব রতন চাকমাসহ এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে তাকে খোঁজ করতে যান। অনেক খোঁজাখুঁজির পর বিকাল সাড়ে পাঁচটায় একটি ঝোঁপের ভেতরে সবিতা চাকমার বিবস্ত্র লাশ খুঁজে পান। ঘটনাটি পুলিশকে জানানোর পর খাগড়াছড়ি সদর থানার পুলিশ ও ভূয়াছড়ি ক্যাম্পের সেনা সদস্যরা গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে বলে জানা যায়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বেইলি সেতু ভেঙে রাঙামাটি-বান্দরবান সড়ক যোগাযোগ বন্ধ

রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলায় রাঙামাটি-বান্দরবান প্রধান সড়কের সিনামা হল এলাকার বেইলি সেতু ভেঙে পাথর বোঝাই ট্রাক …

Leave a Reply