নীড় পাতা » ব্রেকিং » সন্তু লারমা একজন দেশপ্রেমিক: গওহর রিজভী

সন্তু লারমা একজন দেশপ্রেমিক: গওহর রিজভী

rijbiiiপার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি সন্তু লারমাকে দেশপ্রেমিক উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী বলেছেন, যখন থেকে আমি বাংলাদেশে এসেছি শেখ হাসিনার সেবা করার সুযোগ পেয়েছি,তখন থেকেই সন্তু লারমার সাথে অনেক কাজ করেছি। আমি আপনাদের একটি কথা বলে দিতে পারি,সন্তু লারমা একজন দেশপ্রেমিক,সে গনতন্ত্রে বিশ্বাস করে,সে বাংলাদেশে বিশ্বাস করে। সে আমাদের সাথে আছে এবং থাকবে,আমার সঙ্গেই কাজ করবে,কেননা সে চুক্তি আমাদের সাথে করেছে,আওয়ামীলীগ সরকারের সাথে করেছে।’

গওহর রিজভী বলেন, আমি জানি শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন নিয়ে আপনাদের মনে অনেক ক্ষোভ, ব্যথা রয়েছে। আশা করছি, অতি দ্রুতই তা নিরসন করা হবে। চুক্তি বাস্তবায়ন বেশিরভাগই হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, চুক্তি অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গেছি। সামান্য যা কিছু আছে, তাও দ্রুত বাস্তবায়ন হবে। প্রধানমন্ত্রী চুক্তি পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন আন্তরিক মন্তব্য করে গওহর রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমি কথা বলেছি। তিনি বলেছেন, চুক্তি আমরা করেছি, আমরাই বাস্তবায়ন করবো। চুক্তি বাস্তবায়ন বিষয়ে তিনি বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি সকলকে এক সাথে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এক সাথে কাজ করলে দ্রুত সমস্যা সমাধান হবে।

পার্বত্য শান্তি চুক্তির ১৮ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে বুধবার(২ ডিসেম্বর) দুপুরে রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গওহর রিজভী এসব কথা বলেন।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মুছা মাতব্বর, জেলা যুবলীগের সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সামসুল আলম, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমাসহ জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দ।

সভাপতির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার বলেন, চুক্তি বাস্তবায়নে বড় বাধা অবৈধ অস্ত্র। পাহাড়ের মানুষ অবৈধ অস্ত্রের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে। চুক্তির মধ্যে পার্বত্যাঞ্চলের সার্বিক উন্নয়নের বিষয়টিও উল্লেখ আছে। পাহাড়ের সার্বিক উন্নয়নের সাথে চুক্তি বাস্তবায়নের বিষয়টিও অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। তাই পাহাড়ে চাঁদাবাজি বন্ধ ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা সম্ভব হলে তবেই পাহাড়ের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব। চুক্তি বাস্তবায়নের দাবির নামে যারা সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। চুক্তি বাস্তবায়নে অসহিষ্ণু, অধৈর্য হলে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা আছে বলে মন্তব্য করে, চুক্তি বাস্তবায়ন একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রক্রিয়া অনুসরণ করে চুক্তি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু বলেন, পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্র থাকলে শান্তির সুবাতাস মানুষ পাবে না। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে পারলেই তবেই মানুষ শান্তিতে থাকতে পারবে। তিনি বলেন, হয়তো অস্ত্র উদ্ধার করুন, না হলে আমাদের হাতে অস্ত্র তুলে দিন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে এক দিনেই ১১ জনের করোনা শনাক্ত

শীতের আবহে হঠাৎ করেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলায় করোনা সংক্রমণে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েকদিনের …

১২ comments

  1. huguro pungkor…….chakma jatir kulang gar………tui besh bok bok nw bugis hugur more pa muribe…….:

  2. huguro pungkor…….chakma jatir kulang gar………tui besh bok bok nw bugis hugur more pa muribe…….:

  3. তাইলে জামায়াতও মুক্তিযোদ্ধা পক্ষের দল …..:-P 😛

  4. তাইলে জামায়াতও মুক্তিযোদ্ধা পক্ষের দল …..:-P 😛

Leave a Reply

%d bloggers like this: