নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » শ্লোগান মিন্টু’র নামে,আসলেন ওয়াদুদ !

শ্লোগান মিন্টু’র নামে,আসলেন ওয়াদুদ !

wadudu-022বিএনপি চেয়ারপার্সনের অন্যতম উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টুর নেতৃত্বে রবিবার খাগড়াছড়িতে সাংগঠনিক সফরের কথা থাকলেও কেউই আসেননি। কয়েকদিন ধরে যাকে ঘিরে ব্যাপক ডাকঢোল পেটানো হলো, টীমের প্রধান মিন্টু জানালেন আকস্মিকভাবেই তিনদিন আগে খাগড়াছড়ি সফর বাতিল করা হয়েছে।
এফবিসিসিআই এর সাবেক সভাপতি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু বলেন, ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকায় এবং ব্যক্তিগত কাজকর্মের কারনে আপাতত: সফর স্থগিত করা হয়েছে। সফর সম্পর্কে সমীরণ দেওয়ান, ওয়াদুদ ভূঁইয়ার সাথে কথা হয়েছিল। সাংগঠনিক সফরের পরবর্তী তারিখ এখনো ঠিক হয়নি বলেও জানান তিনি।
তিনদিন আগে সাংগঠনিক সফর বাতিল হলেও রবিবার সকাল পর্যন্ত দলীয় নেতাকর্মীরা কেন্দ্রীয় নেতাদের অপেক্ষায় ছিলেন। ওয়াদুদ ভুইয়া কর্মী সমাবেশে পৌছালে নেতাকর্মীরা ‘মিন্টু ভাইয়ের আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতম’ বলে শ্লোগান দেয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত গাড়ী থেকে ওয়াদুদ ভুইয়া নামলেও নামেননি আব্দুল আউয়াল মিন্টু বা অন্য কোন কেন্দ্রীয় নেতা। এতে দলীয় কোন্দলের কারনে বিভ্রান্ত নেতাকর্মীরা হতাশ হন। সমাবেশের মঞ্চে ‘আব্দুল আউয়াল মিন্টু প্রধান অতিথি’ লেখা ব্যানারটি নামিয়ে ওয়াদুদ ভুইয়ার সাথে নিয়ে আসা ব্যানারটি টানিয়ে দেয়া হয়।
উল্লেখ্য পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সফরের অন্য সদস্যরা ছিলেন বিএনপি‘র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকার, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মাহবুবুর রহমান শামীম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও খাগড়াছড়ি বিএনপি‘র আরেক অংশের নেতা সমীরন দেওয়ান, জেলা বিএনপি‘র সভাপতি ওয়াদুদ ভুইয়া, সাধারন সম্পাদক আবু ইউছুপ চৌধুরী, জেলা যুবদলের সভাপতি আব্দুস সালাম।
সাংগঠনিক টীমের অন্যতম সদস্য গোলাম আকবর খন্দকার জানান, তিনি অসুস্থ্যতার কারনে সফরে যাননি। অন্য সদস্যরা সফরে গেছেন কিনা তিনি জানেন না।
সাংগঠনিক সফর বাতিল হওয়া প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মাহবুবুর রহমান শামীম জানিয়েছেন, ‘খাগড়াছড়িতে বিএনপি‘র দলীয় কোন্দল সামাল দিতে না পারার কারনে সফর স্থগিত করা হয়েছে কিনা এ সম্পর্কে মন্তব্য করবোনা। তবে হঠাৎ করেই সফর বাতিল করার ব্যাপারে জেলা নেতৃবৃন্দকে অবহিত করা হয়েছে।’
জেলা সাধারন সাধারন সম্পাদক আবু ইউছুপ চৌধুরী জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার সাথে অন্য সিডিউল থাকার কারনে সাংগঠনিক টীমের নেতা আব্দুল আউয়াল মিন্টু আসতে পারেননি।
অপরদিকে খাগড়াছড়ি বিএনপি‘র সমীরণ গ্রুপের নেতারা শনিবার রাতেই নিশ্চিত হয়েছিলেন কেন্দ্রীয় নেতারা আসছেন না। ওই গ্রুপের অন্যতম নেতা রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় নেতাদের স্বাগত জানাতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছিল। পুরো জেলায় শতাধিক বাস, জীপ ভাড়া নেয়া হয়। সফর বাতিল হয়েছে জেনেও ওয়াদুদ ভুইয়া ও তার নেতারা কর্মীদেরকে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু আসবেন বলে প্রচারনা চালান। বিভ্রান্ত হয়েই কিছু কিছু কর্মী ওয়াদুদ ভুইয়ার সমাবেশে যোগ দিয়েছেন। এটা ছিল তাদের কুটকৌশল।

সাড়ে ৭ বছরে ৪ বার
এর আগে ২০০৯ সালের ২৫ নভেম্বর খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সর্বশেষ সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন। তখন বিএনপি‘র বিবদমান দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ২০১১ সালের ১০ অক্টোবর মামলায় হাজিরা দিতে আসেন। ২০১৩ সালের ২ জুলাই জেলার মাটিরাঙ্গা বিএনপি নেতা আব্দুল মুন্নাফ এর জানাজায় যোগ দিতে এসেছিলেন। সাড়ে ৭ বছরে ওয়াদুদ ভুইয়া এ নিয়ে ৪ বার খাগড়াছড়ি এলেন।
ওয়ান ইলাভেনের সময় আইন শৃংখলাবাহিনীর হাতে গ্রেফতারের পর কারাভোগ করেন ওয়াদুদ ভুইয়া। বিভিন্ন অনিয়ম দূর্নীতির মামলায় ২০ বছরের সাজা হলেও বর্তমানে উচ্চ আদালতের আদেশে জামিনে রয়েছেন।
২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে সমীরণ দেওয়ান দলীয় প্রার্থী হওয়ার পর হতেই বিএনপিতে প্রকাশ্য বিরোধ দেখা দেয়। ওয়াদুদ ভুইয়া কারাগারে থেকে প্রার্থী হলেও তা খারিজ হয়। পরে তারই ভাতিজা দাউদুল ইসলাম ভুইয়াকে স্বতন্ত্র প্রার্থী দাড় করান। সাংগঠনিক এই অভ্যন্তরীন দ্বন্ধের পর হতে খাগড়াছড়িতে ওয়াদুদ ভুইয়া ও সমীরণ দেওয়ান গ্রুপ আলাদা আলাদাভাবে কর্মসুচি পালন করে আসছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply