শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় বরেন্দ্র কুমার ত্রিপুরাকে বিদায়

b-k-tripuraবিছানায় সাদা কাপড়ে মোড়ানো নিথর দেহ। বুধবার সকাল থেকে শোকাহত মানুষের ভীড়। ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে বিছানার চারপাশ। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, বান্দরবনসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ছুটে এসেছে আত্মীয় স্বজন, শুভানুধ্যায়িসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। পাহাড়ের আলোকিত ও বরেন্য ব্যক্তিত্ব বলে কথা। তিনি আর কেউ নন মুজিব নগর সরকারের প্রশাসনিক কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা বরেন্দ্র কুমার ত্রিপুরা। যাকে বেশিরভাগ মানুষ বি কে ত্রিপুরা নামেই চেনেন।
গত বুধবার দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের মিলনপুরস্থ নিজ বাসবভনে বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে পরলোক গমন করেন। মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। গুণী এই ব্যক্তির মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পরার পর থেকে নিজ বাড়িতে শোকাহত মানুষের ভীড় জমে। শোক প্রকাশ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, পার্বত্য চট্টগ্রাম শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, খাগাছড়ি আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দিপংকর তালুকদার, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীসহ বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারি ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। তারা শোক সন্ত্রস্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

এক শোক বার্তায় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, বরেন্দ্র কুমার ত্রিপুরার মৃত্যুতে পার্বত্যবাসী একজন নিবেদিতপ্রাণ মুক্তিযোদ্ধা তথা দেশপ্রেমিক ব্যক্তিত্বকে হারালো। তার মৃত্যুতে পার্বত্যবাসীর জন্য যে ক্ষত তৈরি হল তা পূরণ হবার নয়। এদিকে বৃহষ্পতিবার দুপর ১টার দিকে এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পুলিশের একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করেন।

এসময় এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পার্বত্য চট্টগ্রাম শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারি, জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। পরে একটি সু সজ্জিত গাড়ীতে করে বরেন্য এই ব্যক্তির মরদেহ খাগড়াপুর মহাশ্বশানে নেয়া হয়। সেখানেই বরেন্দ্র কুমার ত্রিপুরার শেষ কৃত্য সম্পূূূর্ণ হয়। বরেন্দ্রকুমার ত্রিপুরা পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি প্রক্রিয়ার একজন সক্রিয় সৈনিক ছিলেন। দুই পুত্র এবং দুই কন্যা সন্তানের জনক।

প্রথম পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি রণবিক্রম ত্রিপুরা, দ্বিতীয় ছেলে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব,পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি। দুই কন্যা বিবাহিত এবং স্বামীর সংসারে গৃহীনি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply