নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » শহরে গরম বেড়েছে আরো, তাপমাত্রা ৪০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস

শহরে গরম বেড়েছে আরো, তাপমাত্রা ৪০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস

সোমবার আরো বেশি তাপদাহ অনুভূত হয়েছে রাঙামাটি শহরে। গত কয়েকদিনের গড় তাপমাত্রা অতিক্রম করে এদিন রাঙামাটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন রোববার রাঙামাটিতে তাপমাত্রা ছিলো ৩৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত কয়েকদিনে রাঙামাটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার গড় ছিলো ৩৯ ডিগ্রির ওপরে। সে জায়গায় সোমবার তাও ছাড়িয়ে চল্লিশের কোঠা পেরিয়েছে। অত্যধিক গরমে জনজীবনে নাভিঃশ্বাস উঠেছে। দুপুরের দিকে প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। রাস্তায় নামলেই মনে হচ্ছে আগুনের স্ফুলিঙ্গ গায়ে পড়ছে। দুুপুরে রাস্তার ওপর হাঁটলে যেন মনে হয় আগুনের ওপর দিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

রাঙামাটি আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক গাজী হোসেন আহম্মেদ জানান, সপ্তাহখানেক ধরে রাঙামাটিতে গড় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় প্রায় ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত বুধবার থেকে রোববার পর্যন্ত রাঙামাটিতে তাপমাত্রা ৩৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। কিন্তু সোমবার তাও ছাড়িয়ে ৪০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। তিনি বলেন, এ মৌসুমের এখনো পর্যন্ত এটাই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। তবে যেভাবে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে বৃষ্টি না হলে আরো তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এতো তাপমাত্রার মধ্যেও হালকা বাতাস থাকায় লোকজন কিছ্টুা স্বস্তি অনুভব করছে।

গরমে তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় হাসপাতালে বেড়েছে গরমজনিত রোগীর সংখ্যাও। রাঙামাটি সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার শওকত আকবর বলেন, অত্যধিক গরমে শিশুর ডায়রিয়া, বমি বেড়ে যায়। শিশুদের পানিশূন্যতার কারণে ঝুঁকি বাড়ে তাই এই সময়ে শিশুদের পর্যাপ্ত বাতাসে রাখার পরামর্শ দেন। বাতাস কম থাকলে শিশু দ্রুত ঘেমে যায়। ঘামে শুকিয়ে শিশুর ঠান্ডা লেগে সর্দি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যার থেকে নিউমোনিয়াও হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অত্যধিক গরমে শরীর থেকে ঘামের সাথে লবণও বের হয়ে যাওয়ায় শিশু দুর্বল হয়ে পড়ে। তাই পানির সাথে খাবার স্যালাইন, ডাবের পানি ও শরবত খেতে দিতে হবে। এছাড়া তিনি বেশি করে তরমুজ খাওয়ারও পরামর্শ দেন।

পাহাড়ি এ অঞ্চলে শুষ্কতর আবহাওয়ার প্রেক্ষাপটে অব্যাহতভাবে গাছ নিধন ও অপরিকল্পিত জুমের আগুনে গরমের তীব্রতা বেড়েছে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। জুম চাষের জন্য জমি প্রস্তুত করতে এসময় জঙ্গলে আগুন দেওয়া হয়। এছাড়া পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না নিয়ে অবৈধভাবে প্রতিনিয়ত ইটভাটা গড়ে তোলার কারণে গরমের তীব্রতা বেড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাচিং প্রু মারমার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা …

Leave a Reply