নীড় পাতা » খেলার মাঠ » লেথামের সেঞ্চুরীর পরও হারলো রাঙামাটি

লেথামের সেঞ্চুরীর পরও হারলো রাঙামাটি

lethaammবাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের আয়োজনে জাতীয় ক্রিকেট বিভাগীয় প্রতিযোগিতা ২০১৫-১৬ ক্রিকেটে আজ চট্টগ্রামে জহুর আহম্মেদ স্টেডিয়ামে রাঙামাটি জেলা ক্রিকেট দল তাদের ১ম ম্যাচে ৩৬ রানে লক্ষীপুর জেলা ক্রিকেট দলের কাছে পরাজিত হয়েছে।
সকালে টসে জিতে রাঙামাটি জেলা লক্ষীপুরকে ব্যাটিংয়ে পাঠায়।রাঙামাটি জেলার ফাস্ট বোলার ইমরান হাসান বাবুর বোলিং তোপে পড়ে লক্ষীপুর ৭৪ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে।বাবু প্রথম স্পেলে ৩ উইকেট নিয়ে লক্ষীপুরকে ব্যাকফুটে ফেলে দেন।লক্ষীপুরের মিডল অর্ডারের মেহেদী হাসান ও রবিউল অালম রাঙামাটির বোলিং অ্যাটাকের বিপক্ষে প্রতিরোধের দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে যায়।তাদের জুটি দলকে নিরাপদ স্কোরের দিকে নিয়ে যায়।মেহেদী ৬৭ রান করে অপরাজিত থাকে।রবিউল আলম দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৬ রান করে। শেষের দিকে নাহিদের ঝড়ো ২৩ বলে ৩৩ রানে লক্ষীপুর জেলা ৫০ ওভারে ২৭৩ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর করে ইনিংস শেষ করে।রাঙামাটির ইমরান হাসান বাবু ৪ উইকেট লাভ করেন।
রাঙ্গামাটি জেলা দল মধ্যাহ্ন বিরতির পর ব্যাটিংয়ে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ৫৪ রানে ৩ উইকেট হারায়।রাঙামাটির এই বিপর্যয়ের মুহুর্ত্বে হাল ধরেন মোঃইলিয়াস লেথাম ও বিপু বড়ুয়া।লেথাম তার অনবদ্য ব্যাটিং নৈপুন্যে লক্ষীপুরের বোলিংকে সাধারন মানে নামিয়ে আনেন।জাতীয় চ্যাম্পিয়নশীপের ইতিহাসে রাঙামাটি পক্ষে প্রথম সেঞ্চুরী করে ইতিহাস রচনা করেন ইলিয়াস লেথাম। লেথাম ১১১ বলে ১১৩ রান করে আউট হন।বিপু ৬২ বলে ৩৭ রান করে লেথামকে যোগ্য সহযোগিতা করেন।এই দুইজন আউট হওয়ার পর আর কেউ প্রতিরোধ করে দলকে বিজয়ে দ্বাড়প্রান্তে নিয়ে যেতে পারেনি।ফলে জয়ের ৩৬ রান বাকী থাকতে রাঙামাটি জেলা দল ৪৬.৪ ওভারে ২৩৭ রানে অলআউট হয়ে পরাজয় বরন করেন।লক্ষীপুরের মেহেদী ৪৪ রানে ৪ উইকেট লাভ করেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply