নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » লামায় পুলিশ-কাঠ চোরাকারবারী সংঘর্ষে আহত ৪

লামায় পুলিশ-কাঠ চোরাকারবারী সংঘর্ষে আহত ৪

বান্দরবানের ফাঁসিয়াখালীতে কাঠ চোরাকারবারীদের সঙ্গে পুলিশ সংঘর্ষে তিন পুলিশ’সহ ৪ জন আহত হয়েছে। এসময় পুলিশের আটক করা চোরাই কাঠের ট্রাক’টিও চোরাকারবারীরা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার গভীর রাতে জেলার লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ডুলাহাজারামুখ এলাকায় আওয়ামীলীগ নেতা কাঠ ব্যবসায়ী সৈয়দ সওদাগরের চোরাই গাছের ট্রাক গাড়ী আটক করে পুলিশ। খবর পেয়ে স্থানীয় কাঠ চোরাকারবারীরা দলবল নিয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়। বেশ কিছুক্ষন চলা সংঘর্ষে লামার থানার তিন পুলিশ সদস্য’সহ ৪ জন আহত হয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে কক্সবাজারের চকরিয়া ডুলাহাজারা হাসপাতালে ভর্তি করে। আহতদের মধ্যে গুরুতর পুলিশ সদস্য আজিজুল’কে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিক্যাল হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা।

চিকিৎসক আনিস জানান, হামলায় আহত তিন পুলিশ সদস্য’কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

ফাসিয়াখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, লামা ফাসিয়াখালী থেকে রাতের আধাঁরে কাঠ নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ ধাওয়া দিলে চকরিয়ার ডুলাহাজারা বাজারমুখ এলাকায় পুলিশের উপর হামলা চালায় কাঠ চোরাকারবারীরা। হামলায় কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার খবর পেয়েছি।

তবে পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাজাহান খান জানান, চোরাই কাঠের একটি ট্রাক আটকের সময় ফাঁসিয়াখালীতে পুলিশের উপর হামলা চালায় কাঠ চোরাকারবারীরা। পাচারকারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে হামলা চালানোর কারণে পুলিশ পিছু হটতে বাধ্য হয়। চোরাই গাছের ট্রাকটিও আটক করা যায়নি, চোরাকারবারীরা গাড়ীটি নিয়ে পালিয়ে গেছে। তবে এই ঘটনায় সামান্য চোট পেলেও কোনো পুলিশ সদস্য আহত হয়নি।

এদিকে অভিযুক্ত কাঠ ব্যবসায়ী আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ সওদাগর জানান, আমি শারীরিকভাবে অসুস্থ। কাঠ চোরের সঙ্গে পুলিশের কি ঘটনা হয়েছে, এই বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে পুলিশ কনস্টেবলের ‘আত্মহত্যা’, নেপথ্যে ‘প্রেম’

রাঙামাটিতে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় এক পুলিশ কনস্টেবলের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সকালে জেলা …

Leave a Reply