নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » লক্ষ্মীছড়িতে তিন সংগঠনের যৌথ সম্মেলন

লক্ষ্মীছড়িতে তিন সংগঠনের যৌথ সম্মেলন

laxmichariখাগড়াছড়ি জেলার লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় শিক্ষার মান উন্নয়ন ও সামাজিক অবক্ষয়রোধ কল্পে তিন সংগঠনের যৌথ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৪ নভেম্বর বেলতলীপাড়া হেডম্যান কার্বারি এসোসিয়েশন সেন্টারে আয়োজিত এ যৌথ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন দুল্যাতলী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত মেম্বার উচাইপ্রু মারমা এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন দয়া ধন চাকমা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন লক্ষীছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান রাজেন্দ্র চাকমা। আরও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মাঝে উপস্থিত ছিলেন নিলবর্ণ চাকমা, পাইচাউ মারমা, রতন চাকমা প্রমুখ।

যৌথ সম্মেলন সভায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন লক্ষীছড়ি উপজেলা পিসিপি’র সভাপতি উষামং মারমা, পরে পর্যায়ক্রমে হিল ইউমেন্স ফেডারেশনের লক্ষীছড়ি উপজেলা আহবায়ক রেশমি মারমা, তিন সংগঠনের সমন্বয় আপ্রুসি মারমা, খাগড়াছড়ি জেলা পিসিপি’র সাধারণ সম্পাদক সনজিত ত্রিপুরা, হিল ইউমেন্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক দিত্বীয়া চাকমা, লক্ষীছড়ি কার্বারি এসোসিয়েশনের সভাপতি অসিম চাকমা, বিশিষ্ট গন্যমান্যব্যক্তি মনিভদ্র চাকমা, প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন চাকমা, জাতি স্বত্ত্বা মুক্তি কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় সদস্য বিনোদ মুন্ড, খাগড়াছড়ি জেলা গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের আহবায়ক জিকু চাকমা, লক্ষীছড়ি কলেজের অধ্যক্ষ ডথুইপ্রু ডলি, লক্ষীছড়ি ভূমি রক্ষা কমিটির প্রতিনিধি রতন চাকমা, লক্ষীছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান রাজেন্দ্র চাকমা ও উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা।

শিক্ষার মান উন্নয়ন ও সামাজিক অবক্ষয় রোধ কল্পে অনুষ্ঠানের আলোচ্য ও সিদ্ধান্ত মোতাবেক ৫টি কর্মসূচি গ্রহণ করা হয় ১. এসএসসি পাশ ব্যতিত শিক্ষার্থীরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না। ২. বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে হবে। ৩. মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। ৪. শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে প্রাইভেট পড়ানো হবে। ৫. নেশা দ্রব্য থেকে শিক্ষার্থীদের দূরে রাখা।

খাগড়াছড়ি জেলা গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের আহবায়ক বলেন, আমরা সন্ত্রাস নই, আমাদেরকে সন্ত্রাস বানানো হচ্ছে, আমাদের ওপর নির্যাতনের কথা বলতে গেলেই আমরা সন্ত্রাস হয়ে যাই। ১৯৯৬ সালে আমাদের বোন কল্পনা চাকমার অপহরণের বিচার আমরা এখনও পর্যন্ত পাইনি।

অনুষ্ঠানের সভাপতি এই উন্নয়নমূলক কার্যক্রমকে জুম্মজাতির আন্দোলন বলে আখ্যায়িত করেন এবং সকল উপস্থিতিকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্য বিভাগকে সুরক্ষা সামগ্রী দিলো রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট

নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রাঙামাটির ১২টি সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রসমূহে স্বাস্থ্য …

Leave a Reply