নীড় পাতা » করোনাভাইরাস আপডেট » লকডাউনে গিয়ে জানা গেল রোগী মারা গেলো ৫ দিন আগেই !

লকডাউনে গিয়ে জানা গেল রোগী মারা গেলো ৫ দিন আগেই !

নমুনা দেয়ার একদিন পরই করোনা নিয়ে মারা গিয়েছিল চার মাসের এক শিশু। মারা যাওয়ার পাঁচদিন পর করোনা রিপোর্ট আসার পর জানতে পারে শিশুটির দেহে করোনাভাইরাস রয়েছে। স্বাভাবিকভাবে অন্যান্য রোগীদের মতো শিশুটির বাড়ির লকডাউন করতে গিয়ে প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ জানতে পারে শিশুটি মারা গেছে। এই নিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। রাঙামাটি শহরের শান্তিনগর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে রাঙামাটি ১৬ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে, তার মধ্যে একজন ছিলেন শহরের শান্তিনগর এলাকায় বাসিন্দা শামিম হোসেনের চার মাসের কন্যা সন্তান শাওরিন ইসরাত। সংবাদটি পেয়ে রাতেই প্রশাসন তার বাড়ি লক ডাউন করতে গেলে জানতে পারে শিশুটি গত ১১ তারিখ দুপুরেই মারা যান।

শিশুটির বাবা শামিম হোসেন জানান, আমার মেয়ে ১০ তারিখ হঠাৎ করে শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিলো, তাই আমরা তাকে প্রথমে একজন ডাক্তার দেখাই পরে অবস্থা আরো খারাপ হওয়ায় রাঙামাটি সদর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে একরাত থাকার পরে ডাক্তার আমাদেরকে জানাই তাকে নিয়ে চট্টগ্রাম চলে যেতে। কিন্তু আমি দিনমজুর মানুষ অত টাকা নেই মেয়েকে চট্টগ্রাম নেওয়ার। তাই তাকে হাসপাতালে রাখলে নিজের দায়িত্ব নিয়ে রাখতে হবে, তারা কিছু করতে পারবে না বলায়, আমি মেয়েকে নিয়ে ১১ তারিখ দুপুর বেলা হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসার পথেই সে সিএনজি অটোরিক্সায় মারা যায়। পরে তাকে আমরা কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করি। তিনি আরো জানান, করোনার নমুনা নেয়া হয়েছে, বিষয়টি আমরা কাউকে জানাতে রাজি হইনি, কারণ এতে সামাজিকভাবে আমাদেরকে হেনস্তা করতো, এই ভয়ে আমরা আর কাউকে বিষয়টি জানাইনি।

রাঙামাটি সিভিল সার্জন অফিসের করোনা ফোকাল পার্সন ডা: মোস্তফা কামাল জানান, ১০ জুন শিশুটির নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছিলো। ১৬ জুন মধ্যরাতে তার রিপোর্ট আসে। সেখানে দেখা যায় শিশুটির করোনা পজিটিভ। পরে প্রশাসন ও স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়ি লক ডাউন করতে গেলে জানা যায় শিশুটি গত ১১ তারিখই মারা গেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এডিসি) উত্তম কুমার দাস জানান, মঙ্গলবার রাতে করোনা রিপোর্টে শিশুটি পজিটিভ আসায় প্রশাসন তার বাড়ি লক ডাউন করতে গিয়ে জানতে পারে শিশুটি গত ১১ জুন মারা গেছে। আমরা তার বাড়িসহ আশপাশের বাড়ি লকডাউন করেছি এবং তাদের খোঁজ খবর নিচ্ছি। রাঙামাটিতে এ পর্যন্ত তিনজন করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার প্রতিবাদ রাঙামাটিতে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার নামে ‘উগ্রমৌলবাদ ও ধর্মান্ধগোষ্ঠীর জনমনে বিভ্রান্তির …

Leave a Reply