নীড় পাতা » ব্রেকিং » লংগদু আ.লীগের ২১ আগস্টের আলোচনা সভা

লংগদু আ.লীগের ২১ আগস্টের আলোচনা সভা

Langadu-pic-1ভয়াবহ ২১ আগস্টের হামলায় দেশরতœ ও বঙ্গবন্ধু কণ্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টার করা হয়। ২০০৪ সলে ক্ষতমা থাকাকালীন বিএনপি সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার বাসায় এই হত্যার নীল নকশা হয়। দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার জন্য এবং বঙ্গবন্ধুর পরিবারের বাকীদের হত্যার মূল উদ্দেশ্যই ছিল তাদের। রোববার বিকেলে লংগদু উপজেলা আওয়ামীলীদের দলীয় কার্যালয়ে ২১ শে আগস্টের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে লংগদু উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাঙামাটি জেলা পরিষদের সদস্য জানে আলম এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর হত্যার মূল পরিকল্পনারকারী আর তার ছেলে তারেক জিয়া বঙ্গবন্ধুর তণয়া শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য ১৯ বার চেষ্টার করে। তিনি আরো বলেন ২০০৪ সনের ২১ আগস্ট বিকেলে সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে সন্ত্রাসীরা গ্রেনেড ছুড়ে মারে ভাগ্যক্রমে বেঁচে জান তিনি কিন্তু সেখানে অসংখ্য নেতাকর্মীরা প্রাণ হারায়। কিন্তু সেই মামলায় আসামী হিসেবে জজ মিয়ার নাটক তৈরী করে সেই সময় ক্ষমতায় থাকা বিএনপি সরকার।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন লংগদু উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নূর জাহান বেগম, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুভাষ দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল দাশ (বাবু) ও মো: হারুনুর রশিদ, বাংলাদেশ কৃষকলীগের সভাপতি ও কালাপাকুজ্জ্যা ইউপির চেয়ারম্যান মো: গোলাম মোস্তফা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি জিয়াউল হক।

এসময় বক্তরা বলেন, বঙ্গববন্ধুর পরিবারের বাকী সদস্যদের নিশ্চিহ্ন করার লক্ষ্যেই এই গ্রেনেড হামলা করা হয়। ১৯৭১ সালের পরাজিত শক্তিরাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর বঙ্গবন্ধু কণ্যাকে হত্যার চেষ্টা করে তারা।

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালে ওয়ান ইলেভেনের পট পরিবর্তনের পর ২১ আগস্ট হামলা মামলার দৃশ্যপট পাল্টে যেতে থাকে। নতুন করে এ মামলার তদন্তের নির্দেশ দেয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ২০০৯ সালে আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় গেলে পুরোপুরি পাল্টে যায় মামলার তদন্তের ধারা। ৬১ জন স্বাক্ষ্যগ্রহণের পর ২০০৯ সালের ২৫ জুন আদালতের কাছে এ মামলার অধিকতর তদন্তের আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। শুনানি শেষে ওই বছরের ৩ আগস্ট আদালত অধিকতর তদন্তের আবেদন মঞ্জুর করেন। অধিকতর তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার আবদুল আহহার আকন্দকে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply