নীড় পাতা » পাহাড়ের অর্থনীতি » লংগদুতে জাম্বুরা’র ব্যাপক ফলন

লংগদুতে জাম্বুরা’র ব্যাপক ফলন

jamburaরাঙামাটির লংগদু উপজেলায় পাহাড়ী ভূমিতে ফলন হচ্ছে মিষ্টি ও রসালো জাতের জাম্বুরা (বাতাবিলেবু)।
উপজেলার আটারকছড়া ইউনিয়নের ডানেছড়া এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, সড়ক থেকে প্রায় সত্তর ফুট উচু পাহাড়ী টিলা ভূমিতে গাছে গাছে দোল খাচ্ছে উচ্চ ফলনশীল জাতের জাম্বুরা।
ঐ এলাকার বাসিন্দা দয়ানীতি চাকমার সাথে কথা হলে তিনি জানান, তার বাড়ীর চারদিকে তিনি দশটি জাম্বুরা গাছ লাগিয়েছেন। গত চার বছর ধরে ফলন হচ্ছে। প্রতি বছর তিনি ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকার জাম্বুরা বিক্রি করে সংসারের খরচ মেটান। তিনি আরো জানান, এই এলাকায় প্রত্যেকের বাড়ীতে কম বেশি জাম্বুরার গাছ রয়েছে। দুই জাতের জাম্বুরার ফলন হয়। অক্টোবর মাসেই জাম্বুরা ফল ভালো পরিপক্ষ ও রসালো হয়। পাইকাররা বাড়ীতে এসে ফল কিনে নেয়। তবে হাট-বাজারে নিয়ে বিক্রি করতে পারলে লাভ বেশি হয়। কিন্তু এতে সময় ও ব্যয় সাপেক্ষ।
এলাকার আরেক বাসিন্দা শান্তি রতন চাকমা জানান, জাম্বুরা বিক্রি করে অনেকে লাভবান হয়েছেন। এখানকার মাটি জাম্বুরা উদপাদনে জন্য খুবই উপযোগী।

উপজেলায় এবার প্রায় ১৮ হেক্টর পাহাড়ী ও সমতলী জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের জাম্বুরার আবাদ হয়েছে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়।

উপজেলা কৃষি অফিসার এমএম শাহ নেয়াজ জানান, চলতি মৌসুমে উপজেলার বামেছড়া ও হাজাছড়া, ডানেছড়া, পেয়ারাছড়া, ইয়ারিংছড়ি, বামে লংগদু, বড়কাট্রলী, রাধামন, দোজরপাড়া, গুলশাখালী এসব এলাকায় সবছেয়ে বেশি মিষ্টি জাতের জাম্বুরার আবাদ করা হয়েছে। প্রতি হেক্টর জমিতে আনুমানিক ২০ মেঃ টন হারে ৩৬০ মেঃ টন জাম্বুরা ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার অনেক বেশি জাম্বুরার ফলন হয়েছে।

স্থানীয় কৃষকরা জানায়, চলতি মৌসুমে কোন প্রাকৃতিক দূর্যোগ না হওয়ার কারণে এবার জাম্বুরার ফলন ভালো হয়েছে। এখানকার উদপাদিত জাম্বুরা রসালো ও মিষ্টি জাতের। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিভিন্ন জেলা শহরে জাম্বুরা বিক্রির জন্য পাঠানো হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকরা জাম্বুরা বিক্রি করে বেশ লাভবান হচ্ছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

তিল চাষে রাঙামাটির বাসুদেব চাকমার সাফল্য

রাঙামাটির সদর উপজেলার রাঙামাটি-কাপ্তাই সংযোগ সড়কের জীবতলী ইউনিয়নের আগরবাগান এলাকার পাহাড়ি জমি জুড়ে তিল চাষ …

Leave a Reply