নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » রাত পোহালেই খাগড়াছড়ি-লামায় ভোট

পৌরসভা নির্বাচন

রাত পোহালেই খাগড়াছড়ি-লামায় ভোট

রাত পোহালেই খাগড়াছড়ি ও লামা পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হবে। শনিবার সকাল ৮ টায় শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার থেকে শেষ হল পৌর নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা। যান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে প্রশাসন। নির্বাচনে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি জানিয়েছেন,  ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহারে মাদক-সন্ত্রাস মুক্ত সমাজ, পর্যটন, পরিবেশ এবং নারী ও শিশুদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। বিএনপি’র প্রার্থী বলছেন, পৌর চিকিৎসা কেন্দ্রসহ বেকার যুবক-যুবতীদের জন্য আত্মকর্মসংস্থান তৈরির কথা।

অন্যদিকে, বর্তমান মেয়র ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বলছেন মাস্টারপ্লান অনুসারে পৌর শহরের উন্নয়নে তিনি আবারও কাজ করতে চান। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। খাগড়াছড়ি পৌরসভা স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী রফিকুল আলম বলেন, ‘আমি বিগত ১০ বছর পৌরবাসীর সেবক হিসেবে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছি। বঙ্গবন্ধু আবাসন প্রকল্প, সড়ক প্রশস্তকরণ, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ পর্যটকবান্ধব শহর গড়ে তুলেছি। আসন্ন পৌর নির্বাচনে জয়ী হলে মাস্টার প্লান বাস্তবায়ন করে খাগড়াছড়িকে আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলব। তিনি আরো বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিদিন গণসংযোগ করছি। পৌরবাসীর সহযোগিতায় আমি মুগ্ধ। পৌরবাসী যেভাবে সাড়া দিচ্ছে নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ‘মোবাইল প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত। ’

আওয়ামীলীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে নাগরিকদের প্রয়োজনকে অগ্রধিকার দিবো। পৌর এলাকায় শিশু পার্ক করব। এছাড়া ৩৫ দফা নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছি। আমি মনে করি জনগণ আমার ইশতেহার গ্রহণ করবে। নৌকার উন্নয়নের প্রতীক। মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিবে।’

বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী ইব্রাহিম খলিল বলেন, খাগড়াছড়ির পৌরবাসীর ওপর করের বোঝা কমাব। গ্রামীণ রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন করব। শিশু পার্ক করব। পর্যটন কেন্দ্র সাজেককে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়িতে প্রচুর পর্যটক আসে। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে পর্যটনবান্ধব শহর গড়ে তুলব।

আর ভোটারদের প্রত্যাশা এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি পৌর করের বোঝা হ্রাস করবেন এমন প্রার্থী বিজয়ী হোক এবারের নির্বাচনে। সাধারণ ভোটাররা বলেন, আমাদের ওপর করের বোঝা কমবে এমন প্রার্থীকে নির্বাচিত করব। এছাড়া যে প্রার্থী মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজমুক্ত পৌর শহর চাই। সন্ত্রাস এবং চাঁদাবাজ মুক্ত রাখবে এমন প্রার্থী বিজয় চাই। যে প্রার্থী আমাদের দুর্দিনে আমাদের পাশে থাকবে আমরা তাকে ভোট দিবো।

শেষ সময় পর্যন্ত নির্বাচনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখতে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে দু’দিনব্যাপী ইভিএম ভোটিং মেশিন ব্যবহার সর্ম্পকে ধারণা দেয়ার জন্য প্রিজাইডিং, সহকারি প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এতে ১৯জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১১৫জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও ২৪৫জন পোলিং অফিসারকে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন ইভিএম ব্যবহার সর্ম্পকে বিস্তারিত ধারণা দেন জেলার ৬টি উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তারা। এদিকে ইভিএম সর্ম্পকে ভোটারদের জানাতে মক ভোটিং করেছে নির্বাচন কমিশন।

খাগড়াছড়ি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রাজু আহমেদ জানান, দ্বিতীয় ধাপে খাগড়াছড়ি পৌরসভার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৬ জানুয়ারি। নির্বাচনে ৪ মেয়র প্রার্থীসহ ৫৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আশা করি পৌরবাসীকে সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে পারব।

এদিকে বান্দরবানের লামা প্রতিনিধি জানান,  লামা পৌরসভার চতুর্থ নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে মেয়র পদে ৩জন সহ সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অবাধ, শান্তিপূর্ণ এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষে ইতিমধ্যে সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। এজন্য প্রিজাইডিং, সহকারি প্রিজাইডিং এবং পোলিং অফিসার নিয়োগ দিয়ে নির্বাচন সংক্রান্ত প্রশিক্ষণও প্রদান করা হয়। ভোট গ্রহণের দিন কেন্দ্র ও সার্বিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে¡ ৯ জন ম্যাজিস্ট্রেটসহ র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ভিডিপির পাশাপশি বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এবারে পৌরসভার ৯টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ২টি কেন্দ্রকে অতিগুরুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুুত্বপূর্র্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে পুলিশ প্রশাসন।

সূত্র জানায়, ২৮.৪৯ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজুুুার ৩৮৯জন। এর মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৩০০ জন ও মহিলা ৬ হাজার ৩৮৬জন। এ সকল ভোটাররা ৯ টি ভোট কেন্দ্রের ৩৯টি ভোট কক্ষের মাধ্যমে ভোট প্রদান করবেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় দুইটি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

কেন্দ্রগুলো হলো- লাইনঝিরি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শিলেরতুয়া মার্মা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। অন্য কেন্দ্রগুলো হলো- চাম্পাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, লাুমা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চেয়ারম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রাজবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলিঙ্গাবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মধুঝিরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে। বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়ছেন উপজেলা বিএনপির একাংশের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহীন। এ দু’য়ের সাথে ভোটের মাঠে আছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এটিএম শহিদুল ইসলাম লাঙ্গল প্রতীকে।

অপরদিকে, চূড়ান্তভাবে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৬ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯ জন প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। সব প্রার্থীই প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে দিন রাত পাহাড় নদী ডিঙ্গিয়ে ভোটারদের বাড়ী বাড়ী উঠান বৈঠক, প্রচার প্রচারনাসহ গণসংযোগ করেছেন। পৌরসভার প্রতিটি অলি গলিতে টাঙ্গিয়েছেন ডিজিটাল ব্যানার ও পোস্টার। রাত ১২টার পর থেকে নিরাপত্তার স্বার্থে যানবাহন চলাচলসহ বহিরাগতদের পৌরসভা এলাকায় অবস্থান নিষিদ্ধ করা হয়।

লামা পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও বান্দরবান জেলা নির্বাচন অফিসার মো. রেজাউল করিম জানিয়েছেন, নির্বাচন যাতে করে অবাধ, শান্তিপূর্ণ এবং নিরপেক্ষ হয় সে জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি ইতিমধ্যে গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রিজাইডিং, সহকারি প্রিজাইডিং এবং পোলিং অফিসার নিয়োগ দিয়ে নির্বাচন সংক্রান্ত প্রশিক্ষনও প্রধান করা হয়। এখন শুধু ভোট গ্রহনের অপেক্ষায়। আশা করি লামা পৌরবাসীকে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে পারবো। এজন্য সকলের সহযোগিতাও কামনা করেন তিনি।

এ বিষয়ে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে প্রতি কেন্দ্রে ৮ জন পুলিশ সদস্য থাকবে। এছাড়া থাকবে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুরুষ ও মহিলা আনসার ভিডিপি সদস্য। পাশাপাশি ৯জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে র‌্যাব, বিজিবি আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা হলেন দীপংকর তালুকদার

বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার প্রধান উপদেষ্টা হয়েছেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী …

Leave a Reply