নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » ‘রাজনগর বিজিবি শান্তি ও সম্প্রীতির অনন্য উদাহরণ

‘রাজনগর বিজিবি শান্তি ও সম্প্রীতির অনন্য উদাহরণ

DSCF3032রাঙামাটির লংগদু উপজেলার রাজনগর বিজিবি জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মোঃ বনী আমীন বলেন, ‘রাজনগর বিজিবি জোন’ শান্তি ও সম্প্রীতির অনন্য উদাহরণ। এখানে পাহাড়ী বাঙালী সকলেই সম্প্রীতির সাথে বসবাস করছে। সকল সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে রাজনগর জোন প্রাণপন চেষ্টা করে যাচ্ছে।

আজকের মতবিনিময় সভা আমার উপস্থিতিতে প্রথম যাতে এই জোনের আওতাধীন এলাকা সমূহে কোন প্রকার অপ্রীতিকর অবস্থার সৃষ্টি না হয়, তজ্জন্য সকলকেই সচেষ্ট থাকতে হবে। জোনের সহায়তা নেওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়। কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনার দ্বারা আমাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা হচ্ছে। গত ২৩ সেপ্টেম্বর শব্জি ক্ষেত নষ্ট করা ও অবধৈভাবে চাঁদা চওয়া ইত্যাদি বিচ্ছিন্ন ঘটনার সৃষ্টি। স্থিতি অবস্থাকে বিনষ্ট করার জন্য পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলো প্রচেষ্টা অব্যাহত চেষ্টা চালাচ্ছে। পাহাড়ী-বাঙ্গালীদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির অপচেষ্ঠা চালাচ্ছে। এব্যাপারে রাজনগর বিজিবি জোন যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন করায় অপ্রীতিকর অবস্থা সৃষ্টি করা সম্ভব হয়নাই।

বুধবার সকাল দশটায় লংগদুর রাজনগর বিজিবি জোনের উদ্যোগে জোনের সম্মেলন হলে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মোঃ বনী আমীন একথাগুলো বলেছেন।
এসময় থানা প্রশাসন, আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন, এলাকার গন্যমান্য ও হেডম্যান, কার্বারী, জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর মোঃ হাসিবুল, আর,এম,ও ক্যাপ্টেন,মোঃ ইমরান হাসান চৌধুরী।

এছাড়া গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম,সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আবু নাছির,বগাচতর ইউপি চেয়ারম্যান,মোঃ আব্দুল গফ্ফার, সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াছেক আলী আকন্দ, চূড়াখালী আমতলী ইউপি চেয়ারম্যান সাহেব আলী, জেএসএস সভাপতি ত্রিলোচন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক মনি শংকর চাকমা, হেডম্যান বিয়ার থাং পাংখোয়া, বিনয় কুমার চাকমা কার্বারী, মনমোহন চাকমা কার্বারী, অরুন কান্তি চাকমা মেম্বার, রতন চাকমা কার্বারী, আব্দুল বারেক মেম্বার,হারুনুর রশীদ মেম্বার, ইসলাম উদ্দিন মেম্বার, মিলন চাকমা বক্তব্য রাখেন।

জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মোঃ বনী আমীন বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, আমি বুঝি শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়ন। যারা কেহই রেহাই পাবেনা। শক্তভাবে নিয়ন্ত্রন করা হবে। সকলে সংযমী হওয়ায় ঐদিন খারাপ কিছু হয়নাই। তাই সকলের নিকট কৃতজ্ঞ পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে পাহাড়ী বাঙালী সকলেই পরস্পর আলোচনা ক্রমে বিপদগামীদেরকে আলোচনা ক্রমে সঠিক পথে পরিচালনা করার পরামর্শ দেন। উন্নয়নের ধারা ও স্থিতিশীল পারিস্তিতি পরস্পর পরস্পরের মধ্যে সম্পর্ক। স্থিতিশীল না থাকলে উন্নয়ন সম্ভব হয়না।

আমি বুঝি শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়ন। যারা বাধা সৃষ্টি করবে তারা কেউই রেহাই পাবেনা। শক্তভাবে নিয়ন্ত্রন করা হবে। সকলে সংযমী হওয়ায় ঐদিন খারাপ কিছু হয়নাই। তাই সকলের নিকট কৃতজ্ঞ। পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে পাহাড়ী বাঙালী সকলেই পরস্পর আলোচনা ক্রমে বিপদগামীদেরকে সঠিক পথে পরিচালনা করার পরামর্শ দেন। উন্নয়নের ধারা ও স্থিতিশীল পরিস্তিতি পরস্পর পরস্পরের মধ্যে সম্পূরক।

তিনি বলেন, স্থিতিশীল না থাকলে উন্নয়ন সম্ভব হয়না। নানিয়াচরের ঘটনা একটি বিভেদ সৃষ্টির পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তা ঠিক নয়। সেনাবাহিনী কোন প্রকার পক্ষপাত করেনি। মানুষকে ভূল বুঝাবেননা। নিজেদের বুদ্ধিমত্তা দিয়ে যে কোন ঘটনা উপলব্ধি করবেন। শান্তি শৃঙ্খলা সম্প্রীতি সুদৃঢ় ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত হোক।

তিনি বলেন, গুলশাখালীতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন বিদ্যুতের আলোয় অলোকিত হলে এলাকাবাসী উপকৃত হবে। এখানে কোন বিবাদের সম্ভাবনা না থাকলেই সকলেই এখানে আসতে উৎসাহিত হবে। বিশ্বাসের ভীত যেন অক্ষুন্ন থাকে তজ্জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি। শান্তি সম্প্রীতি যাতে সুদৃঢ় ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত হয়। সকলে সেই চেষ্টা করবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিএনপি’র প্রচারপত্র বিতরণ

রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে জনসচেতনতামূক প্রচারণা ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার …

Leave a Reply