নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » রাঙামাটি পাবলিক কলেজ নিয়ে ওনারা যা বললেন…

রাঙামাটি পাবলিক কলেজ নিয়ে ওনারা যা বললেন…

Cover-speakerপার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন,-‘সরকারি চাকুরিজীবিরা সাধারণত চাকুরী শেষ হলেই গৃহে ফিরে যায়। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ আছে যারা সৃষ্টিতে আনন্দ পান। এই সৃষ্টি থেকে অনেক মানুষ উপকার পেয়ে থাকে।, তিনি জেলাপ্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামালের এরকম উদ্যোগের জন্য সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, ‘বৃক্ষ লাগায় একজন আর এর ফল খায় অনেকে,মাঝখানে বৃক্ষের জন্য অনেক যুদ্ধ করতে হয়।’ একই সময় প্রতিমন্ত্রী রাঙামাটি পাবলিক কলেজের সমস্ত দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেওয়ার ঘোষণা দেন।bir

সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, ‘যারা শিক্ষার আলো ছড়াতে দিতে চায় না, তারা আঞ্চলিকতার সঙ্কীর্ণতার মধ্যে থেকে উন্নয়নের বিরোধিতা করে। তারা মেডিকেল কলেজের বিরোধিতা করে, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরোধিতা করে, তাদের কাজই শুধু বিরোধিতা করা। মেডিকেল কলেজের বিষয়ে দীপংকর তালুকদার বলেন, ‘গুলি খাওয়ার ভয়ে অনেকেই চুপি চুপি এসে ভর্তি হওয়ার জন্য যোগাযোগ করে যাচ্ছে।’ তিনি জেলা প্রশাসকের উদ্যোগের প্রশংসা জানিয়ে বলেন, আসন সঙ্কটের কারণে অনেকেই উচ্চ শিক্ষা থেকে বিরত থাকতে হতো, কিন্তু পাবলিক কলেজটি চালু হলে আসন সঙ্কটের জন্য কাউকে আর পড়ালেখা থেকে বিরত থাকতে হবে না।

dipরাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল বলেন, যে জায়গায় পাবলিক কলেজ করা হচ্ছে জায়গাটি নিষ্কন্টক জমি। জমিটি নিয়ে মামলা মোকদ্দমার কোনো ঝামেলা নেই। কলেজটি নির্মাণের ব্যাপারে এখানকার সুশীল সমাজের ভূমিকা ব্যাপক উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেকোনো মহৎ কাজ সাড়ে তিন হাত মানুষ করে। তাই ইচ্ছা থাকলে যেকোনো কার্য সম্পাদন করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেন জেলা প্রশাসক। তিনি কলেজের বিষয়ে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

রোববার রাঙামাটির আসামবস্তিতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নির্মিতব্য রাঙামাটি পাবলিক কলেজের উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন তারা।

রাঙামাটির জেলাপ্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙামাটির পুলিশ সুপার আমেনা বেগম, পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী দীপংকর তালুকদার, রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো, রাঙামাটি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ বাঞ্ছিতা চাকমা, রাঙামাটি মহিলা কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম মজুমদার প্রমূখ।dc

প্রসঙ্গত, রাঙামাটির জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের আসামবস্তির নারিকেল বাগান সংলগ্ন সরকারি জায়গার ওপর রাঙামাটি পাবলিক কলেজ স্থাপন করা হচ্ছে। রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামালের উদ্যোগে রাঙামাটি শহরের প্রথম বেসরকারি এই কলেজটি স্থাপিত হচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে করোনায় আরও এক নারীর মৃত্যু

রাঙামাটি শহরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ভোররাতে শহরের চম্পকনগর আইসোলেশন …

Leave a Reply