নীড় পাতা » ব্রেকিং » রাঙামাটির হোটেলে হোটেলে মুসুল্লীদের হামলা

রাঙামাটির হোটেলে হোটেলে মুসুল্লীদের হামলা

pros-01শহরের আবাসিক হোটেলগুলোতে অনৈতিক কর্মকান্ড চলে এমন অভিযোগ তুলে রাঙামাটির রিজার্ভবাজারের বেশ কয়েকটি হোটেলে ভাংচুর চালিয়েছে মুসুল্লিরা। এসময় অন্তত: চারটি হোটেলে হামলা ও ভাংচুর চালানো হয় এবং ৬ জন দেহপসারিনী নারীকে আটক করা হয়। এসময় জনতার মারধরে দুই নারী আহত হন।   তবে কোন খদ্দের বা হোটেল মালিক,ম্যানেজার,কর্মচারি আটক বা আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেনি !pros-02

শুক্রবার দুপরে জুম্মার নামাজ শেষে রিজার্ভবাজার জামে মসজিদ থেকে কয়েকশ মুসুল্লী মসজিদের সামনের হোটেল আল হেলালে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এসময় হোটেলটি থেকে অন্তত: চারজন নারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। হোটেল মালিক,ম্যানেজার সহ কর্মচারিরা পালিয়ে যায়।pros-03

একই সময় একই অভিযোগ পাশ্ববর্তী হোটেল প্রবাসি, হোটেল স্টার, হোটেল হিলসিটিতেও হামলা চালানো হয়। এই হোটেলগুলো থেকে আরো দুই নারীকে আটক করা হয়। এসময় উত্তেজিত মুসুল্লিদের হামলায় দুই নারী আহত হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রন করে।

স্থানীয় এলাকাবাসি কামরুল,শাহীন,মনির অভিযোগ করেছেন, রিজার্ভবাজারের কয়েকটি হোটেলে দিনের পর দিন অসামাজিক কার্যকলাপ চললেও এই বিষয়ে পুলিশ কোন পদক্ষেপই নিচ্ছিলোনা। এমনকি একাধিক হোটেলে হত্যাকান্ডের মতো ভয়ংকর ঘটনা ঘটলেও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। এমনকি মসজিদের সামনের হোটেলেও একই ধরণের ঘটনা ঘটছে। তাই জনগণ ক্ষুদ্ধ হয়ে এই হামলা চালিয়েছে।

pros-04রিজার্ভবাজার ব্যবসায়ি সমিতির সভাপতি ও অভিযুক্ত হোটেল হিলসিটির মালিক আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার মিয়া ভানু বলেন, এইভাবে হামলার কোন মানে নেই। কোন অভিযোগ থাকলে তারা আমাদের বলতে পারতো,পুলিশকে জানাতে পারতো। কিন্তু তা না করে এই হামলার কারণে ব্যবসায়িকভাবে রিজার্ভবাজার ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং পর্যটকরা এখানে আসবেনা।
প্রসঙ্গত,মাত্র কদিন আগেই আনোয়ার মিয়া ভানুর মালিকানাধীন এই হোটেলে একজন দেহপসারিনীর লাশ পাওয়া যায় এবং এই ঘটনায় জড়িত দুইজনকে আটকও করেছে পুলিশ। তবে ‘অজ্ঞাত’ কারণে হোটেলের সিসিটিভি ক্যামেরা ‘নষ্ট’ থাকার পরও হোটেলটির বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ। এখনো বহাল তবিয়তেই চলছে হোটেলটি।pros-05
রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো: শহীদুল্লাহ বলেন, অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে স্থানীয়রা কয়েকটি হোটেলে হামলা চালিয়েছে জেনে আমরা এসেছি এবং কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। কোন অবস্থাতেই আইন নিজের হাতে তুলে না নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, কোন হোটেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে পুলিশকে জানানো উচিত।

প্রসঙ্গত, রাঙামাটি শহরের রিজার্ভবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় অবস্থিত বেশ কয়েকটি হোটেলের বিরুদ্ধে অনেক আগে থেকেই অনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনার অভিযোগ আসছিলো। এনিয়ে বিভিন্ন সময় আইনশৃংখলা কমিটির সভায় অভিযোগ ‍উঠলেও এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি,ফলে রিজার্ভবাজারবাসি এনিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই ক্ষুদ্ধ ছিলেন। আর ধর্মপ্রবণ ওই এলাকায় জামে মসজিদের আশেপাশের কয়েকটি হোটেলে এসব কর্মকান্ড বেশি হওয়ায় তেতে ছিলেন মুসুল্লীরাও।  এরই জের ধরে শুক্রবারের এই ঘটনা, এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে এই ঘটনার পর এলাকার হোটেল ব্যবসা ও পর্যটন শিল্পে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে শংকা সংশ্লিষ্টদের।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

২ comments

Leave a Reply

%d bloggers like this: