রাঙামাটির লজ্জাজনক পরাজয়

22৩৫ তম জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপে লজ্জা যেনো পিছু ছাড়ছেনা রাঙামাটি জেলা ক্রিকেট দলের। নিজেদের প্রথম খেলায় বি.বাড়িয়ার কাছে মাত্র ১০০ রানে অলআউট হয়ে ৫ উইকেটের হতাশাহজনক পরাজয়ের পর মঙ্গলবার নিজেদের দ্বিতীয় খেলায় শক্তিশালী চট্টগ্রাম জেলা দলের কাছে মাত্র ২৩ রানে অলআউট হয়েছে রাঙামাটি। ফলে ম্যাচটি ৮ উইকেটে হেরে পরাজয়ের ধারাবাহিকতাই যেনো অক্ষুন্ন  রেখেছে পাহাড়ের দলটি।

সকালে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রাম জেলা দলের বাঁ হাতি পেসার মিরাজ এর বোলিং তোপে পড়ে মাত্র ২৩ রানেই গুটিয়ে যায় রাঙামাটির ইনিংস। দলের কেউই দুইঅংকের কোটা পাড় হতে পারেননি। সর্বোচ্চ ১৩ রান করেন হামিদ। চট্টগ্রামের পেসার মিরাজ আগের ম্যাচের মতোই এই ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে গুড়িয়ে দেন রাঙামাটিকে। এর আগের ম্যাচেও ৭ উইকেট নিয়ে দুই ম্যাচে ১৪ উইকেট শিকার করেছেন চাঁটগার এই গতিদানব।

তবে জয়ের জন্য ২৪ রানের মামূলি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রাম জেলা দলও ৩ টি উইকেট হারিয়ে বসে। তবে ৮ উইকেটের স্বস্তির জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন বিভাগীয় ক্রিকেটর সেরা এই দলটি।

পরপর দুইম্যাচের নিজের শিষ্যদের হতাশাজনক পারপরম্যান্সে হতাশ রাঙামাটি জেলা দলের ম্যানেজার ফরিদউদ্দিন ছোটন বলেন, নিয়মিত লীগ হচ্ছেনা,খেলোয়াড়দের প্র্যাকটিস নেই,প্রয়োজনীয় ক্রিকেট অবকাঠামোও অনুপস্থিত,এভাবে ক্রিকেট হয়না। তিনি বলেন,যেখানে সবগুলো জেলা দল নিয়মিত নিজেদের লীগ খেলে এবং প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েই জাতীয় লীগে খেলতে এসেছে,সেখানে রাঙামাটি জেলা দল যে অপর্যাপ্ত প্রস্তুতি আর লীগহীন প্র্যাকটিস নিয়ে এসেছে,তাতে ভালো ফলাফল করা কঠিন। তবে সামনের ম্যাচগুলোতে ভালো করার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

আগামী ১৩ জুন বান্দরবান জেলার সাথে এবং ১৫ জুন নোয়াখালি জেলার সাথে নিজেদের পরবর্তী ম্যাচ খেলবে রাঙামাটি জেলা দল।
এর আগের ম্যাচ পাহাড়ের আরেক জেলা বান্দরবান জেলা ক্রিকেট দলও চট্টগ্রামের কাছে ১১ রানে অলআউট হয়ে লজ্জাজনক ফলাফলের নজির স্থাপন করেছে।

প্রসঙ্গত,রাঙামাটিতে ক্রিকেট সংগঠকদের দলাদলি এবং কোন্দলের কারণে গত মৌসুমে লীগ অনুষ্ঠিত হয়নি। এছাড়া গত কয়েকবছর ধরেও নিয়মিতভাবে ক্রিকেট লীগ হচ্ছেনা এ জেলায়। সম্প্রতি জাতীয় চ্যাম্পিয়নশীপের জন্য তড়িঘড়ি করে রাঙামাটি জেলা ক্রিকেট দল গঠন করা হয়। প্রায় ১ লক্ষ ৯৩ হাজার টাকা বাজেটের এই দলের লজ্জাজনক ও হতাশাজনক ফলাফলে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠছেন রাঙামাটির সাবেক ক্রিকেটার,ক্রীড়া সংগঠক ও ক্রীড়ামুদে মানুষ।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

৩ comments

  1. ক্রিেকট না খেেল ডাংগুলা খেলা দরকার।

  2. ওদের কি দোস প্রতি বছর যদি লীগ না হয়, আর খেলায়ারদের যদি পারিশ্রামক 2000-5000 টাকা হয় প্রতি লীগ এর চেয়ে বেশি ভালো খেলা নিশ্চয় আশা করা যায়না……যেখানে ফুটবল লীগ এ সব টাকা ব্যয় করা হয়। আর ডিএস এ এর কথা কি বলবো ওরাতো শুধু ফুটবল নিয়ে ভাবে আরে এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশকে চিনে মানুষ ক্রিকেট খেলা দিয়ে তো অনুরোধ রইলো রাঙ্গামাটির ক্রিকেট কে নিয়ে কি আপনাদের কিছু করা উচিত নয়? আমারতো মনে হয় আপনাদের সাথে চট্টগ্রাম এবং ঢাকায় আপনাদের একটা জোর লবিং করা উচিত যেখানে আমাদের খেলোয়ারদের সুযোগ থাকবে। আর ক্রিকেট কমিটিতে নিশ্চয় ক্রিকট খেলছে িএমন মানুষ রাখতে হবে………….

Leave a Reply

%d bloggers like this: