নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » রাঙামাটিতে শনিবার থেকে জগদ্ধাত্রী পূজা ও মহানামযজ্ঞ

রাঙামাটিতে শনিবার থেকে জগদ্ধাত্রী পূজা ও মহানামযজ্ঞ

jogodatriপ্রতি বছরের ন্যায় এবারও রাঙামাটির হ্যাপির মোড়স্থ শ্রী শ্রী জগদ্ধাত্রী মাতৃমন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শ্রী শ্রী জগদ্ধাত্রী পূজা ও ষোড়শপ্রহরব্যাপী মহানামযজ্ঞ ও মহোৎসব। ১ নভেম্বর ২০১৪ইং থেকে শুরু করে ৪ নভেম্বর ২০১৪ইং পর্যন্ত বিভিন্ন মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ১ নভেম্বর দেবীর প্রথম কল্পীয় পূজা এবং চন্ডীপাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভারম্ভ হবে। পূজা শেষে অষ্টোত্তর শত প্রদীপ প্রজ্জলন, ভোগ নিবেদন এবং পুস্পাঞ্জলী প্রদান করা হবে। রাতে অনুষ্ঠিত হবে তারকব্রম্ম মহানামযজ্ঞের শুভাধিবাস। ২ ও ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে অহোরাত্র ষোড়শপ্রহরব্যাপী নামযজ্ঞ ও মহোৎসব। অনুষ্ঠানে আগত ভক্তবৃন্দের মধ্যে প্রতিদিন অবিরাম মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হবে। ৪ নভেম্বর ঊষালগ্নে মহানামযজ্ঞের পূর্ণাহুতি ও নগরকীর্ত্তনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হবে।
মহানামযজ্ঞে নামসুধা পরিবেশন করবেন বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত মোট ৫টি কীর্ত্তনীয়া দল। দলগুলো হল, গোপালগঞ্জের বিশ্ববন্ধু সম্প্রদায় এবং বাসনা সম্প্রদায়, চট্টগ্রামের শ্রীগুরু অচ্যুতানন্দ সম্প্রদায় এবং গুরু দক্ষিণা সম্প্রদায়, ও কুমিল্লার বেদবাণী সংঘ।
অনুষ্ঠানের সার্বিক পরিস্থিতি সর্ম্পকে জগদ্ধাত্রী পূজা ও মহোৎসব উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুজন মহাজন বলেন, জগদ্ধাত্রী মাতৃমন্দিরের এই অনুষ্ঠান রাঙামাটির ঐতিহ্যবাহী একটি অনুষ্ঠান। দীর্ঘ ২৭ বছর যাবৎ এই অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। অনুষ্ঠান সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে আমরা ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। প্রত্যেক বছরের ন্যায় এবছরও সুষ্ঠ ও জাকজমকপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

রাঙামাটিতে হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান
১ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়ার জগদ্বাত্রী পূজার সুবিধার্থে রাঙামাটিতে হরতাল শিথিল করার জন্য জামায়াতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে পূজা ও মহোৎসব উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুজন মহাজন। তিনি বলেন,যেহেতু কঠিন চীবর দান উপলক্ষ্যে রাঙামাটিতে বৃহস্পতিবারের হরতাল প্রত্যাহার করা হয়েছিল, তেমনি রাঙামটির ঐতিহ্যবাহী এই অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে হরতাল শিথিল করা উচিত। তিনি বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী রাঙামাটি জেলা শাখার কাছে হরতাল শিথিলের আহবান জানিয়েছেন।
মন্দিরে আগত এক ভক্ত বলেন, অনুষ্ঠানের কথা চিন্তা করে রাঙামাটিতে হরতাল প্রত্যাহার করা উচিত। তা না হলে অনেক দূর-দুরান্তের ভক্তরা ইচ্ছে থাকা সত্বেও মন্দিরে আসতে পারবে না।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাচিং প্রু মারমার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা …

Leave a Reply