নীড় পাতা » পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়া » রাঙামাটিতে ছয় প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ

রাঙামাটিতে ছয় প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ

Protik-for-Webদশম সংসদ নির্বাচনে রাঙামাটি আসনে ছয়জন প্রার্থীকেই প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শনিবার দুপুর তিনটায় রাঙামাটির জেলাপ্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। এতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দীপংকর তালুকদার নৌকা, জাতীয় পার্টির ডাঃ রূপম দেওয়ান লাঙ্গল, স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার হাতি, স্বতন্ত্র প্রার্থী সচিব চাকমা উড়োজাহাজ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আবছার আলী আনারস, স্বতন্ত্র প্রার্থী সুধাসিন্ধু খীসা বই প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন।
জেলা রিটার্নিং অফিস জানান, দীপংকর তালুকদার নৌকা প্রতীকে বরাদ্দ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা স্বাক্ষরিত চিঠি জেলা নির্বাচন কমিশনে আসে। তাই নৌকা প্রতীক অওয়ামী লীগ প্রার্থী দীপংকর তালুকাদারকে বরাদ্দ দেওয়া হয়। জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডাঃ রূপম দেওয়ানের একমাত্র প্রতীক ছিলো লাঙ্গল। এছাড়া কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টি থেকে লাঙ্গল প্রতীকে বরাদ্দে কোনো চিঠি না আসায় ডাঃ রূপম দেওয়ানকে জাপার প্রার্থী হিসেবে লাঙ্গল প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদারের প্রথম পছন্দ ছিলো হাতি। অন্য কোনো প্রার্থীর হাতি প্রথম পছন্দ না থাকাতে তাঁকে হাতি প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী সচিব চাকমার প্রথম পছন্দ ছিলো হারিকেন, দ্বিতীয় কবুতর, তৃতীয় হাতি এবং চতুর্থ উড়োজাহাজ। যেহেতু প্রথম দুইটি প্রতীক নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধনকৃত দলের প্রতীক, তৃতীয়টি অন্য একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী আগেই প্রথম পছন্দ হিসেবে আবেদন করেছেন, তাই চতুর্থ পছন্দ উড়োজাহাজ প্রতীক সচিব চাকমাকে বরাদ্দ দেওয়া হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট আবছার আলীর প্রথম পছন্দ ছিলো আনারস, অন্য কোনো প্রার্থীর প্রথম পছন্দ আনারস না থাকাতে তাঁকে আনারস প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী সুধাসিন্ধু খীসার প্রথম পছন্দ ছিলো বই। এই প্রতীকে অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায় তাঁকে বই প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।
জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রতীক বরাদ্দে প্রার্থীদের মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার ও এডভোকেট আবছার আলী নিজে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া দীপংকর তালুকদারের পক্ষে তাঁর প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। বাকী তিন প্রার্থীর পক্ষে এই সময় কেউ উপস্থিত ছিলো না।
জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ মোস্তফা কামাল বলেন, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডাঃ রূপম দেওয়ান প্রার্থিতা প্রত্যাহারের যে আবেদন দিয়েছেন তাতে মনোনয়নপত্রের সাক্ষরের সাথে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের যে আবেদন দেওয়া হয় সে সাক্ষরের কোনো মিল নেই। স্বাভাবিকভাবেই আমরা প্রত্যাহারের আবেদনটি গ্রহণ করতে পারিনি। তিনি বলেন, এখন থেকে প্রার্থীদের প্রচারে আর কোনো বাধা নেই। সকল প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে প্রচারণা চালানোর আহ্বান জানান তিনি।

 

 

 

Micro Web Technology

আরো দেখুন

সরকারের পায়ের নীচে মাটি নেই : মনিস্বপন

‘এই সরকারের পায়ের নীচে মাটি নেই। দেশ ভালো নেই, দেশের মানুষ ভালো নেই। গনতন্ত্র নেই, …

Leave a Reply