নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » ‘রাঙামাটিকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও হ্রদ দখলমুক্ত করা হচ্ছে’

‘রাঙামাটিকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও হ্রদ দখলমুক্ত করা হচ্ছে’

DDCC-Meeting-Picture-27-04-রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাইফ উদ্দিন আহম্মদ বলেছেন, এ জেলার আইন শৃঙ্খলা, উন্নয়ন ও সার্বিক শান্তি শৃঙ্খলা সুষ্ঠু ও সাবলীল রাখতে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি এ রাঙামাটি জেলাকে একটি সুষ্ঠু ও সুন্দর পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে অবৈধ উচ্ছেদ ও হ্রদ দখলমুক্ত করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এ জেলার জনগণের কথা বিবেচনা করে যানজট ও হেলমেট ব্যবহারের জন্য মোবাইল কোর্ট বসানো হচ্ছে। এতে অনেকাংশে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধ ও হেলমেট ব্যবহারে লোকজন অভ্যস্ত হচ্ছে। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন কমিটির সমন্বয় সভায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট একথা বলেন। এসময় রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সুনীল কান্তি দে বলেন, শহরের টিটিসি ও সরকারি কলেজ এলাকায় প্রশাসনের টহল আরো জোরদার করা উচিত। কারণ বিগত কয়েক মাসে যে সমস্ত অপরাধ সংঘটিত হয়েছে তা মূলত এ এলাকায় হয়েছে এবং এর প্রবণতা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ ব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান বলেন, যে সমস্ত এলাকা সন্ত্রাসী কার্যক্রম চিহ্নিত করা হয়েছে সে সমস্ত এলাকায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। তিনি জনগণের জানমাল রক্ষা এবং নিরাপত্তা বিধানে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এম ইরফান শরীফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাইফউদ্দীন আহম্মদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহিদুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী দীলিপ কুমার চাকমা, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সুনীল কান্তি দে’সহ জেলার বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধান ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন, রাঙামাটি জেলায় শিক্ষক শুমারি সম্পন্ন হয়েছে এবং জেলা প্রশাসন আয়োজিত বিজ্ঞান মেলায় জেলার বিভিন্ন স্কুল অংশগ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্য আগামী মাস থেকে স্কুল ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক ও অভিভাবকদের নিয়ে প্রতিটি উপজেলায় পর্যায়ক্রমে কর্মশালার আয়োজন করা হবে। বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের কর্মকর্তা বলেন, কাপ্তাই হ্রদের পানি কমে যাওয়াতে বর্তমানে এ জেলায় কিছুক্ষণের জন্য লোডশেডিং চলছে। বর্ষা মৌসুমে হ্রদের পানি বৃদ্ধি পেলে বর্তমানের সাময়িক সময়ের জন্য চলমান লোডশেডিং থাকবে না। বিদ্যুতায়ন ও বিদ্যুৎ উন্নয়ন প্রকল্প কর্মকর্তা জানান, খুব শীঘ্রই বরকল উপজেলায় বিদ্যুৎ বিতরণ করা হবে।
জেলা মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন কর্মকর্তা বলেন, খুব শীঘ্রই জেলায় মৎস্য প্রজনন ও অবৈধ পাচার বন্ধে কোষ্ট গার্ড দ্বারা পাচার রোধ করা হবে। ইউএসএফ বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বলেন, বর্তমানে বিভিন্ন রকমের ১ লক্ষ ৪৫ হাজার চারা উৎপাদন করা হয়েছে যা জেলায় বর্ষা মৌসুমে বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। জেলা ইক্ষু গবেষণা ইনষ্টিটিউট কর্মকর্তা জানান, আগামী ৮ ও ৯ এপ্রিল জেলায় মোট ৮০জন ইক্ষু চাষিকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। জেলা রেশম বোর্ডের প্রকল্প পরিচালক জানান, ইতোমধ্যে কাউখালী উপজেলায় ১টি রেশম বোর্ড চালু করা হয়েছে এবং ৫০জন রেশম চাষিকে আগামী জুন মাসে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। জেলা পরিসংখ্যান ব্যুরোর উপপরিচালক জানান, দেশের অন্যান্য জেলার ন্যায় এ জেলাতেও বস্তি শুমারি ও ভাসমান লোক গণনা চলছে।

পরিশেষে সভাপতির বক্তব্যে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ জেলার উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা। তিনি বলেন, এ অঞ্চলের জনগোষ্ঠির কল্যাণ ও ভাগ্য উন্নয়নে সম্মিলিতভাবে সকলে এগিয়ে আসলে এ জেলা থেকে দারিদ্র্যতা দূর ও আর্থসামাজিক উন্নয়ন করা সম্ভব।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ফুটবলের বিকাশে আসছে ডায়নামিক একাডেমি

পার্বত্য এলাকা রাঙামাটিতে ফুটবলকে আরও জনপ্রিয় করে তোলা, তৃনমূল পর্যায় থেকে ক্ষুদে ফুটবল খেলোয়াড় খুঁজে …

Leave a Reply