নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » যেখানে ব্যতিক্রম রাঙামাটি : ছিলেন বিরোধী নেতারাও

যেখানে ব্যতিক্রম রাঙামাটি : ছিলেন বিরোধী নেতারাও

pic-w1লাখো কন্ঠে জাতীয় সংগীত গেয়ে বিশ্বরেকর্ড এর জাতীয় আয়োজনের সাথে সংহতি প্রকাশ করে রাঙামাটি স্টেডিয়ামে হাজারে কন্ঠে জাতীয় সংগীত গাওয়ার আয়োজন ছিলো ২৬ মার্চ। স্বাধীনতা দিবসের সকালে এদিন হাজারো মানুষের সাথে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটির বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দও। ব্যাপকভাবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতারা।
জাতীয় সংগীত গাওয়ার এই আয়োজনে শুরু থেকেই সহযোগিতা করে আসছিলেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম ভূট্টো। মাঠ পরিষ্কার কিংবা মাঠে পানি সরবরাহের মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা ছাড়াও মাঠে উপস্থিত ছিলো পৌরসভার প্রায় সকল কর্মচারি। অন্যদিকে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাত মো: সায়েম,সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার পুরো আয়োজনের কমিটিতে থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও রাখেন। এদিন মাঠেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি সুজন,সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুনসহ জেলা,কলেজ ও শহর ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। Pic-w2

এছাড়া জাতীয় সংগীত গাওয়ার জন্য মাঠে ছিলেন রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট দীপেন দেওয়ান,সাধারন সম্পাদক মো: শাহ আলম,সদর থানা বিএনপির সভাপতি মামুনুর রশীদ,নব্য বিএনপি নেতা মানস মুকুর চাকমা,বিএনপি হয়ে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী মৈত্রী চাকমা।
প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির রাঙামাটি জেলা সভাপতি হারুন মাতব্বরসহ জাতীয় পার্টির বেশ কিছু নেতাকর্মীকেও দেখা গেছে মাঠে। Pic-w3
স্বাভাবিকভাবেই মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারি প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগি সংগঠন যুবলীগ,ছাত্রলীগের অংশগ্রহণ ছিলো ব্যাপক ও স্বতস্ফূর্ত। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার নিজে উপস্থিত ছিলেন। ছিলেন যুবলীগ সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজলের নেতৃত্বে যুবলীগের বিশাল কর্মীবাহিনী,জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন ,কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সজল দাশ,সাধারন সম্পাদক সুজন,সাংগঠনিক সম্পাদক বাপ্পাসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন মাঠে। pic-w4

এদের পাশাপাশি ছাত্র ইউনিয়নের জেলা সভাপতি সৈকত,কলেজ সভাপতি অভিজিৎসহ সংগঠনির বর্তমান ও সাবেক নেতারাও ছিলেন পুরো আয়োজনের সাথে।

জাতীয় কর্মসূচীতেও যেখানে দেশের প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি এক হতে পারেনি সেখানে পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে দুই প্রধান দলের নেতাদের উপস্থিতিকে স্বাগত জানিয়েছেন শহরের সাধারন মানুষ ও মাঠে উপস্থিত হাজারো অংশগ্রহণকারি। রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো: মোস্তফা কামালও উপস্থিত বিরোধী নেতাদের অভ্যর্থনা জানিয়ে যোগ্য সম্মানও দিয়েছেন।

রাঙামাটি জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মো: শাহ আলম বলেন, এটা জাতীয় কর্মসূচী এবং জাতীয় সংগীত সবার প্রাণের সংগীত। এখানে কোন রাজনীতি নেই। তাই আমরা জাতীয় সংগীত গাওয়ার জন্যই এসেছি। দল যার যার,কিন্তু দেশতো আমাদের সবার।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জনপ্রিয় হচ্ছে ‘তৈলাফাং’ ঝর্ণা

করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল খাগড়াছড়ির পর্যটন ও বিনোদনকেন্দ্র। তবে টানা বন্ধের পর এখন খুলেছে …

Leave a Reply