নীড় পাতা » ব্রেকিং » মেয়রের অভিযোগ উড়িয়ে দিলো আওয়ামীলীগ

মেয়রের অভিযোগ উড়িয়ে দিলো আওয়ামীলীগ

AL-Flag-pic-00রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী গত ৯ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে  আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে পৌরসভার সকল উন্নয়ন কাজ বন্ধ রাখার ব্যাপারে জেলা প্রশাসককে দেয়া চিঠি নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন তা উড়িয়ে দিয়েছে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ।
সোমবার জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ মুছা মাতববর সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মেয়রের অভিযোগকে ‘ মিথ্যা’ ‘বানোয়াট’ এবং বিভ্রান্তিমূলক বলে দাবি করা হয়।
রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর এর স্বাক্ষরকৃত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আওয়ামীলীগ উন্নয়ন কার্যক্রম বাধাগ্রস্থ করে না। মেয়র সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ এর নামে মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিমূলক আলোচনা ছড়ানোর চেষ্টা করছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, গত ৮ নভেম্বর রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের যে পত্র পাঠানো হল তা নিবার্চন কমিশন কর্তৃক জারিকৃত আচরণবিধি ২০১০ এর ১৬ ধারা অনুযায়ী “নিবার্চন পূর্ব সময়ে মেয়র, কাউন্সিলর বা অন্য কোনো পদাধিকার সংশ্লিষ্ট পৌরসভা এলাকায় উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন বা ইতোপূর্বে অনুমোদিত প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ করিতে পারিবে না’ এর আলোকে উল্লেখিত বিধান অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সময়ে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহন ওবা বাস্তবায়ন স্থগিত রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, মেয়র যে বক্তব্য দিয়েছেন তার নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, মেয়র এর মাধ্যমে তার পাঁচ বছরের ব্যর্থতা, অদক্ষতা, অস্বচ্ছতা, ও দুর্নীতি আড়াল করার অপচেষ্টা করছেন।
আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাক্ষরিত বিবৃতিটিতে আরো বলা হয়, মেয়রের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে রাঙামাটি পৌরসভার রাজব্যবস্থাপনা সম্পূর্ণ ভেঙ্গে পড়েছে। বছরে এডিবি ও রাজস্বখাতে প্রাপ্ত আনুমানিক বার্ষিক পাঁচকোটি টাকার যথাযথ হিসাব নাই। যে কারণে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতন ভাতাদি নিয়মিত পরিশোধে ব্যর্থ হয়েছে। হোল্ডিং নাম্বার প্লেট লাগানোর নামে তার পছন্দের ঠিকাদার কর্তৃক লক্ষ লক্ষ টাকা অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন। শহরে সড়ক বাতি লাগানোর নামে প্রায় তিন কোটি টাকা তার পছন্দের ঠিকাদারের সাথে যোগসাজশে লুটপাট করেন। ইজারাদারদের সাথে যোগসাজস করে ট্রাক টার্মিনাল ও ভেদভেদী টোল আদায় কেন্দ্র ইজারা কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য সাজানো মামলা দায়ের করিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। যেই কারণে পৌরসভা লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব প্রাপ্তি হতে বঞ্চিত হচ্ছে। রাঙামাটি পৌরভবন নির্মাণে যথাযথ উদ্যোগ না নিয়ে ও প্রয়োজনীয় তহবিল প্রাপ্তি নিশ্চিত না করে টাউন হল ভবন ভেঙ্গে ফেলে এবং হল নিমালের নামে বড় ধরণের অর্থ আত্মসাৎ করেন। শুধু তাই নয়, পৌর ট্রাক টার্মিনালের গরুর হাট নামমাত্রমূল্যে দলীয় ব্যক্তিদের ইজারা দিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ পরিকল্পিতভাবে পৌরসভাকে রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। রাঙামাটি পৌরসভার বর্তমান আহ্বানকৃত দরপত্রগুলো উন্মুক্ত হলেওর মেয়রের নিজস্ব ও দলীয় ঠিকাদারদের দ্বারা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সমঝোতার মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা অবৈধ লেনদেন হয়।’
বিবৃতিতে আওয়ামীলীগ আরো দাবি করে, মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী (ভূট্টো) ক্ষমতা আঁকড়ে রাখার লক্ষ্যে তার অনুগত দুইজন ঠিকাদারকে বাদী করে রাঙামাটি পৌরসভার নির্বাচন বানচালের উদ্দেশ্যে সীমানা বিরোধের অজুহাতে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করান।’ বিবৃতিতে হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলা হয়, মামলার কারণে যদি রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত হয়, তাহলে মেয়রের দুর্নীতি,অনিয়ম,স্বজনপ্রীতি,দলীয়করণ ও নির্বাচন বানচালের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ রাঙামাটি জেলা শাখা পৌরসভা ঘেরাওসহ আরো কঠোর কর্মসূচী গ্রহণ করবে।
প্রসঙ্গত,রাঙামাটি পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনের সম্ভাবনায় পৌরসভার সকল উন্নয়নকাজ বন্ধ রাখার জন্য রাঙামাটির জেলা প্রশাসককে গত ৮ নভেম্বর একটি চিঠি দেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ মুছা মাতব্বর। এর একদিন পর ৯ নভেম্বর এই চিঠির জবাবে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন পৌরমেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো। তার পরদিন ১০ নভেম্বর পাল্টা সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করলো আওয়ামীলীগ।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে সন্ত্রাসী হামলায় দুজন নিহত

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় প্রতিপক্ষের সশস্ত্র হামলায় সুভাষ তনচংগ্যা (৪৫) ও ধরনজয় তনচংগ্যা (৩৬) নামে দুইজন …

One comment

  1. অনুগ্রহ পূবর্ক কেউ একজন নিউজটা কপি করে দিন…..

Leave a Reply

%d bloggers like this: