নীড় পাতা » ব্রেকিং » মৃত্যু পরোয়ানা পেলেন মুছা মাতব্বর !

মৃত্যু পরোয়ানা পেলেন মুছা মাতব্বর !

মুছা মাতব্বর

এবার মৃত্যু পরোয়ানা পেলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মুছা মাতব্বর। পরোয়ানা পাবার দুই দিনের মধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ না করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়েছে জেলা আওয়ামীলীগের এই নেতাকে। রবিবার সকালে ডাকযোগে এক পত্রের মাধ্যমে এই মৃত্যুপরোয়ানা পাঠানো হয় বলে জানান মুছা মাতব্বর।

ডাকযোগে প্রেরিত এই পত্রে ‘জেএসএস’ থেকে পাঠানো হয়েছে উল্লেখ করে বলা হয়, “মুছা, তোমার বুকের পাটাতো দেখছি অনেক বড়। এতকিছুর পরও এখনো তুই রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়াসনি দেখে সত্যিই হতবাক হচ্ছি আমরা। তবে যা হওয়ার ছিল তাতো হয়েছে এবং তোর সময়ও শেষ হয়ে এসেছে। আর বেশি দিন সময় তোর হাতে নেই। তাই বলছি যদি প্রাণে বাঁচতে চাস তাহলে এই মৃত্যু পরোয়ানা পাবার ২ (দুই) দিনের মধ্যে সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়াবি।”

মৃত্যু পরোয়ানা

“না হলে বুঝতেই তো পারছিস তোর অবস্থা কি হতে যাচ্ছে। কেননা তোর কাপনের কাপড় কেনা হয়ে গেছে, যার এক টুকরা তোর জন্য পাঠালাম, যাতে তোর টনক নড়ে।”

মৃত্যু পরোয়ানা বিষয়ে মুছা মাতব্বর বলেন, দলীয় সম্মেলনের প্রচার শুরুর পর থেকেই আমার ওপর একটি পক্ষ উঠেপড়ে লেগেছে। গত কয়েকদিনের সম্ভাব্য বিভিন্ন জনের গতিবিধি লক্ষ্য করে গতকালই(শনিবার) আমি কোতয়ালী থানায় একটি জিডি করেছি। জিডি করার পরেরদিনই মৃত্যু পরোয়ানা নিয়ে একটি চিঠি পেলাম। চিঠির প্রেরক হিসেবে ‘জেএসএস’ এর নাম থাকলেও তিনি সংগঠনটিকে দোষারোপ করছেন না। তিনি বলেন, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে যে গ্রুপটি আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে সে গ্রুপটি এই কাজটি করে থাকতে পারে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যেহেতু তাদের টার্গেট ছিল আমাকে সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে অপসারণ করবে, আর চিঠিতে আমি এখনো সাধারণ সম্পাদক থেকে সরে না যাওয়ায় হুমকি দিচ্ছে, এতে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে কারা এই বিষয়টি ঘটানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। মৃত্যু পরোয়ানা পাবার পর পদত্যাগের কোনও চিন্তাভাবনা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা কখনো মাথা নত করে না। দলের প্রয়োজনে যতদিন নেতাকর্মীরা চাইবে, ততদিন পর্যন্ত আমি আমার কাজ করে যাবো। মৃত্যু ভয়ে আমি ভীত নই।’ এ বিষয়ে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।

খাম

এদিকে পোস্টঅফিসের রেজিস্টার্ডভুক্ত প্রেরিত এই চিঠিতে খামের ওপর কৃষ চাকমা, কলেজ গেইট, রাঙ্গামাটি সদর, রাঙ্গামাটি লেখা রয়েছে। এতে ১০ ডিজিটের (০১৮০৩৭৮৫৪২) একটি মোবাইল নম্বর লেখা আছে! চিঠিটি জ ৩০৮, ৫/১২/১৯ইং নম্বরে রেজিস্টার্ডভুক্ত হয়।

এর আগে সম্মেলন ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচারের অভিযোগ এনে তারই ভাতিজা ১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন পারভেজ গত ১৭ নভেম্বর একটি জিডি দায়ের করেন। এরপর সম্মেলন স্থগিতের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুছা মাতব্বরের বিরুদ্ধে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে সাবেক সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনুকে অভিযুক্ত এর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। গত কয়েকদিন বিভিন্নজনের সম্ভাব্য গতিবিধি লক্ষ্য করে ৭ ডিসেম্বর থানায় একটি জিডি করার পর ৮ ডিসেম্বর সকালে মৃত্যু পরোয়ানার একটি চিঠি পেলেন মুছা মাতব্বর।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে এক দিনেই ১১ জনের করোনা শনাক্ত

শীতের আবহে হঠাৎ করেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলায় করোনা সংক্রমণে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েকদিনের …

Leave a Reply