নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » মন্ডপে মন্ডপে চলছে শারদীয় দুর্গাপূজার প্রস্তুতি

মন্ডপে মন্ডপে চলছে শারদীয় দুর্গাপূজার প্রস্তুতি

আর মাত্র কদিন পর শুরু হতে যাচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে মাটিরাঙ্গার পাঁচটি পূজামন্ডপে চলছে ব্যাপক প্রন্তুতি। মাটিরাঙ্গা পুলিশ প্রশাসন নিয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা।

তাইন্দং ইউনিয়নের দুইটি পূজামন্ডপে, তবলছড়ির ইউনিয়নের বড়নাল একটি পূজামন্ডপে, গোমতি ইউনিয়ন একটি পূজামন্ডপে, মাটিরাঙ্গা উপজেলা সদর একটি পূজামন্ডপে বিভিন্ন মন্দিরে ও মন্ডপে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে প্রতিমা শিল্পীরা। এ মন্দির গুলোতে শুধু দেশিও শিল্পীরা কাজ করছেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা উদ্যাপন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের চেয়ে এ বছর মন্দিরের সংখ্যা কিছুটা কমে গেছে। এ বছর মাটিরাঙ্গা উপজেলা সরকারী ভাবে পাঁচটি মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা সদরে রক্ষাকালী মন্দিরের সবচেয়ে বড় পূজা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার বাঙালী সম্প্রদায় ছাড়াও পাঁচ পাহাড়ী জাতির বসবাস। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দূর্গোৎসবে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে ভীড় জমায় পূজা মন্ডপে। সনাতনী ধর্মলম্বীদের সাথে মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টানরা যোগ দেয় ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে। জাতিতে জাতিতে মিলেমিশে সম্প্রতির বন্ধনে আবদ্ধ হয় পূজা মন্ডপে। এ পূজা সার্বজনিন পূজায় পরিণত হয়।

সার্বজনীন কেন্দ্রীয় রক্ষাকালী মন্দিরের দুর্গোৎসব উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মনি কুমার দে জানান, এ বছর চট্টগ্রামের সেরা শিল্পি রূপণ চক্রবর্তী প্রতিমা তৈয়ার করেছেন। তিনি আশা করেন অন্য বছরের চাইতে এ বছর তাদের প্রতিমা অনেকটাই ভিন্নধর্মী হবে। ২০ফুট উচ্চতা ও ৪০ফুল লম্বা প্রতিমা তৈয়ার করা হয়েছে। যা কিনা দর্শনার্থীদের মন কাড়বে।

তিনি জানান, প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও শারদীয় দুর্গাপূজায় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি হাতে নেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে গত শনিবার জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি পূজামন্ডপের নিরাপত্তায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ ও আনসার নিয়োজিত থাকবে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্বাস দিয়েছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান কুজেন্দ্রের

কভিড-১৯ মহামারী উত্তরণে পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য …

Leave a Reply