নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » মং সার্কেলে ঐতিহ্যবাহি রাজপুন্যাহ অনুষ্ঠিত

মং সার্কেলে ঐতিহ্যবাহি রাজপুন্যাহ অনুষ্ঠিত

mong-cover-picপার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহি মং সার্কেলের রাজপুন্যাহ শনিবার খাগড়াছড়ির রাজার মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১১টায় উপমহাদেশের সর্বকনিষ্ট রাজা সাচিংপ্রু চৌধুরীর হাতে নজরানা ও রাজস্ব তুলে দেয়ার মধ্যদিয়েই রাজপূন্যাহ‘র মূল কর্মসূচী সূচীত হয়। এটি মং সার্কেলের অষ্টম রাজ পরিবারের চতুর্থ রাজপূন্যাহ। রাজপুন্যাহকে ঘিরে রাজবাড়ী হয়ে উঠে উৎসবমূখর। রাজপূন্যাহ অংশ নেয়া হেডম্যান ও কার্বারীরা তাদের নেতৃত্বকে আরো শক্তিশালী করার দাবী জানিয়েছেন।

মং সার্কেল প্রধান সবচেয়ে কম বয়সী রাজা সাচিংপ্রু চৌধুরীকে মঞ্চে আনার পর তার প্রতি আনুগত্য স্বরূপ তলোয়ার প্রদান করেন প্রজাদের পক্ষে একজন হেডম্যান। পাহাড়ীদের ঐহিত্যবাহী নৃত্য পরিবেশনের পর রাজপুন্যাহ‘র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাজা সাচিংপ্রু চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। এসময় পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাথোঅং মারমা, সেনাবাহিনীর সদর জোন কমান্ডার লে: কর্নেল আলী রেজা, ইউএনডিপি‘র পার্বত্য চট্টগ্রাম প্রজেক্ট বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রবার্ট স্টলম্যান উপস্থিত ছিলেন।raj-punna--(2)

পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন জেলা তিন সার্কেলের আওতায়। রাঙামাটি চাকমা সার্কেল, বান্দরবান বোমাং সার্কেল এবং খাগড়াছড়ি মং সার্কেল। মূলত বাৎসরিক রাজকর আদায়ের আনুষ্ঠানিকতাকে ঘিরে এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

মং সার্কেলের আওতাধীন ৮৮ জন হেডম্যান (মৌজা প্রধান) এবং ৪শ জন কার্বারী (পাড়া প্রধান) রাজার কাছে জুম কর প্রদান করেন।raj-punna--(1)

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২২ অক্টোবর এক মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় রাজা পাইহ্লাপ্রু চৌধুরী নিহত হবার পর তাঁর সন্তান সাচিংপ্রু চৌধুরী রাজা হন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জনপ্রিয় হচ্ছে ‘তৈলাফাং’ ঝর্ণা

করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল খাগড়াছড়ির পর্যটন ও বিনোদনকেন্দ্র। তবে টানা বন্ধের পর এখন খুলেছে …

Leave a Reply