নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » ভোট কাটাকাটির সমীকরণে জয়ী হবেন তবে কে ?

ভোট কাটাকাটির সমীকরণে জয়ী হবেন তবে কে ?

BBN-Sadar-charimanউপজেলা নির্বাচনে বান্দরবান সদরে দুজন বাঙ্গালী এবং দুজন পাহাড়ী মারমা সম্প্রদায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন। নির্বাচনী উত্তাপে কাঁপছে এখন সদর উপজেলার ৫৪ হাজার ৭১১ জন ভোটার। প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রার্থীরা। উপজেলা নির্বাচনে সদরে চেয়ারম্যান প্রার্থী চারজন হলেও বাঙ্গালী বাঙ্গালী এবং পাহাড়ী পাহাড়ী দুজন দুজনার মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুছ মোটর সাইকেল প্রতীকের মাথাব্যাথা এখন বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের দোয়াত কলম প্রতিক এবং আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী ক্যসাপ্রু মারমা ঘোড়া প্রতিকের মাথাব্যাথা বর্তমানে জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) সমর্থিত প্রার্থী উইন মং জলি মারমা আনারস প্রতিক।

সোমবার বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুছ মোটর সাইকেল প্রতিকের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন সদর উপজেলার রাজবিলা, উদাবনিয়া’সহ আশপাশের এলাকাগুলোতে এবং বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মো: জাহাঙ্গীর আলম দোয়াত-কলম প্রতিক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন জেলা সদরের চড়–ই পাড়া, হাসপাতাল এলাকাসহ আশপাশের গ্রামগুলোতে। অপরদিকে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী ক্যসা প্রু মারমা ঘোড়া প্রতিক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা ও গনসংযোগ করেছেন টংকাবতী ইউনিয়নের আশপাশের এলাকাগুলোতে এবং আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতি সমর্থিত জেএসএস প্রার্থী উইন মং জলি আনারস প্রতিক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন টংকাবতী ইউনিয়নের উত্তর হাঙ্গর, দক্ষিন হাঙ্গর’সহ আশপাশের এলাকাগুলোতে।
এছাড়াও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামীলীগের জামাল উদ্দিন চৌধুরী উড়োজাহাজ প্রতিক নিয়ে, বিএনপি ক্যহ্লাউ চৌধুরী তালা প্রতিক নিয়ে এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামীলীগের তিংতিং ম্যা ফুটবল প্রতিক ও জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) প্রার্থী ওয়াই চিং প্রু মারমা সেলাই মেশিন প্রতিক নিয়ে সদর উপজেলার বিভিন্নস্থানে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। সদরে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জনসংহতি সমিতি এবং বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ছুটে বেড়াচ্ছেন ভোটারের দ্বারে দ্বারে। পোষ্টার আর লিফলেট’এ ছেয়ে গেছে উপজেলা শহরসহ পাহাড়ী গ্রামগুলো। জোরে-শোরে চলছে মাইকিং। চায়ের দোকান থেকে অফিস-আদালত সর্বত্র চলছে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা। প্রার্থীরা চষে বেড়াচ্ছে নির্বাচনী অঞ্চলগুলো। বসে নেই প্রার্থীর স্ত্রী-সন্তান আত্মীয় স্বজনেরাও। ভোটারের ঘরে ঘরে ছুটে বেড়াচ্ছেন রাত-দিন সমানতালে।
নির্বাচন অফিস জানায়, বান্দরবান সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়াম্যান পুরুষ পদে ২ জন এবং মহিলা পদে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে আগামী ১৫ মার্চ তৃতীয় দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ভোটার সংখ্যা হচ্ছে- সদর উপজেলায় ৫৪ হাজার ৭১১ জন এবং ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৩৭টি। জেলা রিটানিং অফিসার ইসরাত জামান জানান, আগামী ১৫ মার্চ সদর উপজেলায় নির্বাচন আয়োজনের যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নির্বাচনে সুষ্ঠ-শান্তিপুর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণে র‌্যাব, সেনাবাহিনী, পুলিশসহ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে।

চারপ্রার্থীই নিজেদের সবচে যোগ্য মনে করছেন,ভাবছেন তিনিই বিজয়ী হবেন। কিন্তু ভোটারদের হাতেই শেষ বিকেলে সাফল্যের চাবিকাঠি। তবে দুই মারমা প্রার্থী আর দুই বাঙালী প্রার্থীর ভোট কাটাকুটির সমীকরণে শেবাবধি কে হাসবেন শেষ হাসি,তাই এখন দেখার বিষয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

সংবর্ধিত হলেন রাঙামাটি পৌরসভার অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

রাঙামাটি পৌরসভার অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিদায়ী সংবর্ধনা দিয়েছে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে পৌরসভা মিলনায়তনে …

Leave a Reply