নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » বড়দিনে উৎসব মুখর পাহাড়ী পল্লীগুলো

বড়দিনে উৎসব মুখর পাহাড়ী পল্লীগুলো

Bandarban-BoroDin-Picখ্রীষ্টান ধর্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিন’কে ঘিরে উৎসব মুখর এখন বান্দরবানের খ্রিস্টান অধ্যূষিত পাহাড়ী পল্লীগুলো। বুধবার বান্দরবানে উৎসব মুখর পরিবেশে কেককেটে, যীশুখ্রিষ্টের গুনকীর্তন এবং নানা রঙের পিঠা তৈরির প্রতিযোগীতার মধ্যে দিয়ে বান্দরবান ফাতিমা রাণী ক্যাথলিক চার্চ, কেন্দ্রীয় গীর্জা ব্যাপটিস্ট চার্চ, লাইমী পাড়া, ফারুক পাড়া এবং রুমা, রোয়াংছড়ি, থানছি, লামা উপজেলায় নানা আয়োজনে খ্রীষ্টান ধর্মালম্বী পাহাড়ীরা বড়দিন উৎসব পালন করছে।
ফাতিমা রাণী ক্যাথলিক চার্চের ফাদার পঙ্কজ পেরেরা জানান, জেলায় বড়দিনের উৎসব চলবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। সমবেত প্রার্থণা, সংগীত এবং কেক কাটার মাধ্যমে যিশু খ্রীষ্টের জন্মদিন পালন করা হচ্ছে।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে বসবাসরত ১১টি পাহাড়ী জনগোষ্ঠীর মধ্যে প্রায় ৩৫ হাজারেও অধিক ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী খ্রীষ্টান ধর্মালম্বী। ঐতিহ্যবাহী নানা পোষাকে নেচে-গেয়ে এবং প্রার্থণার মাধ্যমে বড়দিন উৎসবে মেতেছে পাহাড়ী জনগোষ্ঠীরা। পাহাড়ী খ্রীষ্টান পল্লীগুলোতে চলছে খাওয়া-দাওয়ার আনুষ্ঠানিকতাও।

জানা গেছে, ১৯১৮ সালে পার্বত্য বান্দরবান জেলায় খ্রীষ্টান ধর্মের প্রচারনা আরম্ভ হয়। এ জেলায় বম সম্প্রদায়ের জনগোষ্ঠীরা সর্বপ্রথম খ্রীষ্টান ধর্ম গ্রহণ করে। এরপর ত্রিপুরা, খেয়াং, ¤্রাে, খুমীসহ অন্যান্য পাহাড়ী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীরা খ্রীষ্টান ধর্ম গ্রহণ করেন। বর্তমানে বান্দরবান জেলায় ৩৫ হাজারেও বেশি খ্রীষ্টান ধর্মালম্বী নারী-পুরুষ রয়েছে।

আজ থেকে প্রায় দুই হাজার বছর আগে বর্তমান ফিলিস্তিনের বেথলেহেমের এক গোশালয় (কুড়েঘরে) কুমারী মাতা মেরির গর্ভে জন্ম নিয়েছিল খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের প্রধান পুরুষ প্রভু যিশু খ্রীষ্ট। তাই প্রতিবছর ২৫ ডিসেম্বর সারা বিশ্বে খ্রীষ্টান ধর্মালম্বীরা নানা আয়োজনে প্রভু যিশু খ্রীষ্টের জন্মদিন পালন করে আসছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

মহালছড়িতে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলার মনাটেক গ্রামে পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দুপুর আড়াইটায় মনাটেক …

Leave a Reply