নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেলের দাবিতে একাট্টা রাঙামাটির সব ছাত্র সংগঠন

বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেলের দাবিতে একাট্টা রাঙামাটির সব ছাত্র সংগঠন

UNI-Pic-cover-finalকোনো টেন্ডার কিংবা ভাগবাটোয়ারা নয়, ছাত্র সংগঠনগুলো যেখানে হরহামেশাই একে-অপরের ওপর হামলা নিয়ে ব্যস্ত কিংবা টেন্ডারের ভাগ নিয়ে ব্যস্ত। সে জায়গায় ব্যতিক্রম রাঙামাটি। এবার রাঙামাটিতে সকল ছাত্র সংগঠন এক হয়েছে মেডিকেল কলেজ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম দ্রুত শুরুর দাবিতে। রোববার বৃষ্টিস্নাত সকালে রাঙামাটি ছাত্রলীগ, ছাত্রদল, ছাত্রইউনিয়ন, ছাত্রসেনাসহ আরো বিভিন্ন আঞ্চলিক দলের ছাত্রসংগঠনগুলো এক হয়ে মেডিকেল কলেজ এবং রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপন সিদ্ধান্তে অভিনন্দন এবং ২০১৪-১৫শিক্ষাবর্ষে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করার দাবিতে রাজপথে নামলেন। পিসিপি ছাড়া সবগুলো ছাত্র সংগঠনই একই দাবিতে মাঠে নামলো এদিন।

সচেতন ছাত্র সমাজ ব্যানারে রাঙামাটি পৌরসভা থেকে একটি মিছিল শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে রাজপথে সমাবেশ মিলিত হয়। ঘণ্টাব্যাপী সমাবেশে এই সময় উভয়দিকে প্রচুর যানবাহন আটকা পড়ে।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাৎ মোঃ সায়েমের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি সৈকত রঞ্জন চৌধুরী, যুবলীগ নেতা শহীদুল আলম স্বপন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইলিয়াস, জেলা ছাত্রলীগের উপ-স্কুল বিষয়ক সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার, যুগ্ম সম্পাদক কামাল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম সাইদুল, শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম রাশেদ, সদর থানা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মোঃ তারেক, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আবু সুফিয়ান রেজা, জেলা ছাত্রসেনার সাধারণ সম্পাদক তারেক আজিজ, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সজল দাশ, কলেজ ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি অভিজিৎ বড়ুয়া, কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি ইমরান হোসেন সুজন, ছাত্র নেতা আল আমিন ইমরানসহ অন্যান্য ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এসময় বিভিন্ন দলের যুব সংগঠনের নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন। uni-picc-022

বক্তারা মেডিকেল কলেজের ভর্তি কার্যক্রম অনুমোদন করায় সরকারকে অভিনন্দন এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান। যে কোনা বাধাই অতিক্রম করে এ অঞ্চলে মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়নের দাবি জানান বক্তারা। তারা বলেন, এ অঞ্চলের উন্নয়ন বার বার একটি সংগঠনের কারণে পিছিয়ে পড়ছে। তারা এখানকার জনগণকে মুর্খ রেখে অস্ত্র হাতে তুলে চায়। সে অস্ত্র দিয়ে তারা এ এলাকায় ক্ষমতা ধরে রাখতে চায় বলে অভিযোগ করেন বক্তারা।

সমাবেশ শেষে রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারকলিপি প্রেরণ করা হয়। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ উন্নত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্ছিত। পার্বত্য এলাকা অনেক বেশি দুর্গম হওয়া এবং উন্নত চিকিৎসার সুযোগ না থাকার কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম নয়তো ঢাকায় যেতে হয়। এতে পথের মধ্যে অনেক রোগীর মৃত্যু হয়। এই মেডিকেল কলেজ থেকে যেমন অনেক চিকিৎসক তৈরি হবে, তেমনি পার্বত্য চট্টগ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থায় বিপ্ল¬ব ঘটবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার জন্য পার্বত্য এলাকার ছাত্র-ছাত্রীদের দেশের বিভিন্ন জায়গায় যেতে হয়। এই এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন পার্বত্য এলাকায় বসবাসকারী সকল পাহাড়ি বাঙালির জন্য উচ্চ শিক্ষার দ্বার উন্মোচিত হবে। দেশের কোনও একটি অংশের মানুষকে শিক্ষা এবং চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত করে একটি দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন কোনভাবেই সম্ভব নয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে করোনায় আরও এক নারীর মৃত্যু

রাঙামাটি শহরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ভোররাতে শহরের চম্পকনগর আইসোলেশন …

Leave a Reply